প্রথম পাতা বিএনপি’র বিভাগীয় সমাবেশ, মুক্তি দাবি জেলা বিএনপি’র

তিন উপজেলায় লিফলেট বিতরণকালে আটক ১২

প্রকাশিত হয়েছে: ২৩-০৯-২০১৯ ইং ০২:১৫:১৩ | সংবাদটি ১৫৪ বার পঠিত

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সিলেটের তিন উপজেলায় বিভাগীয় সমাবেশের লিফলেট বিতরণকালে বিএনপি’র ১২ নেতা-কর্মীকে আটক করা হয়েছে। এর মধ্যে গোলাপগঞ্জ থেকে ৬ জন, জকিগঞ্জে ৫ জন এবং ফেঞ্চুগঞ্জে একজনকে আটক করা হয়েছে। জেলা বিএনপি ও বিএনপি নেতা ফয়সল আহমদ চৌধুরী আটককৃতদের মুক্তি দাবি করেছেন।
আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো রিপোর্র্র্ট:
গোলাপগঞ্জ ( সিলেটে) থেকে নিজস্ব সংবাদদাতা জানান, সেখানকার ঢাকাদক্ষিণে বিএনপির লিফলেট বিতরণকালে উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান, উপজেলা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক নোমান উদ্দিন মুরাদ ও উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মনিরুজ্জামান উজ্জ্বলসহ ৬ বিএনপি নেতাকর্মীকে আটক করেছে গোলাপগঞ্জ মডেল থানা পুলিশ। গতকাল রোববার সন্ধ্যা ৭টার দিকে ঢাকাদক্ষিণ বাজারের লঞ্চ ঘরের সামন থেকে তাদের আটক করা হয়। এ ঘটনার পর তাৎক্ষণিক ঢাকাদক্ষিণ বাজারে বিএনপি নেতাকর্মীরা প্রায় ১ঘন্টা ঢাকাদক্ষিণ-গোলাপগঞ্জ সড়ক অবরোধ করে রাখে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, আগামী ২৪ তারিখ জেলা বিএনপির সমাবেশ সফলের লক্ষ্যে বিএনপি নেতাকর্মীরা গতকাল রোববার সন্ধ্যায় ঢাকাদক্ষিণ বাজারে লিফলেট বিতরণ করছিলেন। এসময় গোলাপগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মিজানুর রহমানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ লিফলেট বিতরণ থেকে গোলাপগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান, উপজেলা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক নোমান উদ্দিন মুরাদ ও উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মনিরুজ্জামান উজ্জ্বলসহ ৬ বিএনপি নেতাকর্মীকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। তবে কি কারণে তাদের আটক করা হয়েছে তা পুলিশ জানায়নি। এসময় বিএনপির নেতাকর্মীরা প্রায় ১ঘণ্টা ঢাকাদক্ষিণ-গোলাপগঞ্জ সড়ক অবরোধ করে রাখে।
এ ব্যাপারে গোলাপগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মিজানুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ৬জন আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।
এদিকে, গোলাপগঞ্জ থেকে আটক বিএনপি নেতা-কর্মীদের মুক্তি দাবি করেছেন সিলেট জেলা ছাত্রদলের সাবেক আহ্বায়ক ও সিলেট-৬ আসনে বিগত নির্বাচনে বিএনপি নেতা প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী ফয়সল আহমদ চৌধুরী। এক বিবৃতিতে তিনি অবিলম্বে তাদের মুক্তি দাবি করেন।
জকিগঞ্জ (সিলেট) থেকে নিজস্ব সংবাদদাতা : সিলেট বিভাগীয় বিএনপির সমাবেশকে সফল করতে লিফলেট বিলিকালে জকিগঞ্জে বিএনপি ও যুবদলের সাধারণ সম্পাদক এবং ছাত্রদলের ৩ কর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।
বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে ২৪ সেপ্টেম্বরের সিলেটে বিভাগীয় সমাবেশ সফল করতে নেতাকর্মী নিয়ে গতকাল বোববার বিকেলে পৌর শহরে লিফলেট বিলি করতে বের হন উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান, উপজেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মাসুক আহমদসহ কয়েকজন নেতা। খবর পেয়ে সন্ধ্যা ৬ টার দিকে জকিগঞ্জ থানা পুলিশের একটি টিম শহরের মুক্তিযোদ্ধা চত্বর এলাকা থেকে বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান, উপজেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মাসুক আহমদসহ ছাত্রদলের ৩ কর্মীকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। তবে পুলিশ আটককৃতদের নাম আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করেনি।
উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক হাসান আহমদ তাদেরকে গ্রেফতারের নিন্দা জানিয়ে বলেন, কোন কারণ ছাড়াই উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান, উপজেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মাসুক আহমদ, ছাত্রদল কর্মী জাকির আহমদ, তারেক ও রাশেদ আহমদকে আটক করেছে পুলিশ।
জকিগঞ্জ থানার ওসি মীর মো. আব্দুন নাসের বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের ৫ নেতাকর্মীকে আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তাদের পরিচয় যাচাই বাছাই করে কারো বিরুদ্ধে আগের মামলা থাকলে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। আর আগের মামলা না থাকলে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও জানান তিনি।
এছাড়া, ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা যুবদল বিএনপি নেতা মাওলানা বাহা উদ্দিনকে আটক করা হয়েছে বলে বিএনপি’র পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে।
জেলা বিএনপি’র নিন্দা ॥ ২৪ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার রেজিস্ট্রারী মাঠের বিভাগীয় সমাবেশে লোক সমাগম ঠেকাতে সিলেটের বিভিন্ন উপজেলায় বিএনপি অঙ্গ-সংগঠনের নেতাকর্মীদের উপর ব্যাপক ধরপাকড়ের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন সিলেট জেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দ। গণগ্রেফতার চালিয়ে সমাবেশ বানচাল করা যাবে না বলেও হুঁশিয়ারী দেন তারা। রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত সিলেটের বিভিন্ন উপজেলায় লিফলেট বিতরণ কালে বিএনপির অঙ্গ সংগঠনের ১২ জনেরও অধিক নেতাকর্মীকে আটক করা হয়েছে বলে এক বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়। গণগ্রেফতারের নামে হয়রানী বন্ধ করে অবিলম্বে আটক নেতাকর্মীদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবী জানান তারা।
সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীম, ও সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ বলেন, ২৪ সেপ্টেম্বরের বিভাগীয় সমাবেশ বানচাল করতে নানা ষড়যন্ত্র চলছে। এর অংশ হিসেবে সিলেটের বিভিন্ন উপজেলা জুড়ে নেতাকর্মীদের উপর গণগ্রেফতার চালানো হচ্ছে।
বিবৃতিতে বলা হয়, গণগ্রেফতারের মাধ্যমে নেতাকর্মীদের মাঝে আতংক ছড়ানো হচ্ছে। যাতে সমাবেশে লোক সমাগম বন্ধ করা যায়। কিন্তু, কোন ষড়যন্ত্রই সফল হবে না। সকল জুলুম-নিপীড়ন ও গণগ্রেফতার উপেক্ষা করে রেজিস্ট্রারী মাঠে নতুন ইতিহাস সৃষ্টি হবে। তারা গণগ্রেফতারের নামে হয়রানী বন্ধ করে আটক নেতাকর্মীদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবী জানান।

