প্রথম পাতা আতঙ্কগ্রস্ত এক যাত্রীর বর্ণনা

ঝুঁকিপূর্ণ সিলেট রেলপথ

প্রকাশিত হয়েছে: ২২-০৯-২০১৯ ইং ০২:৫২:৩১ | সংবাদটি ৩৮৪ বার পঠিত
Image

স্টাফ রিপোর্টার॥ চট্টগ্রাম থেকে উদয়ন এক্সপ্রেস ট্রেন গত শুক্রবার রাত পৌণে ১০টায় সিলেটের উদ্দেশ্যে ছাড়ে। ট্রেনের ‘ঘ’ বগি ¯িœগ্ধার যাত্রী ছিলেন সিলেটে কর্মরত বাংলাদেশ ব্যাংকের এক অফিসার। রাত পৌনে চারটার দিকে শ্রীমঙ্গলের কাছাকাছি আসার পর ট্রেন বিকট শব্দ করে কেঁপে উঠে। যাত্রীদের অনেকে ভয়ে কান্নাকাটি শুরু করেন। ব্যাংক কর্মকর্তাও ভয়ে আল্লাহর নাম নিতে থাকেন। ১০ মিনিট ট্রেন ধীর গতিতে চলার পর থামে। শ্রীমঙ্গল থেকে সংশ্লিষ্টরা গিয়ে ট্রেনের ঢিলে নাট-বল্টু ঠিক করেন। এর পর ট্রেন আবার চলতে শুরু করে কিন্তু মানুষের ভয় কাটেনি। শ্রীমঙ্গল স্টেশনে আসার পর আতংকগ্রস্ত মানুষ প্রতিবাদী হয়ে উঠেন। এরপর স্টেশনে প্রায় আধঘন্টা কাজ করে ফজরের নামাজের পর সিলেটের উদ্দেশ্যে ট্রেন ছাড়ে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সরকারি ব্যাংকের ঐ কর্মকর্তা ঘটনার বর্ণনা দিয়ে বলেন, শ্রীমঙ্গল থেকে দুরু দুরু বুকে চরম আতংক নিয়ে সিলেটে এসে পৌঁছেছে। তিনি বলেন, একসময় রেলযাত্রা ছিলো আনন্দ ও নির্ভয়ের যাত্রা। এখন রেলে যেতে হলে দোয়া পড়ে দুরুদুরু বুকে যেতে হয়। শুধু শুক্রবারের এই ঘটনা নয়। সিলেট-ঢাকা, সিলেট-চট্টগ্রাম রেলপথ এখন মানুষের কাছে যেন এক আতঙ্কের নাম। এই লাইন এখন মানুষের কাছে পরিণত হয়েছে মরণ ফাঁদে। গত পাঁচ মাসে সিলেট-ঢাকা ট্রেন লাইনে দশটি দুর্ঘটনা ঘটেছে। এসব দুর্ঘটনায় পাঁচ জন নিহত ও প্রায় শতাধিক আহত হয়েছেন।
ব্রিটিশ আমলে নির্মাণ করা হয়েছিল এই লাইন। জোড়াতালি দিয়ে এখনো চলছে দেশের অন্যতম এই রেলপথ। রেল লাইনের অধিকাংশ জায়গায় নেই স্লিপার, নাট-বল্টু। আবার কোথাও কোথাও নাট-বল্টু ঢিলে থাকায় রেল লাইন নড়বড়ে হয়ে আছে।
গত ৪ মাসে সিলেট-ঢাকা রেল লাইনে ১০টি দুর্ঘটনা ঘটেছে। এক মাসের ভিতরে শুধু মৌলভিবাজারের কুলাউড়ায় ঘটেছে ৫টি দুর্ঘটনা। সর্বশেষ গত ১৭ সেপ্টেম্বর সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জের মাইজগাঁও রেলস্টেশনে একটি ট্রেনের বগি লাইনচ্যুত হয়। ৪ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রাম থেকে সিলেটগামী জালালাবাদ এক্সপ্রেস আবারও ফেঞ্চুগঞ্জের মাইজগাঁও এলাকায় দুর্ঘটনার শিকার হয়।
এর আগে গত ১৬ আগস্ট যাত্রীবাহী উপবন এক্সপ্রেস দুর্ঘটনায় পতিত হয় ঝুঁকিপূর্ণ জায়গা হিসেবে চিহ্নিত ফেঞ্চুগঞ্জের মাইজগাঁও এলাকায়। এতে যাত্রী সাধারণ চরম আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। তাড়াহুড়া করে নামতে গিয়ে ১৫/২০ জন যাত্রী আহত হন।
১৯ জুলাই সকালে সিলেট থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী জয়ন্তিকা এক্সপ্রেস ট্রেনটি কুলাউড়া জংশনের ৩শ ফুট দূরে একটি বগি লাইনচ্যুত হয়। এতে কয়েকজন যাত্রী আহত হন। পরদিন ২০ জুলাই সিলেট থেকে ছেড়ে যাওয়া ঢাকাগামী আন্তঃনগর কালনী এক্সপেস ট্রেনটি একই স্থানে দুর্ঘটনায় পড়ে।
গত ৭ জুলাই ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা সিলেটগামী জয়ন্তিকা এক্সপ্রেস ট্রেনটি কুলাউড়ার হাজিপুরের পলকি ও মনু ব্রিজের মধ্যখানে একটি গরুকে ধাক্কা দেয়। এতে ইঞ্জিনের সামনের একটি হুইস পাইপ ভেঙ্গে ঘটনাস্থলে ট্রেনটি থেমে যায়। বিকল হয় ইঞ্জিন। এর আগে গত ২৮ জুন অতিবৃষ্টির কারণে ও পাহাড়ি ঢলে সিলেট থেকে চট্টগ্রামগামী পাহাড়িকা এক্সপ্রেস বড়ছড়া ব্রিজ ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় আটকা পড়ে। ২৩ জুন মৌলভীবাজারের কুলাউড়ার বরমচাল এলাকায় উপবন এক্সপ্রেস বড় ধরণের দুর্ঘটনায় পড়ে। এ ঘটনায় ৪ জন নিহত হন ও আহত হন অনেক যাত্রী। এছাড়া ২ জুন হবিগঞ্জের বাহুবলের রশিদপুরে কুশিয়ারা ট্রেন লাইনচ্যুত হয়।
রেলের সিলেট জোনের প্রকৌশলী মো. আশরাফুল আলম খান বলেন ত্রুটিপূর্ণ রেল লাইন মেরামতের জন্য কাজ চলমান রয়েছে। পুরাতন নাট-বল্টুও লাগানো হচ্ছে। সিলেট-ঢাকা রেল লাইনের ঝুঁকিপূর্ণ ৪৩, ৪৫ ও ৪৭ নম্বর ব্রিজের কাজ শেষ পর্যায়ে রয়েছে বলে তিনি জানান।

