ইতিহাস ও ঐতিহ্য

চৌধূরী শব্দ ও প্রথার ইতিবৃত্ত

দেওয়ান মুফিদ রাজা চৌধূরী প্রকাশিত হয়েছে: ১৩-১১-২০১৯ ইং ০০:৪১:১০ | সংবাদটি ২৩২ বার পঠিত

চৌধূরী শব্দ ও প্রথার ব্যাপারে নানান জনের নানান মত। শব্দটির উৎপত্তি ও প্রথা সম্পর্কে অনেকের সঠিক ধারনা নেই। আমি বেশ কয়েকজনকে শব্দটির বুৎপত্তি গত অর্থ ও প্রথার উৎপত্তি সম্পর্কে বলেছিলাম। কিন্তু কেউই তা প্রকাশ করতে রাজি না। তাই আমি নিজেই লিখছি।
চে ফারসী বর্ণমালার অক্ষর থেকে চৌ-চার ও চৌ থেকে চৌথ শব্দের জন্ম হয়েছে। যার অর্থ এক চতুর্থাংশ অর্থাৎ চার ভাগের একভাগ। তার কারণ মোগল বাদশাহী আমল ছাড়া কোন রাজত্বে এভাবে চৌথ আদায়ের প্রথা ছিল না। এই চৌথ প্রথা বিশেষভাবে মোগল বাদশাহী আমলে প্রচলিত ছিল রাজাদের উপর। ব্রিটিশ সরকারের আমলে চৌথের প্রথা পরিবর্তন হয়ে ব্রিটিশ রাজস্ব বিভাগ হতে নির্ধারিত সদর খাজনা সাব্যস্থ হয়। তাই মোগল বাদশাহী আমলে চৌথ থেকে চৌধূরী উপাধি প্রবর্তন হয়েছে। চৌধূরী অর্থ সামন্ত অর্থাৎ অধীনস্থ রাজা।
বাদশাহী আমলের পূর্বে যে সকল রাজা রাজত্ব করতেন তাদের মধ্যে যারা বাদশার কাছে যুদ্ধে পরাজিত হতেন বা যে সকল রাজারা যুদ্ধ না করে আত্মসমর্পন করতেন, এই সকল রাজার রাজ্যের আয় কত, বাদশার রাজস্ব বিভাগে জানাতে বাদশার রাজস্ব বিভাগ কর্তৃক নির্দেশ দেওয়া হত। এই সকল অধীনস্থ রাজাদের রাজ্যের আয়ের হিসাব পেয়ে এই সকল অধীনস্থ রাজাদের উপর বাদশার রাজস্ব বিভাগ হতে চৌথ অর্থাৎ রাজ্যের আয়ের এক চতুর্থাংশ অর্থাৎ চারভাগের এক ভাগ চৌথ অর্থাৎ কর হিসাবে নির্ধারণ করা হত ও আদায় করা হত।
এই চৌথ আদায় করতে গিয়ে কোন কোন রাজার রাজ্যের আয়ের চার ভাগের এক ভাগ টাকা বা রাজ্যের উৎপন্ন ফসলের চার ভাগের এক ভাগ চৌথ অর্থাৎ কর হিসাবে আদায় করা হত। আবার কোন কোন রাজাদের কাছ থেকে রাজ্যের আয়ের চার ভাগের এক ভাগ চৌথ অর্থাৎ করের পরিবর্তে সমমূল্যের নৌকা-ঘোড়া বা হাতি দেওয়ার আদেশ দেওয়া হত।
যে সকল অধীনস্থ রাজাদের উপর বাদশার আদেশকৃত হুকুম নির্ধারণ করা হত অর্থাৎ যে সকল অধীনস্থ রাজারা বাদশার চৌথ ধুরীণ (ভার বহন করা) অর্থাৎ চৌথের ভার বহন করতেন এই সকল অধীনস্থ রাজাদের চৌধূরী বলা হত অর্থাৎ এই সকল অধীনস্থ রাজাদের উপাধি চৌধূরী ছিল। চৌধূরীদের স্ত্রীকে চৌধূরানী বলা হত। ব্রিটিশ সরকারের একমাত্র উপাধি ছিল বাহাদুর যথা : খান বাহাদুর, রায় বাহাদুর।

 

শেয়ার করুন
ইতিহাস ও ঐতিহ্য এর আরো সংবাদ
  • সুনামগঞ্জের সাচনা: ইতিহাসের আলোকে
  • বদলে গেছে বিয়েশাদীর রীতি
  • স্বতন্ত্র আবাসভূমির আন্দোলন
  • ঐতিহ্যবাহী পালকী
  • স্বতন্ত্র আবাসভূমির আন্দোলন
  • ইতিহাসের আলোকে নবাব সিরাজ উদ-দৌলা
  • ভাদেশ্বর নাছির উদ্দিন উচ্চবিদ্যালয়ের গৌরবোজ্জল শতবর্ষ
  • পুরান পাথরের যুগ থেকে
  • সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৩ বছর
  • চৌধূরী শব্দ ও প্রথার ইতিবৃত্ত
  • ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ
  • ১৩৩ বছরের ঐতিহ্যবাহী সিলেট স্টেশন ক্লাব
  • একাত্তরের শরণার্থী জীবন
  • সিলেটে উর্দু চর্চা
  • মণিপুরী সম্প্রদায় ও তাদের সংস্কৃতি
  • সিলেটে উর্দু চর্চা
  • মোকাম বাড়ি ও হযরত ইসমাইল শাহ (রহ.)
  • সিলেটে উর্দু চর্চা
  • হবিগঞ্জের লোকসাহিত্যে অধুয়া সুন্দরীর উপখ্যান
  • পার্বত্য সংকটের মূল্যায়ন
  • Developed by: Sparkle IT