প্রথম পাতা

মেজর জেনারেল এমএ রবের ৪৩তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

মনসুর উদ্দিন আহমেদ ইকবাল, হবিগঞ্জ থেকে প্রকাশিত হয়েছে: ১৪-১১-২০১৯ ইং ০২:০৭:০৪ | সংবাদটি ১০৪ বার পঠিত

আজ বৃহস্পতিবার ১৪ নভেম্বর হবিগঞ্জের কৃতি সন্তান ও মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর প্রথম চীফ অব স্টাফ মরহুম মেজর জেনারেল মো. আব্দুর রবের ৪৩তম মৃত্যুবার্ষিকী। ১৯৭৫সালের ১৪ নভেম্বর ৫৬বছর বয়সে রক্তশুন্যতা জনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে ঢাকায় সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে তিনি ইন্তেকাল করেন। মৃত্যুর পর তাকে হবিগঞ্জে খোয়াই নদীর তীরে উমেদনগর গ্রামের গোরস্তানে দাফন করা হয়। চিরকুমার এই স্বাধীনতা সংগ্রামী ১৯১৯ সালে বানিয়াচঙ্গ উপজেলার খাগাউড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৩৯ সালে সিলেট এমসি কলেজ হতে স্নাতক ডিগ্রী লাভের পর তিনি ভারতের আলীগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয় হতে এম এ ডিগ্রী লাভ করে তদানীন্তন বৃটিশ-ভারত সেনাবাহিনীতে যোগ দেন। ১৯৪৪ সালে সেনাবাহিনীতে কমিশন লাভের পর দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধকালীন সময়ে বার্মা, মালয়, সুমাত্রা, জাভা এবং পরবর্তীকালে ১৯৬৫ সালে কাশ্মীর সীমান্তে যুদ্ধ ও প্রতিরক্ষায় সক্রিয় অংশগ্রহণ করেন। পাকিস্তান সেনাবাহিনীতে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালনের পর লেফটেন্যান্ট কর্ণেল পদে থাকাকালে ১৯৭০সালে অবসর গ্রহণের পর রাজনীতিতে যোগ দেন। একই বছর তিনি আওয়ামী লীগ প্রার্থী হিসেবে বানিয়াচং-নবীগঞ্জ ও আজমিরীগঞ্জ নির্বাচনী এলাকা হতে জাতীয় পরিষদ সদস্য নির্বাচিত হন। মুক্তিযুদ্ধ শুরু হলে তিনি বৃহত্তর সিলেট অঞ্চলে প্রতিরোধ সংগ্রামে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন।
১৯৭১ সালের এপ্রিল মাসে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার গঠিত হওয়ার পর তিনি বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর চীফ অব স্টাফ পদে নিযুক্ত হন এবং প্রধান সেনাপতি জেনারেল এমএজি ওসমানীর সহকারী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। যুদ্ধের শেষ পর্যায়ে জেনারেল ওসমানীর হেলিকপ্টার লক্ষ্য করে মেশিনগানের গুলি বর্ষিত হলে তার সঙ্গী মেজর জেনারেল আব্দুর রব গুরুতর আহত হন। চরম বিপজ্জনক পরিস্থিতি ও বিপত্তির মুখে দায়িত্ব পালনে অসাধারণ শৌর্য্যবীর্যের জন্য মুক্তিযুদ্ধের পর সরকার তাকে ‘বীরউত্তম’ খেতাব দান করেন। ১৯৭২ সালের ৭ এপ্রিল পর্যন্ত তিনি বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর চীফ অব স্টাফ পদে বহাল ছিলেন। অবসর গ্রহণ তালিকা সংশোধনের পর তাকে অবৈতনিক মেজর জেনারেল পদ মর্যাদা দান করা হয়। স্বাধীনতা পরবর্তীকালে মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্ট গঠন ও পরিচালনার দায়িত্ব তিনি সফলভাবে পালন করেন। এই ট্রাস্ট এবং এর সুফল প্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধাগণ তার নিরলস ও নিঃস্বার্থ প্রচেষ্টার কাছে ঋণী।

 

শেয়ার করুন
প্রথম পাতা এর আরো সংবাদ
  • জাতিসংঘের আদালতে রোহিঙ্গা গণহত্যার শুনানি শুরু
  • তৃণমূল নেতা কর্মীরা আওয়ামী লীগের প্রাণ : ওবায়দুল কাদের
  • ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়েছে বিএনপি
  • বিজয়ের মাস
  • ‘দেশের চালিকা শক্তির মূল উৎস রাজস্ব আয়’
  • ‘জয় বাংলা’ ১৬ ডিসেম্বর থেকে জাতীয় স্লোগান
  • মানবাধিকার সম্পর্কে সচেতনতা সৃষ্টিতে গুরুত্বারোপ প্রধানমন্ত্রীর
  • ৪০টি মোটরসাইকেলের বিরুদ্ধে মামলা ॥ ৩টি ডাম্পিংয়ে
  • ‘বয়কট মিয়ানমার ক্যাম্পেইন’ শুরু
  • হাকিমপুরী জর্দা বাজার থেকে তুলে নেওয়ার নির্দেশ
  • পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় দিনে সরকারি, রাতে বেসরকারি : রাষ্ট্রপতি
  • অবৈধ সম্পদ যেখানেই থাকুক ভোগ করতে দেব না: দুদক চেয়ারম্যান
  • বিজয়ের মাস
  • সতর্ক থাকুন যাতে কোন শিশু, নারী নির্যাতিত না হয় : প্রধানমন্ত্রী
  • বিভাগীয় কমিশনারের সাথে সিলেট চেম্বার নেতৃবৃন্দের মতবিনিময়
  • কয়েক বছরের মধ্যেই নগরীর বস্তিসমূহের আধুনিকায়ন হবে
  • নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও বেগম রোকেয়া দিবস আজ
  • সিলেটের নারীদের এমনভাবে এগিয়ে যেতে হবে যাতে অন্য বিভাগের জন্য অকুরণীয় হয় ....... এম. কাজী এমদাদুল ইসলাম
  • গোয়াইনঘাটে স্ত্রী হত্যায় স্বামী জেলে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে পিতার মৃত্যু
  • দিল্লিতে কারখানায় অগ্নিকান্ডে ৪৩ জনের মৃত্যু
  • Developed by: Sparkle IT