শেয়ার করুন
প্রথম পাতা এর আরো সংবাদ
  • পৌরসভায় উন্নীত বিশ্বনাথ
  • ‘রবীন্দ্র শতবর্ষ স্মরণোৎসব’ উদযাপন কমিটি পুনর্গঠন
  • রক্তদান একটি মানবিক কাজ --------দানবীর ড. রাগীব আলী
  • বিভাগীয় শহর হলেই ফরিদপুর সিটি কর্পোরেশন
  • বিএনপির এমপি হারুনকে ৫ বছরের কারাদন্ড
  • আত্মরক্ষার্থে ভোলায় গুলি চালিয়েছে পুলিশ: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
  • সরকারি চাকুরেদের গ্রেফতারের অনুমতির বিধান নিয়ে হাই কোর্টের রুল
  • ওমর ফারুক ও তার পরিবারের ব্যাংক লেনদেন স্থগিত
  • বোরহানউদ্দিনের সেই শুভসহ তিনজন কারাগারে
  • ভোলায় ৭২ ঘণ্টার আল্টিমেটাম ‘সর্বদলীয় মুসলিম ঐক্য পরিষদের’
  • বাংলাদেশের তৈরি পোশাক খাতে শ্রমিকের নিরাপত্তা নিয়ে কাজ করছে যুক্তরাষ্ট্র --------------মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল মিলার
  • সোহরাওয়ার্দীতে সমাবেশের অনুমতি পায়নি ঐক্যফ্রন্ট
  • আসামের গুয়াহাটিতে বাংলাদেশ ভারত স্টেক হোল্ডার বৈঠক আজ
  • বাবা ও দুই চাচা ফের রিমান্ডে
  • শাবি’র তৃতীয় সমাবর্তন ৮ জানুয়ারি
  • ওয়ার্ড-ইউনিয়নের সম্মেলন না করেই উপজেলা সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা
  • প্রধানমন্ত্রী ভোলার ঘটনায় ধৈর্য্যরে আহ্বান জানিয়েছেন দেশবাসীর প্রতি
  • ওয়ান স্টপ সার্ভিস একপে, একসেবা ও একশপ উদ্বোধন করেন সজিব ওয়াজেদ জয়
  • ওমর ফারুককে যুবলীগ চেয়ারম্যান থেকে অব্যাহতি
  • ‘জনগণ ভোট দিতে পারেনি’ বক্তব্যের ব্যাখ্যা দিলেন মেনন
  • Developed by: Sparkle IT