ধর্ম ও জীবন

  উম্মাহাতুল মুমিনীন

এম সোলায়মান খান প্রকাশিত হয়েছে: ১৫-১১-২০১৯ ইং ০১:০৭:৩৩ | সংবাদটি ২০৯ বার পঠিত

রাসুল (সা.) এর মহিয়সী স্ত্রীগণকে উম্মাহাতুল মুমিনীন। অর্থাৎ, মুসলমানদের মাতা হিসাবে অভিহিত করা হয়। সুরা আহযাবের ৬ নম্বর আয়াতÑ ‘নবী মুমীনদের নিকট তাদের নিজেদের অপেক্ষা অধিক ঘনিষ্ট এবং তার স্ত্রীগণ তাদের মাতা ’। উম্মুল মুমিনীনদের মধ্যে ৬ জন কোরাইশ বংশের বিভিন্ন গোত্রের, ৪ জন বিভিন্ন আরব গোত্রের, ১জন ইহুদী পরিবারের এবং কারো কারো মতে ১জন মিশরীয় কপ্টিক ছিলেন। তিন জন ছিলেন বদর ও ওহুদ যুদ্ধে শহীদ সাহাবীেেদর বিধবা স্ত্রী, অন্যরা তালাকপ্রাপ্তা বিধবা বা যুদ্ধ বন্দিনী। কেবল একজন ছিলেন কুমারী। জীবনের শেষ তিন বছরে মহানবী কোনো বিবাহ করেন নি। ৫৩ থেকে ৬০ বছর বয়সে মহানবীর বিয়ের উদ্দেশ্য ছিলো বিভিন্ন গোত্রের সঙ্গে মৈত্রী স্থাপন করে বৈরিতা অবসান করা অথবা যুদ্ধে নিহত ঘনিষ্ট সাহাবীর অসহায় আশ্রয়হীনা বিধবা স্ত্রীকে আশ্রয় ও নিরাপত্তা দান করা। (জন এল ইস্পোসিটো, ইসলাম দি স্ট্রেট পাথ পৃ.-১৯-২০)।
মহানবীর বিয়ের ফলশ্রুতিতে বনু মাখযুম, বনু আমর, বনু হিলাল, বনু তাঈম, বনু মোস্তালিক, বনু উমাইয়া, বনু আদ্দি, বনু নাযির প্রভৃতি গোত্র মুসলমানদের সঙ্গে বৈরীতা হ্রাস করে, শান্তির জন্যে সন্ধি স্থাপন করে ইসলাম কবুল করে ইসলামের প্রচার ও প্রসারে ভূমিকা রাখে।
উম্মুল মুমিনীনদের সংক্ষিপ্ত পরিচয় :
১. খাদিজা বিনতে খুয়ালিদ (রা.) প্রথম স্ত্রী। প্রথম মুসলিম। পূর্বে দুই বার বিধবা হন। কয়েকটি সন্তান ছিলো। রাসুল (সা.) তার তৃতীয় স্বামী। বিবাহের সময় তার বয়স ছিল ৪০ বছর আর রাসুল (সা.) এর ২৫ বছর। তিনি রাসুল (সা.) এর দুই পুত্র চার কন্যার জননী। তিনি ৬৫ বছর বেঁচে থাকা অবধি রাসুল (সা.) দ্বিতীয় বিয়ে করেননি। রাসুল (সা.) বলেন ‘আল্লাহপাক খাদিজার ভালোবাসা আমার অন্তরে গেঁথে দিয়েছেন’। (সহিহ মুসলিম- ৪৬/৬০৬০)।
তাদের দু’জনের নিবিড় ভালোবাসা আর নিখুঁত প্রেম প্রীতি এই একগামী বৈবাহিক জীবন সুদীর্ঘ করেছে। (ল্যাসলী হেজেলটন দি ফার্স্ট মুসলিম পৃ.- ৬৪)
২. সাওদা বিনতে যাময়া (রা.) বনু আমর গোত্র। প্রাথমিক পর্যায়ে ইসলাম গ্রহণকারী। ইথিওপিয়ায় হিজরত করেন। এক সন্তান নিয়ে বিধবা হন। মুসলমান হওয়ায় পরিবার থেকে অবহেলিতা বিতাড়িতা পরিত্যাক্তা। ৫০ বছর বয়স্কা আশ্রয়হীনা সাওদা (রা.) কে রাসুল (সা.) স্ত্রীর মর্যাদা দিয়ে সম্মানীতা করেন। তিনি ৫টি হাদিস বর্ণনা করেন।
৩. আয়েশা বিনতে আবু বকর (রা.), রাসুল (সা.) এর সঙ্গে আত্মীয়তার বন্ধন সুদৃঢ় করতে আবু বকর (রা.) এই বিয়ে দেন। তিনি একমাত্র কুমারী উম্মুল মুমিনীন। তিনি অন্যদের তুলনায় সর্বাধিক মেধাবী, জ্ঞানী, বুদ্ধিমতী, অসাধারণ প্রাণবন্ত প্রত্যুৎপন্নমতি ছিলেন। তিনি কুরআনে হাফিজ ছিলেন। প্রখ্যাত সাহাবীরা কোনো বিষয়ে আটকে গেলে তার নিকট থেকে সমাধান নিতেন (তিরমিযি হা /৩৮৮৩)।
তার বর্ণিত হাদিস সংখ্যা ২২১০। তিনি চতুর্থ মুখছিরীন। মুখছিরীন মানে সর্বাধিক হাদিস বর্ণনা কারী। অন্য তিন মুখছিরীন হলেন আবু হুরায়রা (রা.)- ৫৩৭৪, আব্দুল্লাহ ইবনে ওমর (রা.)- ২৬৩০, আনাস বিন মালিক (রা.)- ২২৮৬। তার বর্ণিত কিছু হাদিসে নারীদের একান্ত বিষয় আছে যা অন্য কারো বর্ণিত হাদিসে নাই। তিনি কিছু আয়াত নাযিলের চাক্ষুস সাক্ষী ছিলেন ফলে আয়াতের শানে নযুল ও ব্যাখ্যা সুস্পষ্টভাবে করেছিলেন। তার কোলে মাথা রেখে রাসুল (সা.) ইন্তেকাল করেন এবং তার ঘরেই দাফন করা হয়। তিনি আধুুনিক কালের মুসলিম মহিলাদের রোল মডেল। (দি গার্ডিয়ান ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১২)
৪. হাফসা বিনতে ওমর (রা.)। দ্বিতীয় খলিফা ওমর (রা.) এর কন্যা। তার প্রথম স্বামী বদরী সাহাবী। ওহুদ যুদ্ধে শহীদ হন। ওমর (রা.) অকাল বিধবা কন্যার বিয়ের জন্যে কয়েকজনকে প্রস্তাব দিয়ে বিফল হন। রাসুল (সা.) তাকে উম্মুল মুমিনীনের মর্যাদা দিয়ে ওমর (রা.) এর সঙ্গে বন্ধন সুদৃঢ় করেন। আরবি লিখতে ও পড়তে জানা কুরআনে হাফেজ হাফসা (রা.) এর নিকট প্রথম মুসাফ (প্রাথমিক লিখিত কুরআন) সংরক্ষিত ছিল। তার বর্ণিত হাদীস ৬০।
৫. যায়নাব বিনতে খুজায়মা (রা.)। তিনি কোরাইশ গোত্র বহির্ভুত প্রথম স্ত্রী। তার গোত্র বেদুঈন আমর হিলাল। তার দ্বিতীয় স্বামী প্রথম বদরী শহীদ (ইবনে ইসহাক পৃ.- ৫০৬)।
পর পর দুই স্বামী হারিয়ে দিশাহারা যায়নাব (রা.) রাসুল (সা.) এর সাথে বিবাহিতা হন। বিয়ের আট মাসের মাথায় ইন্তেকাল করেন। তিনি কোনো হাদিস বর্ণনা করেননি। মুক্ত হস্তে দান খয়রাতের কারণে তাকে উম্মুল মাসাকীন বা গরীবের মাতা বলা হতো।
৬. উম্মে সালামা (রা.)। বনু মাখযুম গোত্র। আবু জেহেলের চাচাতো বোন। প্রথম ১০ মুসলিমের একজন। প্যাগান কোরাইশদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে মক্কার বিশাল ধন সম্পত্তি, আপনজন, উচ্চ সামাজিক মর্যাদা সবকিছু ফেলে স্বামীসহ ইথিওপিয়ায় হিজরত করেন। তার স্বামী বদরী সাহাবী। ওহুদ যুদ্ধে শহীদ হন। দুই পুত্র ও দুই কন্যা নিয়ে রাসুল (সা.) এর সঙ্গে বিবাহিতা হন। হুদায়বিয়া সন্ধির জটিল সংকটময় মূহুর্তে তার চমকপ্রদ পরামর্শ সংক্ষিপ্ত বিরোধীতার অবসান ঘটায়। (বার্নাবী রজারসন, পৃ. ২০৯)।
আহলে বাইত সম্পর্কিত ৩৩/৩৩ আয়াতটি তার গৃহে অবতীর্ণ হয়। তিনি বিখ্যাত সেনাপতি খালিদ বিন ওয়ালিদের খালা। তার বিয়ের পর খালিদ বিন ওয়ালিদ কবি আমর ইবনুল আস ও কাবার চাবি রক্ষক ওসমান বিন তালহা এক সঙ্গে মদিনায় গিয়ে ইসলাম কবুল করেন। মক্কার এই তিন দিকপাল মুসলিম হওয়ায় কোরাইশদের মেরুদন্ড ভেঙ্গে যায়। তিনি কুরআনে হাফেজ ছিলেন। তার বর্ণিত হাদিস ৩৭৮।
৭. যায়নাব বিনতে জাহাশ (রা.)। বনু আসাদ গোত্র। রাসুল (সা.) এর ফুফাতো বোন। সাহাবী যায়েদ ইবনে হারেছা (রা.) এর তালাকপ্রাপ্তা স্ত্রী। তার বর্ণিত হাদিস ১১।
৮. জুওয়াইরিয়া বিনতে হারিছ (রা.)। বনু মোস্তালিক গোত্রের দলপতির বিধবা কন্যা। রাসুল (সা.) এর সঙ্গে বিয়ের ফলে নতুন আত্মীয়তার সুবাদে ছয় শতাধিক যুদ্ধবন্ধী বনু মোস্তালিক মুক্তি পায়। এই অভাবনীয় মহানুভবতায় দুর্ধর্ষ বেদুঈন যোদ্ধা বনু মোস্তালিক ও তার মিত্রদের সবাই মুসলমান হয়ে যায়। (আলফ্রেড গীয়োম পৃ.-৪৯২)। তার বর্ণিত হাদীস ৭।
৯. উম্মে হাবীবা (রা.)। গোত্র উমাইয়া। পিতা আবু সুফিয়ান (রা.)। ভাই প্রথম উমাইয়া খলিফা মুয়াবিয়া (রা.)। পিতার নিষেধ ও হুমকী উপেক্ষা করে প্রথম দিকে ইসলাম গ্রহণ করেন। স্বামী সহ ইথিওপিয়ায় হিজরত করেন। স্বামীর মৃত্যু হলে এক সন্তান সহ রাসুলের সঙ্গে বিবাহিতা হন। দুশমনের সঙ্গে আপন মেয়ের বিয়ের খবর শুনে আবু সুফিয়ান একটি আরবি প্রবচন আবৃতি করেন। যার অর্থ কনে উপযুক্ত বর পেয়েছে। অর্থাৎ, বিয়েটি রাজযোটক হয়েছে। (ইবনে আতির আল তারিখ পৃ.-৩১৭)। উম্মে হাবীবা (রা.) রাসুল (সা.) এর মান মর্যাদা সম্পর্কে প্রখরভাবে সচেতন ছিলেন। পিতা আবু সুফিয়ান একবার মদিনায় তার গৃহে আসেন। তিনি রাসুলের বিছানায় বসতে উদ্যত হলে উম্মে হাবীবা (রা.) বিছানা গুটিয়ে নেন। প্রবল প্রতাপশালী আবু সুফিয়ান হতবাক হয়ে এই অদ্ভুত কান্ডের কারণ জানতে চান। কন্যা তার পিতাকে বলেন এটা রাসুল (সা.) এর বিছানা। আপনি এখনও পৌত্তলিক। আমি চাইনা কোনো প্যাগান পৌত্তলিক রাসুল (সা.) এর বিছানায় উপবেশন করুক। (রাহীকুল মাখতুম পৃ.- ৪৫৪)। তার বর্ণিত হাদিস ৬৫।
১০. সাফিয়া বিনতে হুয়াই (রা.)। ইহুদী বনু নাযির গোত্র প্রধানের কন্যা। প্রথম স্বামীর সঙ্গে বিচ্ছেদ। দ্বিতীয় স্বামী যুদ্ধে নিহত। রাসুল (সা.) যুদ্ধ বন্দিনী ইহুদী কন্যাকে দুইটি প্রস্তাব দেন। নিজ গোত্রে নিরাপদে স্বাধীনভাবে ফিরে যাওয়া। অথবা ইসলাম কবুল করে তার স্ত্রীর মর্যাদা লাভ করা। তিনি বলেন আমি আল্লাহ ও তার রাসুলকে পছন্দ করলাম (মার্টিন লীংগস পৃ.-২৬৯)। এই বিয়ে ইহুদী গোত্রের প্রতি মহানবীর মিত্রতা ও শিষ্টাচারের অংশ। (মন্টোগোমারী ওয়াট, পৃ.-১৯৫)।
