সম্পাদকীয়

গ্রামীণ জনপদের সৌন্দর্য্য

প্রকাশিত হয়েছে: ২৬-১০-২০১৯ ইং ০০:১৩:৪১ | সংবাদটি ১০৪ বার পঠিত


প্রধানমন্ত্রীর অঙ্গীকার গ্রাম হবে শহর। মানে গ্রামের চিরাচরিত দৃশ্য সবুজ শ্যামলিমা শান্ত পরিবেশ ইত্যাদি সবই থাকবে; তবে সেখানে চলে আসবে নাগরিক সুযোগ সুবিধা। তাই গ্রামের উন্নয়নের দিকে বিশেষ নজর দিয়েছে এই সরকার। সরকারের এই উদ্যোগ তথাকথিত প্রথার বাইরে গিয়ে এক নতুন জানালার উন্মোচন করেছে। প্রধানমন্ত্রী নিজেই বলেছেন-গ্রাম বলতে সেই গ্রাম আর থাকবেনা এবং শহরের সুবিধা সেই গ্রামে পৌঁছে যাবে। যে অঙ্গীকার জাতির কাছে করেছিলো ক্ষমতাসীন দল ২০১৮ সালে নির্বাচনের প্রাক্কালে। অন্যান্য সব অঙ্গীকারের মধ্যে এই অঙ্গীকারটি গুরুত্বপূর্ণ; বিশেষ করে গ্রামে বসবাসকারী দেশের বৃহত্তর জনগোষ্ঠীর স্বার্থের সঙ্গে এই বিষয়টি সম্পৃক্ত। আর দেশের উন্নয়ন বিশেষজ্ঞগণ বলছেন, সরকারের ধারাবাহিকতার কারণে গ্রামীণ অর্থনীতিসহ সার্বিক উন্নয়নে প্রণীত প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নে গতি পেয়েছে। ফলে সার্বিক উন্নয়ন ভাবনায় এসেছে নতুন মাত্রা।
গ্রামীণ জনপদ সৃষ্টিকর্তার অপরূপ সৃষ্টি। হাওর, নদী, খাল, সবুজ বিস্তীর্ণ মাঠ, ধানের ক্ষেত, ছায়া ঢাকা গ্রাম-এই সবকিছু নিয়েই আবহমান বাংলার গ্রামাঞ্চল। গ্রাম বাংলার অরূপ সৌন্দর্য্য নিয়ে সৃষ্টি হয়েছে অসংখ্য সাহিত্য-কর্ম; তৈরি হয়েছে অগণিত গান। দেশজুড়ে গ্রামের সংখ্যা ৮৭ হাজার তিনশ’ ১৬টি। আর দেশের ১৬ কোটির বেশি জনসংখ্যার মধ্যে ১২ কোটির বেশি বসবাস করে প্রাকৃতিক বৈচিত্র্যে ঘেরা গ্রামাঞ্চলে। যা মোট জনসংখ্যার ৭৫ শতাংশ। কিন্তু এই অঞ্চল কিংবা কোটি কোটি মানুষ যুগের পর যুগ ছিলো উন্নয়ন ও নাগরিক সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত। সেই ধারাবাহিকতার পরিবর্তন করতে নানান পরিকল্পনা শুরু হয়েছে সাম্প্রতিক সময়ে। বিশেষ করে বিগত এক দশকে গ্রামীণ জনপদের সার্বিক চিত্র পাল্টানোর লক্ষ্যে কিছু দৃশ্যমান কর্মকান্ড সংঘটিত হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে গ্রামাঞ্চলে প্রায় ৯১ ভাগ মানুষ বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হয়েছে; ১৪ শতাংশ মানুষ ব্যবহার করছে সৌরবিদ্যুৎ। শিক্ষার হার এখন ৭৩ শতাংশের ওপরে। যোগাযোগ অবকাঠামো ব্যাপকভাবে এগিয়ে গেছে। চিকিৎসা সুবিধাও বৃদ্ধি পেয়েছে। সর্বোপরি গ্রামীণ কৃষিতে এসেছে যুগান্তকারী সাফল্য।
কথায় বলে, গ্রাম আল্লাহর সৃষ্টি আর শহর মানুষের সৃষ্টি। কিন্তু প্রতিনিয়ত এই মানুষের তৈরি শহরের চাকচিক্য জৌলুস বাড়বে আর প্রকৃতির তৈরি গ্রাম থাকবে অন্ধকারে তা হবে না। তাই গ্রাম উন্নয়নের যে প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে, তা সফলভাবে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার মাধ্যমে গ্রামের আকর্ষণ বাড়িয়ে তুলতে হবে; ঠেকাতে হবে শহরমুখী জন¯্রােত। কারণ নানা কারণে, কখনও প্রয়োজনে-অপ্রয়োজনে মানুষ চলে যাচ্ছে শহরে। কর্মসংস্থান, সুচিকিৎসা, শিক্ষা, আবাসন, সামাজিক নিরাপত্তা ইত্যাদি মৌলিক বিষয়গুলোর ব্যাপারে নিশ্চয়তা পেলে মানুষ আর শহরে যাবে না। আসল কথা হলো, বাঙালি সংস্কৃতির গ্রামীণ চিরায়ত সৌন্দর্য ও প্রাকৃতিক চাহিদাগুলোকে অক্ষুণœ রেখেই বাস্তবায়ন করতে হবে সব পরিকল্পনা।

 

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT