প্রথম পাতা ডিজিটাল সিলেট জেলার উদ্বোধন করলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও জয়ের জন্য আমরা গর্বিত

স্টাফ রিপোর্টার প্রকাশিত হয়েছে: ১০-১১-২০১৯ ইং ০২:২২:৪৯ | সংবাদটি ১৮৪ বার পঠিত


জমির পর্চা থেকে বাগান করার সেবায় ‘৩৩৩’

 সিলেট-১ আসনের সংসদ সদস্য, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেন বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তথ্য প্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের কল্যাণে সারাদেশই আজ ডিজিটাল হয়ে গেছে। এজন্য আমরা গর্বিত। অথচ, ২০০৯ সালে সরকার ডিজিটাল বাংলাদেশের ঘোষণা দেয়ার সময় অনেক নেতিবাচক কথা শোনা গিয়েছিল।
গতকাল শনিবার ডিজিটাল সিলেট বিভাগের অংশ হিসেবে ‘ডিজিটাল সিলেট জেলার’ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ও উদ্বোধকের বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। দেশের প্রথম ডিজিটাল বিভাগ হিসেবে পুণ্যভূমি সিলেটকে নির্বাচন করায় তিনি প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান।
সিলেটের জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলামের সভাপতিত্ব অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার মো. মোস্তাফিজুর রহমান পিএএ, সিলেট রেঞ্জের ডিআইজি কামরুল আহসান, সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কমিশনার পরিতোষ ঘোষ।
‘ডিজিটাল সিলেট’ এর আওতায় সিলেটবাসী ৩৩৩ কল সেন্টারের মাধ্যমে অনলাইনে জমির পর্চা, বিভিন্ন ধরণের লাইসেন্স প্রাপ্তি, ই-নামজারি, এলএ মামলা, সামাজিক নিরাপত্তার সেবা সমূহ, নগর কৃষিকার্যক্রমসহ ৫০টিরও বেশি সেবা পাবেন। ৩৩৩ এ কল করে যেকোন আবেদন করা যাবে এবং আবেদনটি কোথায় আছে সেবা গ্রহণকারী তা জানতে পারবেন। অনুষ্ঠানে একজন ব্যক্তি ৩৩৩ এ ফোন করে তার জমির পর্চার আবেদন করেন।
অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. আসলাম উদ্দিনের পরিচালনায় সকাল ১০টায় নগরীর রিকাবীবাজারস্থ কবি নজরুল অডিটোরিয়ামে আয়োজিত অনুষ্ঠানে ডিজিটাল সেবা প্রাপ্তির বিভিন্ন বিষয়ে বক্তব্য রাখেন এটুআই এর উপ সচিব আশরাফুল আলম ও খন্দকার শাহনুর ছাব্বির। কল সেন্টার ‘৩৩৩’ এর বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা সম্পর্কে বলেন, ভার্চুয়াল রেকর্ড রুম করা হয়েছে। আবেদন করার সাথে সাথে গ্রাহকের মোবাইলে ম্যাসেজ আসবে। তিনি এর মাধ্যমে দেখতে পারবেন তার আবেদনটি কোন পর্যায়ে আছে এবং কোনদিন তাকে সরবরাহ করা হবে। শুধু অফিসই নয়, সিলেট নগরবাসী ছাদ বাগান করতে চাইলে ৩৩৩ এ কল করে পরামর্শ, উপকরণ, গাছ, শ্রমিক ও কৃষি কর্মকর্তাদের সেবা বাসায় বসে পাবেন। যারা ইন্টারনেট ব্যবহার করতে পারেন না বা ইন্টারনেট নেই-তাদের কথা বিবেচনা করে এই নতুন সেবা চালু করা হয়েছে বলে জানান তারা।
ডিজিটাল বাংলাদেশ এখন বাস্তবতা উল্লেখ করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, মানুষের কল্যাণই শেখ হাসিনার সরকারের একমাত্র লক্ষ্য। সেজন্য জনগণের ঘরে সেবা পৌঁছে দেয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। যেকোন প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে ৩৩৩ এ কল করলেই তিনি এসব সেবা পাবেন। তিনি বলেন, এখন থেকে সিলেটের মানুষ সকল ডিজিটাল সেবা পাবেন। কোন কাজের জন্য তাকে অফিসে আসতে হবে না। এজন্য শুধু ৩৩৩ নম্বরে কল করলেই পাওয়া যাবে সেবা। সরকারের ডিজিটালাইজেশনের মূল কথা (টিসিভি) সময়, খরচ ও ভিজিট বা ভোগান্তি হ্রাস করা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ডিজিটাল পদ্ধতিতে শুধু ভোগান্তি হ্রাস এবং কাজ দ্রুতই হয় না, ডিজিটালাইজেশন সাশ্রয়ী। কোন কোন ক্ষেত্রে ৮০/৮৭ ভাগ সাশ্রয় পাওয়া গেছে বলে জানান তিনি।
দালালের দিন শেষ উল্লেখ করে তিনি বলেন, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ‘দূতাবাস’ নামের একটি অ্যাপস তৈরি করেছে। এখন পাসপোর্ট, সার্টিফিকেট, অনুমোদনসহ যেকোন কাজে মানুষকে আর দূতাবাসে আসতে হবে না। ঘরে বসেই আবেদন করতে পারবেন। তিনি এ ব্যাপারে জনসচেতনতার উপর গুরুত্বারোপ করে বলেন, সেবা কিভাবে নিতে হবে জানতে হবে। সেবা দাতা ও গ্রহিতা সমান না হলে পুরোপুরি সুফল পাওয়া যাবে না। এ ব্যাপারে প্রচার প্রচারণা ও প্রশিক্ষণের উপর গুরুত্বারোপ করেন তিনি। সিলেটের ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী অত্যন্ত আন্তরিক উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, সিলেটকে দ্রুত ডিজিটালাইজড করতেই প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের এটুআই এর পরিচালককে সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার হিসেবে প্রেরণ করা হয়েছে। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার মো. মোস্তাফিজুর রহমান পিএএ বলেন, ডিজিটালাইজেশনে সিলেটে দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে চাই। গ্রামে বসে শহরের সেবা প্রাপ্তির বিষয়ে সরকারি ঘোষণা এখন পূর্ণতা পেয়েছে। একজন ভিক্ষুক থেকে শুরু করে সমাজের সর্বোচ্চ ব্যক্তি ৩৩৩ এ কল করে সমান সুবিধা পাবেন। তিনি বলেন, ডিজিটালাইজেশন করতে গিয়ে দেখা যায়, সামাজিক নিরাপত্তার আওতায় অনেকে ভুয়া ভাতা নিচ্ছেন-যার সংখ্যা প্রায় ৫ থেকে ১০ ভাগ। ডিজিটাল হওয়ায় এখন আর সেই সুযোগ থাকবে না। সিলেটের বেকার যুবকদের অনলাইন রেজিষ্ট্রেশন চলছে এবং তাদের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে আত্মনির্ভরশীল করে তোলা হবে বলে জানান তিনি। পরে সিলেটে ‘৩৩৩’ এর সেবা সকলের কাছে কিভাবে পৌঁছানো যায় এ ব্যাপারে উন্মুক্ত আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সিলেটের বিভিন্ন উপজেলার উপজেলা চেয়ারম্যান, ইউএনও, সহকারী কমিশনার, ইউনিয়ন চেয়ারম্যান, ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা, বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা, সাংবাদিকসহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ অংশ গ্রহণ করেন।

