পাঁচ মিশালী

লিটল ম্যাগ ভাস্কর ও পুলিন রায়

আল মামুন বাবলু প্রকাশিত হয়েছে: ১৪-০৯-২০১৯ ইং ০০:২৯:৫৩ | সংবাদটি ১৪৮ বার পঠিত

সিলেটের সাহিত্যাঙ্গনে প্রায় তিন দশকের অধিককাল ধরে বিচরণ করছেন কবি পুলিন রায়। সম্পাদনা করছেন লিটল ম্যাগ ভাস্কর। ছাত্রাবস্থায় সেই প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক। ১৯৯০ সাল থেকে। কবির অর্ধশত-জন্মবার্ষিকী ও লিটল ম্যাগাজিন ভাস্করের ২৫ বছর পূর্তি উপলক্ষে সম্মাননা গ্রন্থ পঞ্চাশে পুলিন, পঁচিশে ভাস্কর’ প্রকাশিত হয় ৪ জুন ২০১৬ সালে। কবির লেখা যারা পড়েছেন, কাছে থেকে দেখেছেন কবির সৃজনশীলতা তারাই ভালবেসে লিখেছেন সম্মাননা গ্রন্থটিতে।
বইটি এক অনুপ্রেরণার উৎস ও দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে সিলেটের সাহিত্যাকাশে। যারা এই স্মারকগ্রন্থে লিখেছেন, তারা হলেন- কবি নৃপেন্দ্র লাল দাশ, অধ্যাপক প্রশান্ত কুমার সাহা, ডক্টর আবুল ফতেহ ফাত্তাহ, অধ্যাপক এ.এস.এম. মকবুলুর রহমান, এ.কে. শেরাম, এনায়েত হাসান মানিক, মিলু কাশেম, নিয়াজ উদ্দিন, খালেদ উদ-দীন, মোহাম্মদ হোসাইন, শাহাদত বখত শাহেদ, শামসুল আলম সেলিম, হিমাংশু রঞ্জন দাশ, মুহম্মদ তবারক আলী, সুমন বণিক, জাফর ওবায়েদ, আহমদ আলী, আবিদ ফয়সাল, রানা কুমার সিংহ, খতিবুর রহমান এবং কবি ছড়াকার সংগঠক সুললিত কন্ঠের উপস্থাপক ধ্রুব গৌতম। গ্রন্থটির উল্লেখযোগ্য দিকগুলি হলো: সম্পাদনা পর্ষদের প্রশংসাপত্র, সম্পাদকীয় নয় কিংবা ভূমিকা, এক কথায় অতি সংক্ষেপে যেন পুলিন রায়ের ও ভাস্করের প্রতিচ্ছবি। বইটির প্রচ্ছদ অত্যন্ত সাদামাটা কিন্তু পরিপাটি মলাটে আবদ্ধ। ঠিক যেন কবির জীবনের মতো সংগ্রাম-সফলতা মিশ্রিত।
স্মারক গ্রন্থটির মূল গর্ভে রয়েছে কবির উদ্দেশ্যে লিখিত প্রবন্ধ আলোচনা-সমালোচনা। দেশ ও দেশের বাহিরের কবি-সাহিত্যিক গবেষকদের নিয়ে যার শিরোনাম-স্মৃতির সারস ডানায়। কবির কাব্যগ্রন্থগুলো নিয়ে চুলচেরা বিশ্লেষণ করেছেন এপার বাংলা ওপার বাংলার বিশিষ্ট গবেষকগণ- আবুল ফতেহ ফাত্তাহ, এ.কে. শেরাম, এম. এম. ইলিয়াস, তৈমুর খান, সুভাস রবি দাস- সৃজনের সরোবরে অংশে যা বইটির ১৩৭-১৫৪ পৃষ্ঠা অবধি। কবির জন্মদিন উদ্দেশ্য করে কবি-সাহিত্যিক-ছড়াকার-সহকর্মী বন্ধুরা কবিতা আর ছড়ায় কবির সম্মানে, লিখেছেন গ্রন্থটির ‘কাব্য কুসুমের ডালি’ অংশে। কবি পুলিন রায় নিজে ভালো কবিতা লিখেন, সেই দায়বদ্ধতাবোধ থেকে লায়লা ফেরদৌস ইতু বহির্বিশ্বে কবির কবিতা ও পরিচিতি ছড়িয়ে দেয়ার লক্ষেই মনে হয় কবির পাঁচটি কবিতা ইংরেজিতে ভাষান্তর করেছেন যা অত্যন্ত ঋদ্ধ করেছে গ্রন্থটি। আরো সংযোজিত রয়েছে সম্মাননা গ্রন্থটিতে। যাকে নিয়ে এতো আয়োজন সেই কবির একান্ত আলাপচারিতা, জীবন-বৃত্তান্ত, দেশ-বিদেশের স্বনামধন্য লেখক-সংগঠনের সাথে আড্ডার বেশকিছু মূল্যবান আলোকচিত্র। কবির প্রকাশিত বিভিন্ন বই-সম্পাদিত লিটল ম্যাগাজিনের ছবিগুলো যেন অতীতের গৌরবময় স্মৃতি স্মরণ করিয়ে দেয়।
গ্রন্থটিতে কবি রসময় ভট্টাচার্য লিখেছেন, কবি আসলেই একজন সংগ্রামী ও মহৎ হৃদয়ের মানুষ। কতটুকু মহৎ হৃদয় এবং উদার মনের মানুষ ছাড়া নিজের অতীতের, খেতের কাজ করা থেকে শুরু করে লাকড়ি, পান, সিগারেট, পলিথিন বিক্রির মতো কাজের ও কষ্টের কথাগুলো প্রতিষ্ঠিত জীবনে এসে প্রথম শ্রেণির সরকারি কর্মকর্তা হয়েও কেউ প্রকাশ করবে বলে আমার মনে হয় না।
পুলিন রায়ের সম্পাদিত লিটল ম্যাগ ভাস্কর ইতিমধ্যে ‘২৫’ বছর পেরিয়ে গেছে। ২০১১ সালে ‘ভাস্কর’ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ‘চিহ্ন’ সম্মাননা অর্জন করে। ভাস্কর এর দিলওয়ার সংখ্যা ২০১৪ সাল থেকে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের রেফারেন্স বই হিসেবে পাঠ্যভুক্ত হয়। দুটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের এই স্বীকৃতি পুলিন রায় ও ভাস্কর এর জন্য অবশ্যই গৌরবের। বাংলাদেশের লিটল ম্যাগাজিনের ইতিহাসে অন্যতম শ্রেষ্ঠ অর্জনগুলোর একটি। ভাস্করে চির ভাস্কর হয়ে থাকবেন সম্পাদক।

 

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT