শেষের পাতা

সুনামগঞ্জে মুদি ব্যবসায়ী হত্যা মামলায় যুবকের যাবজ্জীবন

প্রকাশিত হয়েছে: ২৩-০৯-২০১৯ ইং ০৪:০৪:২৭ | সংবাদটি ২৩৩ বার পঠিত
Image

সুনামগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি : সুনামগঞ্জে মুদি ব্যবসায়ী ফেরদৌস মিয়া হত্যা মামলায় সানি মিয়া(৩১) নামের এক যুবককে যাবজ্জীবন কারাদ- ও ৫০ হাজার টাকা অর্থদ- অনাদায়ে আরো ৩ মাসের কারাদ- দিয়েছেন আদালত। গতকাল রোববার দুপুর পৌণে ১২ টায় এ রায় ঘোষণা করেন সুনামগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মামুন।
যাবজ্জীবন কারাদ- প্রাপ্ত সানি মিয়া জগন্নাথপুর উপজেলার ঘোষগাঁও এর মৃত আব্দাল মিয়ার ছেলে।
আদালত সূত্র জানায়, জগন্নাথপুর শিবগঞ্জ রোডে রাস্তার পূর্ব পাশে শাহরিন ভেরাইটিজ স্টোর নামক মুদি দোকান ছিল ফেরদৌস মিয়ার। ২০০৮ সালের ১৪ জুন দিনগত রাত অনুমান সোয়া ৮ টার দিকে ফেরদৌসের বড় ভাই রাজন মিয়া দোকান থেকে চাচাতো ভাই নাজমুল ও প্রতিবেশী জাহের মিয়াসহ বাড়ি ফিরছিলেন। এই পথের কোনাপাড়া জালাল উদ্দিন রোড নামক কাচা রাস্তার মধ্যবর্তী স্থানে পৌছলে জ্যোৎ¯œার আলোতে রাস্তায় দেখতে পান তার ছোট ভাই ফেরদৌসের দোকানের চাবি পড়ে আছে। দেখে সঙ্গে থাকা নাজমুল ও জাহেরকে ছোটতে ভাইয়ের দোকানের চাবির ঝুমটা দেখান। সঙ্গে সঙ্গে পাশের ঝোপে গিয়ে দেখেন ফেরদৌস রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে আছে ও তার শরীরে ধারালো অস্ত্রের অসংখ্য আঘাত এবং পাশেই ধারালো অস্ত্র হাতে ঘোষগাঁও গ্রামের মৃত আবদাল মিয়ার ছেলে সানি মিয়া দাড়িয়ে আছে। সঙ্গে সঙ্গে ফেরদৌসের বড় ভাই রাজন মিয়া ঘাতক সানি মিয়াকে ধরতে গেলে হাতে থাকা ধারালো অস্ত্র দিয়ে রাজনকেও আঘাত করলে রাজন চিৎকার দিয়ে মাটি পড়ে যান। এসময় সঙ্গে থাকা নাজমুল ও জাহের এবং আশে পাশের লোকজন এগিয়ে এলে ঘাতক সানি পালিয়ে যায়। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় ফেরদৌস ও রাজনকে তাদের বাড়িতে নিয়ে এলে ফেরদৌস মারা যায় এবং রাজনকে হাসপাতালে পাঠানো হয়। এ ঘটনায় নিহত ফেরদৌস ও আহত রাজনের বড় ভাই শাহীন মিয়া বাদি হয়ে ১৫ জুন জগন্নাথপুর থানায় সানি মিয়া, সাজ্জাদ মিয়া, আনোয়ার মিয়া, মো.নূর আলম, আজম মিয়া ও রবির বিরুদ্ধো হত্যা মামলা দায়ের করেন। তদন্ত শেষে পুলিশ সানি মিয়ার বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশীট দাখিল করে।
দীর্ঘ শুনানী শেষে আদালত সানি মিয়াকে যাবজ্জীবন কারাদ- ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো ৩ মাসের কারাদ- প্রদান করেন এবং সাজ্জাদ মিয়া, আনোয়ার মিয়া, মো.নূর আলম, আজম মিয়া ও রবিকে বেখসুর খালাস প্রদান করেন।
রাষ্ট্রপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন, এডভোকেট সৈয়দ জিয়াউল ইসলাম ও আসমি পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন, এডভোকেট মো. আজাদুল ইসলাম ও এডভোকেট আজমল হোসেন।

 

শেয়ার করুন

ফেসবুকে সিলেটের ডাক

শেষের পাতা এর আরো সংবাদ
  • তিলপাড়া ইউনিয়নে বিয়ানীবাজার থানা জনকল্যাণ সমিতি ইউকে’র আর্থিক সহায়তা প্রদান
  • জগন্নাথপুরে নলজুর সেতুর সংযোগ সড়ক উদ্বোধন
  • বিয়ানীবাজারের ৪ ইউনিয়নে থানা জনকল্যাণ সমিতি ইউকের আর্থিক সহায়তা প্রদান
  • যুক্তরাজ্য বিএনপির উদ্যোগে পূর্ব লন্ডনের নিউহ্যাম হসপিটালের এনএইচএস ষ্টাফদের জন্য খাদ্য বিতরণ
  • সিলেটে ৮৫০ পরিবারকে খাদ্য সহায়তা প্রদান করেছে দক্ষিণ সুরমা সমাজ কল্যাণ সমিতি
  • ওয়ার্ল্ড বিডি হিউম্যান হেল্প এসোসিয়েশনের কমিটি গঠিত
  • রাধাকান্ত দেবনাথের শ্রাদ্ধানুষ্ঠান আজ
  • ব্যবসায়ী গৌসুল আলম গেদু’র ব্যক্তিগত উদ্যোগে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ
  • মাধবপুরের আবাবিল সোসাইটির ত্রাণ বিতরণ
  • করোনায় অসহায় ১৮১ পরিবারের পাশে প্রজন্ম প্রত্যাশা
  • হাতিম চৌধুরী ইসলামিয়া হাফিজিয়া দাখিল মাদ্রাসার কৃতজ্ঞতা প্রকাশ
  • শাল্লায় কমিউনিস্ট পার্টির হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ
  • আরও একশ পরিবারে খাদ্য সামগ্রী পৌছে দিল বন্ধন সমাজ কল্যাণ যুব সংঘ
  • অসহায় পরিবারদের উপহার সামগ্রী দিল সিলেট জেলা ছাত্রলীগ
  • মাধবপুরে সুরমা চা বাগানে ত্রাণ বিতরণ
  • সিলেটে ১শ’ পরিবারের ১মাসের ভরণপোষণের দায়িত্ব নিলেন ব্যবসায়ী গৌসুল আলম
  • রোটারী ক্লাব অব গ্র্যান্ড সিলেট-এর ত্রাণ সহায়তা পেল নগরীর শতাধিক পরিবার
  • সিলেটে দৃষ্টিপ্রতিবন্ধীদের পাশে বৃটেনের ইষ্টহ্যান্ড
  • কোম্পানীগঞ্জে ঠিকাদার ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের খাদ্য সামগ্রী বিতরণ
  • বিয়ানীবাজারে প্রবাসীদের অনুদান পেলেন দু’শতাধিক পরিবার
  • Image

    Developed by:Sparkle IT