শেয়ার করুন

ফেসবুকে সিলেটের ডাক

প্রথম পাতা এর আরো সংবাদ
  • দুই ল্যাবে সিলেটের আরো ৭৪ জনের করোনা শনাক্ত
  • বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস রবিবার
  • সিলেট বিভাগে করোনা আক্রান্ত ৯০০ ছাড়াল
  • ভিয়েতনামের করোনা যুদ্ধ জয়ের গল্প...
  • বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবাষির্কী উপলক্ষে স্মারক ডাকটিকিট অবমুক্ত করল জাতিসংঘ
  • ছাতকে অনিয়ন্ত্রিত বাজার : কাঁচাবাজার আবারো প্রধান সড়কে
  • রোববার থেকে সীমিত পরিসরে শাবির দাপ্তরিক কার্যক্রম চালু
  • হবিগঞ্জে স্থাপন হচ্ছে পিসিআর ল্যাব
  • জগন্নাথপুরে পৃথক তিন সংঘর্ষে আহত ২০
  • ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে চলবে বিচার কার্যক্রম
  • ৮ দিন পর আখাউড়া বন্দরে আমদানি-রফতানি শুরু
  • অপরিবর্তিত বিমানভাড়া, অভ্যন্তরীণ রুটে ২৪ ফ্লাইট
  • করোনা রোধে জনপ্রতিনিধিদের আরও বেশি সম্পৃক্ত করার নির্দেশ
  • এসএসসির ফল প্রকাশের ব্রিফিংয়ের সময় পরিবর্তন
  • ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর অবস্থা ‘স্থিতিশীল’
  • জৈন্তাপুরে বন্যপ্রাণি হত্যার ঘটনায় বন আইনে মামলা
  • মৌলভীবাজারের হলিমপুরে ইতালী প্রবাসীর স্ত্রীর আত্মহত্যা
  • ৬ মাসের ভাড়া মওকুফের দাবীতে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে মানববন্ধন
  • নতুন করে হোম কোয়ারেন্টাইনে ২২ জন, ছাড়পত্র পেয়েছেন ২৫ জন
  • মৃত্যু ৩ লাখ ৬৪ হাজার, আক্রান্ত ৫৯ লাখের বেশি
  • Image

    Developed by:Sparkle IT