সাফিয়া (রা.) মহানবী সম্পর্কে বলেন ‘আমি রাসুল (সা.) এর মতো উত্তম স্বভাবের কাউকে এই জীবনে দেখিনি। (মুসনাদে আবি আলা ১৩/৩৮)। ইবনে কাসীর বলেন ‘ইবাদত ধার্মিকতা ধর্মনিষ্ঠা সংযম দানশীলতায় তিনি ছিলেন অন্যতম সেরা নারী। (আল বিদায়া আন নিহায়া ৫/৪৭)। রাসুল (সা.) এর অন্তিম অসুস্থতার সময় তার কষ্ট দেখে তিনি ব্যথিত হয়ে বলেন, ‘হে আল্লাহর রাসুল! আপনার কষ্টগুলি যদি আমার হতো। রাসুল (সা.) তখন উপস্থিত সকল স্ত্রীগণকে বলেন এটা নিছক কথার কথা নয়। সে অন্তর থেকে সত্য কথা বলেছে। (ইবনে সাদ তাবাক্কাত ৮/১২৮)।
রাসুল (সা.) তার উচ্চ মর্যাদা সম্পর্কে বলেন সবাইকে জানিয়ে দিও তোমার স্বামী নবী মুহাম্মদ পিতা নবী হারুন চাচা নবী মুসা অর্থাৎ, তিনি তিনজন নবী রাসুলের সঙ্গে সম্পর্কিত। (তিরমিযি ১/৪৬/৩৮৯৪)। তার বর্ণিত হাদিস ১০ টি।
১১. মায়মুনা বিনতে আল হারিছ (রা.)। বনু হিলাল গোত্র। প্রথম স্বামী থেকে তালাকপ্রাপ্তা। দ্বিতীয় স্বামী অসুখে মৃত। একই সঙ্গে তালাকপ্রাপ্তা বিধবা নারীদেরকে নিচু চোখে দেখা হতো। তার ভগ্নিপতি আব্বাস (রা.) এর অনুরোধে রাসুল (সা.) তাকে বিবাহ করেন। তার বর্ণিত হাদীস ৭৬।
উম্মুল মুমিনীনগণ আমাদের মাতা। তারা সকল সমালোচনা মুক্ত। সুরা আহযাবের ৬ নম্বর আয়াত অনুযায়ী সত্যিকারের মুমীন সেই ব্যক্তি যে তার জীবনের চাইতে রাসুল (সা.) কে বেশী ভালোবাসে এবং উম্মুল মুমিনীনগণকে আপন মায়ের মর্যাদায় সম্মান প্রদর্শন করে।

শেয়ার করুন
ধর্ম ও জীবন এর আরো সংবাদ
  • হাদীস সংগ্রহকারী ইমাম মুসলিম ও তিরমিজি
  • নবীজিকে ভালোবাসার দাবী সমূহ
  • বড়পীর আব্দুল কাদির জিলানী (র:)
  • জৈন্তা অঞ্চলে হিফজুল কোরআন পরিক্রমা
  • তাফসিরুল কোরআন
  • হাদীস সংগ্রাহক ইমাম বুখারী (রহ.)
  • জৈন্তা অঞ্চলে হিফজুল কোরআন পরিক্রমা
  • কুরআন চর্চা অপরিহার্য  কেন 
  • একদিন নবীজির বাড়িতে
  • বেহেস্তের সিঁড়ি নামাজ
  • দেন মোহর নিয়ে যত কথা
  • তাফসিরুল কোরআন
  • মানব সভ্যতায় মহানবীর অবদান
  • মানব সভ্যতায় মুহাম্মদ (সা.) এর অবদান
  • দেনমোহর নিয়ে যতো কথা
  •   উম্মাহাতুল মুমিনীন
  • ইসলাম শান্তি ও সম্প্রীতির ধর্ম
  • তাফসিরুল কোরআন
  • রাসূল (সা.) এর প্রতি মুহব্বত ও আহলে বাইত প্রসঙ্গ
  • মহানবীর প্রতি ভালোবাসা
  • Developed by: Sparkle IT