প্রথম পাতা

কৃষি জমির ওপর কোনো শিল্প প্রতিষ্ঠান নয় : প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত হয়েছে: ০৭-১১-২০১৯ ইং ০৩:২২:৫৬ | সংবাদটি ৮০ বার পঠিত

 বাংলাদেশের উন্নয়ন এখনও অনেকাংশে কৃষির ওপর নির্ভরশীল উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আবাদী জমির ক্ষতিসাধন করে যত্রতত্র শিল্প প্রতিষ্ঠান গড়ে না তোলার আহ্বান পুনর্ব্যক্ত করেছেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা দেশের উন্নয়নের জন্য শিল্পায়নে যাব। কিন্তু কৃষিকে বাদ দিয়ে নয়। কেননা, আমাদের দেশের উন্নয়ন এখনও অনেকাংশে কৃষির ওপর নির্ভরশীল।’
তিনি বলেন, ‘তিন ফসলী জমিতেতো ইন্ডাস্ট্রি করতেই পারবে না। আর যদি এক ফসলী জমি, যেখানে চাষ হয় না সেখানে হবে। তবে, যত্রতত্র করতে পারবে না।’ প্রধানমন্ত্রী গতকাল বুধবার বেলা ১১টায় রাজধানীর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বাংলাদেশ কৃষকলীগের ১০, জাতীয় কাউন্সিলের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণে একথা বলেন।
তাঁর সরকারের একশ’ বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এটার অর্থ হলো আমাদের কোন কৃষি জমি যাতে নষ্ট না হয়। যেখানে সেখানে যত্রতত্র এটা শিল্প প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলবে, এটা কেউ করতে পারবে না।’
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যারা শিল্প প্রতিষ্ঠান করতে চায় তাঁদেরকে ঐ অর্থনৈতিক অঞ্চলে প্লট বরাদ্দ দেওয়া হবে এবং সব ধরনের সার্ভিস সেখানে দেওয়া হবে। কাজেই তাঁরা সেখানে শিল্প গড়ে তুলবে।’ শেখ হাসিনা বলেন, ‘কৃষি জমি বাঁচাতে হবে। কারণ, ১৬ কোটির ওপর মানুষকে আমাদের খাবার দিতে হবে। অবশ্য আমরা খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করায় এখন পুষ্টির দিকে নজর দিয়েছি। ডিম, মাংস, মিঠা পানির মাছ, তরিতরকারি এবং ধান উৎপাদনে তাঁর সরকারের সাফল্যও এ সময় তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী।
তাঁর সরকারের ‘আমার বাড়ি আমার খামার’ কর্মসূচির উল্লেখ করে যার যার বাড়িকে তার তার খামারে পরিণত করার আহবান জানান শেখ হাসিনা । তিনি বলেন, ‘কেউ বসে থাকবে কেন, সবাই কাজ করবে। যে যেভাবে উৎপাদন করতে চায়, যা উৎপাদন করতে চায়। আমরা সেই সুযোগটা দেব এক টুকরো জমিও অনাবাদী থাকবে না।’
‘অনাচে, কানাচে, ঘরের পাশে, জলা, ডোবা যাই থাকুক এমনকি ছাদের ওপরে পর্যন্ত যেন চাষ হয় এবং ফসল উৎপাদন হয় এবং কৃষকরা ভিটেবাড়িতেও যেন ফসল উৎপাদন করতে পারে সেজন্য আমার বাড়ি আমার খামার প্রকল্পটি আমরা বাস্তবায়ন করে যাচ্ছি’, যোগ করেন তিনি।
এ সময় তাঁর সরকারের পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক করে দেওয়ায় তথ্য তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী উৎপাদিত পণ্য সমবায়ের মাধ্যমে বাজারজাতকরণের উদ্যোগের উল্লেখ করেন। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সম্মেলনে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন।
অন্যান্যের মধ্যে-বাংলাদেশ কৃষক লীগ সভাপতি মোতাহার হোসেন মোল্লা, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শামসুল হক রেজা এবং সহ-সভাপতি শরিফ আশরাফ হোসেন বক্তৃতা করেন। কৃষকলীগের যুগ্ম সম্পাদক সমির চন্দের সঞ্চালনায় সর্ব ভারতীয় কিষাণ সভা’র সাধারণ সম্পাদক অতুল কুমার অঞ্জন ও বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন।
আলোচনা পর্বের আগে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। এর আগে আওয়ামী লীগ সভাপতি বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে সম্মেলনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। এরপর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, চার জাতীয় নেতা, স্বাধীনতা যুদ্ধসহ সকল গণআন্দোলনের শহীদদের স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।
তাঁর সরকার গবেষণার জন্য বাজেট বরাদ্দসহ গবেষণায় অত্যাধিক গুরুত্বারোপ করেছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা ফসল বহুমুখীকরণের অংশ হিসেবে ১০৮ ধরনের উচ্চফলনশীল ধানের জাত আবিষ্কার করেছি। লবণাক্ততা সহিষ্ণু, ক্ষরা সহিষ্ণু এবং বন্যার পানি সহিষ্ণু ধান এবং কৃষিকে যান্ত্রিকিকরণের অংশ হিসেবে ৪৪২ ধরনের কৃষি প্রযুক্তির উদ্ভাবন করেছি।’
দেশের ইউনিয়ন পর্যায়ে ডিজিটাল সেন্টার এবং ইন্টারনেট সেবাকে ছড়িয়ে দেওয়ার মাধ্যমে তাঁর সরকার ডিজিটাল কৃষির প্রবর্তন করেছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সাড়ে ৩ হাজার ইউনিয়নে আমরা পৌঁছে গেছি এবং ইনশাল্লাহ অচিরেই আমাদের সাড়ে ৪ হাজার ইউনিয়নেও ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সেবা পৌঁছে যাবে।’
বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ উৎক্ষেপণ, ই-কৃষি চালু, কৃষকদের জন্য কল সেন্টার চালু, ৪৯৯টি কৃষি তথ্যকেন্দ্র স্থাপন এবং সারাদেশে ৫ হাজার ২৭৫টি ডিজিটাল সেন্টার প্রতিষ্ঠার প্রসঙ্গও উল্লেখ করেন তিনি। তাঁর সরকারের মোবাইল ফোনকে বেসরকারি খাতে উন্মুক্ত করে দেওয়ায় প্রতিযোগিতামূলক স্বল্পমূল্যে কৃষকরা মোবাইল ফোন ক্রয় করে সরকারের বিভিন্ন ডিজিটাল সেবা নিতে পারছে বলেও প্রধানমন্ত্রী উল্লেখ করেন।
বিএনপি সরকারের সময়ে ন্যায্যমূল্যের সারের দাবিতে আন্দোলনরত ১৮ জন কৃষককে হত্যার প্রসঙ্গ টেনে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি’র আমলে ১৮ জন কৃষককে গুলি করে হত্যা করা হলো। তাঁদের অপরাধ তাঁরা চাষ করতে পারছে না, তাই, সার চাইছে। আর আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পরই তাঁর প্রথম মন্ত্রিপরিষদ বৈঠকে সারের দাম কমালো। মোট চার দফা দাম কমিয়েছিল আওয়ামী লীগ।’
‘কেননা আমরা সারে ভতুর্কি দিচ্ছি। উচ্চমূল্যে সার কিনে নি¤œমূল্যে তা কৃষকের কাছে সরবরাহ করছি, ’যোগ করেন তিনি। সরকার প্রধান বলেন, বর্গাচাষিদের জন্য কৃষি ব্যাংকের মাধ্যমে বিনা জামানতে, স্বল্প সুদে কৃষি ঋণ প্রদান চালু করে তাঁর সরকার এবং যার ফল স্বরূপ কৃষির সার্বিক উৎপাদন বৃদ্ধি পায়।
তিনি বলেন, তাঁর সরকার ২০১৯-২০ সালের বাজেটে কৃষি খাতের জন্য ১৪ হাজার ৫৩ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছে, কৃষি প্রণোদনা এবং পুনর্বাসন চালুর অংশ হিসেবে এক হাজার ২৭ কোটি টাকা প্রণোদনা দেয়া হচ্ছে। যার মাধ্যমে ৭৯ লাখ ৯৬ হাজার ২৭৬ জন কৃষক উপকৃত হচ্ছে। তাছাড়া, ২ কোটি ৮ লাখ ১৩ হাজার কৃষকের মাঝে কৃষি উপকরণ কার্ড বিতরণ করা হয়েছে।
কৃষকদের ১০ টাকা মূল্যে ব্যাংক একাউন্ট খোলার সুযোগ করে দিয়েছে তাঁর সরকার, উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ব্যাংক একাউন্টের মাধ্যমে সরাসরি ভর্তুকির টাকা কৃষকদের হাতে পৌঁছে যাচ্ছে। প্রায় এক কোটির ওপর কৃষকদের এই ব্যাংক একাউন্ট খোলারও তথ্য দেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ আজ উন্নয়নশীল দেশ। আমাদের প্রবৃদ্ধি আজ ৮ দশমিক ১৩। এর পিছনে সবচেয়ে বড় অবদান কৃষকের।
তিনি বলেন, হাওর এলাকার কৃষকরা অকাল বন্যায় প্রায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এ ছাড়া উপকূলীয় এলাকার কৃষকরাও প্রাকৃতিক দুর্যোগে সবকিছু হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে যায়। তাদের জন্য কোনো বীমা ব্যবস্থা চালু করা যায় কি-না সেটাও আমাদের সরকার ভাবছে। বাংলাদেশ প্রতিনিয়ত এগিয়ে যাচ্ছে। এ অর্জন আমাদের ধরে রাখতে হবে।
দেশে কৃষির উন্নয়ন এবং কৃষকের স্বার্থ রক্ষার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭২ সালের ১৯ এপ্রিল বাংলাদেশ কৃষকলীগ প্রতিষ্ঠা করেন। সংগঠনটির সর্বশেষ কেন্দ্রীয় সম্মেলন হয় ২০১২ সালের ১৯ জুলাই।

শেয়ার করুন
প্রথম পাতা এর আরো সংবাদ
  • অপপ্রচারে কান না দিতে প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান
  • প্রাথমিকের পরীক্ষায় ‘বহিষ্কার’ কেন অবৈধ নয়: হাই কোর্ট
  • জকিগঞ্জ মুক্ত দিবস পালিত মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি স্তম্ভ স্থাপন করুন
  • শাবি’র হল বন্ধের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ
  • এ.এস.আই জাহাঙ্গীরসহ ৪জন ৩ দিনের রিমান্ডে
  • জেলা পুলিশেরজেলা পুলিশের ব্রিফিং
  • তিন বাহিনীর প্রধানের রাষ্ট্রপতির সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ
  • সিলেটে শিথিল পরিবহন ধর্মঘটেজনদুর্ভোগ
  • লুকিয়েও শেষ রক্ষা হলোনা বানরটির
  • গোলাপী বলে দিবা-রাত্রির ঐতিহাসিক টেস্ট ম্যাচ খেলবে ইন্ডিয়া- বাংলাদেশ
  • অস্ত্রের পর এবার মোবাইল সেট চোরাচালানের নিরাপদ রুট
  • সিলেটে নানা আয়োজনে সশস্ত্র বাহিনী দিবস উদযাপিত
  • জকিগঞ্জে যুবককে বেঁধে ঝুলিয়ে নির্যাতন
  • ছবি
  • নগরীতে ৭শ’ মোবাইল সেট ছিনতাইয়ে জড়িত পুলিশ
  • পরিকল্পনামন্ত্রী জগন্নাথপুর আসছেন আজ
  • সাত দিনে আদায় ৪৫ কোটি ৭৮ লাখ টাকা
  • দেশের প্রথম মুক্তাঞ্চল জকিগঞ্জ মুক্তদিবস আজ
  • জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি গঠন
  • আলোচিত সাবেক ছাত্রলীগ নেতা হিরণ মাহমুদ নিপু গ্রেফতার
  • Developed by: Sparkle IT