 

শেয়ার করুন
প্রথম পাতা এর আরো সংবাদ
  • দেশের বিভিন্ন স্থানে দমকা হাওয়াসহ গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টির সম্ভাবনা
  • সংসদের বিশেষ অধিবেশনে বক্তা প্রণব মুখার্জি
  • বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে ডোপটেস্টে বাধ্যতামূলক
  • রিজভীর বিরুদ্ধে হত্যাচেষ্টার মামলা
  • পাপিয়ার বাড়ি থেকে লাখ লাখ টাকা, অস্ত্র উদ্ধার
  • রোহিঙ্গা সঙ্কট মোকাবেলায় বাংলাদেশের ভূমিকার প্রশংসা ইউএনএইচসিআর দূত জোলির
  • জরুরি প্রয়োজন ছাড়া করোনায় আক্রান্ত দেশে ভ্রমণ না করার পরামর্শ
  • সিলেট-লন্ডন সরাসরি ফ্লাইট চালু ডিএফটি রিপোর্টের ওপর ?
  • দেশে লুটপাটের রাজত্ব কায়েম করা হয়েছে
  • শিক্ষার্থীদের যুগোপযোগী শিক্ষায় শিক্ষিত করতে হবে -----পরিবেশমন্ত্রী শাহাব উদ্দিন
  • যুব মহিলা লীগ নেত্রী পাপিয়াকে বহিষ্কার
  • আদালত থেকে ‘সঠিক রায়’ প্রত্যাশা ফখরুলের
  • বুধবারের মধ্যে খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যগত প্রতিবেদন দাখিলে নির্দেশ
  • উন্নয়ন পরিকল্পনা একে অপরের পরিপূরক হতে হবে : প্রধানমন্ত্রী
  • দেশের উন্নয়নকে ত্বরান্বিত করতে কারিগরি শিক্ষার বিকল্প নেই
  • শ্রীরামকৃষ্ণের আবির্ভাব উপলক্ষে রামকৃষ্ণ মিশন আশ্রমে অনুষ্ঠানমালা কাল শুরু
  • সর্বস্তরে বাংলা ভাষা চালুর দাবি
  • মুজিববর্ষে ২শ’ টাকার নোট বাজারে আসছে
  • প্রযুক্তি ভিত্তিক বাংলাদেশ গড়ার অঙ্গীকার প্রধানমন্ত্রীর
  • গ্লোবাল টেররিজম ইনডেক্সে ৬ ধাপ এগিয়েছে বাংলাদেশ
  • Developed by: Sparkle IT