সম্পাদকীয়

মানুষের মধ্যেই আমাদের বসবাস করতে হয়। তাই আসুন মানবতার জয়গান গাই।-আদ্রে জিদ

দেশীয় পণ্যের বাজার প্রকাশিত হয়েছে: ১৮-১০-২০১৯ ইং ০০:৫৫:৫৯ | সংবাদটি ৯৭ বার পঠিত

‘দেশীয় পণ্য কিনে হও ধন্য’ এই শ্লোগানটি একসময় বেশ শোনা যেতো। কারণ, মানুষ বিদেশী জিনিসপত্র কেনার প্রতি আগ্রহী ছিলো বেশি। ক্রেতারা পণ্যের গুণগত মান যাচাই না করেই কিনতো বিদেশী পণ্য। এখনও মানুষের মধ্যে সেই প্রবণতা রয়ে গেছে। দেশীয় পণ্যের মান যতোই উন্নত হোক না কেন, সেটা রেখে বিদেশী পণ্যটিই কিনেন অনেক ক্রেতা। যে কারণে দেশীয় পণ্যের প্রসার ঘটছে না প্রত্যাশিতভাবে। কোন উৎসব-পার্বণে কিংবা অন্যান্য সময় মানুষ নানা ধরণের দ্রব্য কেনাকাটা করে। ঈদ-পূজায় হাজার হাজার কোটি টাকার পণ্যদ্রব্য বেচাকেনা হয়। কিন্তু তাতে কী পরিমাণ পণ্য দেশীয় আর কী পরিমাণ বিদেশী বিকিকিনি হচ্ছে, সেটাই বড় প্রশ্ন। সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে, দেশীয় পণ্য কেনার মধ্যে একটা নিটোল দেশপ্রেম নিহিত থাকে।
দেশীয় পণ্যের মান ভালো নয় বলেই ক্রেতারা এর দিকে ঝুঁকছে না। এই ধরণের একটা কথা শোনা যায় প্রায় সময়ই। তার মানে হলো, দেশের জনগোষ্ঠীর একটা বড় অংশই বিশ্বাস করে যে, দেশীয় পণ্যের মান আশানুরূপ নয়। কিন্তু বাস্তবতা হলো, ঢালাওভাবে এই ধরণের মনোভাব পোষণ করার কোন মানে নেই।
আর এদেশের কোন কোন পণ্য যে আন্তর্জাতিক মান উত্তীর্ণ, সেটা ভুলে গেলে চলবে না। অতীতেও তৈরী হতো মানসম্পন্ন পণ্য। তবে দিন দিন এর সংখ্যা বাড়ছে। উদাহরণ স্বরূপ-আমাদের পোষাক শিল্পের কথা উল্লেখ করা যায়। আমরা তৈরী পোষাক রপ্তানীতে এখন বিশ্বে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছি।
এছাড়া, আমাদের তৈরী ওষুধ রপ্তানী হচ্ছে বিশ্বের ৭০টি দেশে। সিমেন্ট, প্লাস্টিক পণ্য বিদেশে রপ্তানী হচ্ছে। মান ভালো না হলে এগুলো রপ্তানী হতো না। রপ্তানী বাণিজ্যে এতো সাফল্যের পরও আমাদের প্রচুর পণ্য আমদানী করতে হয় বিদেশ থেকে। রপ্তানীর তুলনায় আমদানীর পরিমাণ অনেক বেশি। এই ঘাটতি পুষিয়ে নিতে দেশীয় পণ্যের প্রতি আকর্ষণ বাড়াতে হবে ক্রেতাদের।
সবচেয়ে জরুরী হচ্ছে মানসিকতার পরিবর্তন। প্রতিটি দেশপ্রেমিক জনগণকে এটা বুঝতে হবে যে, দেশীয় পণ্য কেনা মানে দেশের অর্থনীতি সমৃদ্ধকরণে ভূমিকা রাখা। আর ক্রেতারা যদি দেশীয় পণ্যের প্রতি ঝুঁকে, তবে বিক্রেতারাও দোকানে দেশীয় পণ্যের সমাহার গড়ে তুলতে বাধ্য হবে। সর্বোপরি উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলো যাতে বিদেশীপণ্যের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় টিকে থাকার মতো মান সম্পন্ন পণ্য তৈরী করতে আগ্রহী হয়, সেটা নিশ্চিত করতে হবে। সমৃদ্ধির অগ্রযাত্রায় অভীষ্ট লক্ষে পৌঁছুতে সকলকে দেশপ্রেমের চরম পরাকাষ্ঠা প্রদর্শন করা অত্যন্ত জরুরী।

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT