সাহিত্য

রবীন্দ্রপত্র, প্রাপক সিলেটীরা

দুলাল শর্মা চৌধুরী প্রকাশিত হয়েছে: ১৭-১১-২০১৯ ইং ০০:৩০:৫০ | সংবাদটি ১১২ বার পঠিত

বাংলা সাহিত্যের বিভিন্ন বিষয়ে যে সব লেখকরা সিলেটে বসে নিরলসভাবে গবেষণাধর্মী কাজ করে যাচ্ছেন, তাদের মধ্যে অন্যতম নামটি হল অধ্যাপক (অব:) নৃপেন্দ্র লাল দাশ মহাশয়। তিনি একাধারে গবেষক, কবি, প্রাবন্ধিক, সমালোচক এবং সম্পাদক। গবেষক নৃপেন্দ্রলাল দাশ ইতিমধ্যেই দেশ-বিদেশের বড় বড় লাইব্রেরীতে তার বই বিক্রি ও সুধীজনের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে সক্ষম হয়েছেন। শুধু তাই নয় বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়, সাহিত্য সেমিনারে তার রসপূর্ণ বক্তব্য সুধীজনের অকুন্ঠ প্রশংসা কুড়িয়েছেন। তিনি যে একজন বাংলা সাহিত্যের সুপন্ডিত তা নির্দ্বিধায় বলা যায়। তবে প্রধানত তিনি গবেষক ও কবি হিসেবে বেশি পরিচিত। ইতিমধ্যেই তার ১৫টি কবিতার বই প্রকাশিত হয়েছে।
তিনটি উপন্যাস লিখেছেন। গবেষণামূলক কাজ করেছেন হাসন রাজা, রাধারমণ ও রবীন্দ্রনাথ বিষয়ে। দুটি বৃহৎ বই সম্পাদনা করেছেন, নিকুঞ্জ বিহারী গোস্বামী ও সুহাসিনী দাশ (মাসীমা)কে নিয়ে। নৃপেন্দ্রলাল দাশ সম্পর্কে প্রকাশিত হয়েছে তিনটি বই। বই তিনটি হল- ভাসো পঞ্চাশের ভেলা, ভাবে বিভাবে, বিচার বান্দশ। সূজন ও নন্দন নামে নৃপেন্দ্রলাল দাশের জীবনী সম্পর্কে বই লিখেছেন রব্বানী চৌধুরী। সিলেটে রবীন্দ্রনাথ বিষয়ে তার দীর্ঘ সাক্ষাৎকার প্রচার করেছে একাত্তর টিভি। লন্ডন ভিত্তিক চ্যানেল এস’ ‘আয়না ঘর’ নামে নৃপেন্দ্রলাল দাশের জীবন ও কর্ম সম্পর্কে তথ্য চিত্র নির্মাণ করেছে।
কবিতার জন্য ইতিমধ্যেই তিনি অর্জন করেছেন রাগীব-রাবেয়া সাহিত্য পুরস্কার। বাংলা সাহিত্য সামাগ্রহ অবদানের জন্য পেয়েছেন কেমুসাস পুরস্কার। গবেষণার জন্য শিল্পকলা একাডেমি পুরস্কার এবং ডা. এ রসুল পুরস্কার অর্জন করেছেন। তার প্রকাশিত মোট বইয়ের সংখ্যা ৯২টি।
এবার প্রকাশিত হয়েছে তার নতুন আঙ্গিকে, সম্পূর্ণ ভিন্ন মাত্রার একটি মননশীল গবেষণাধর্মী বই- ‘রবীন্দ্রপত্র, প্রাপক সিলেটিরা। রবীন্দ্রনাথের নেশা ছিল দেশ-বিদেশ ভ্রমণ এবং সেই দেশ বিদেশের নানা জাতের নানা ভাষার, নানা ধর্মের গোত্রের মানুষের সাথে তার যে আন্তরিক হৃদ্যতাপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে উঠতো তাই দেশে এসেই সেইসব প্রিয় মানুষদের পত্র লিখতেন নিয়মিতভাবে। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর সিলেটও এসেছিলেন দুইবার, তাই স্বভাবতই রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের অনেকের সাথে পরিচয় হয়েছিল। পরবর্তীতে তিনি যে তাদের কাছে পত্র লিখেছিলেন- গবেষক নৃপেন্দ্রলাল দাশ সেইসব পত্রগুচ্ছকে একত্রিত করে, ‘রবীন্দ্রপত্র, প্রাপক সিলেটিরা এই নামে তার সংগ্রহে ও সম্পদনায় বইটি প্রকাশিত হয়।
বইটি এমন এক সময় প্রকাশিত হয়েছে, যখন সমগ্র সিলেটবাসী রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সিলেটে আসার শতবার্ষিকী পালন করছে। আজ সিলেটের আকাশে বাতাসে ধ্বনিত হচ্ছে কবিগুরুর গান, কবিতা, নৃত্যর সুর আর ছন্দে মানুষ এখন আনন্দে বিভোর।
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর আমাদের জীবনে এক অপরিহার্য নাম। তাঁকে ঘিরেই আমাদের সকল আনন্দ উৎসব। রবীন্দ্রপত্র, প্রাপক সিলেটিরা এই বইটিও তেমনি এক আনন্দের বার্তা নিয়ে এলো আমাদের কাছে। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে নিয়ে আমাদের বিস্ময়ের অবধি নেই। সাহিত্য ও সংস্কৃতির সব শাখাতেই তিনি তার প্রতিভার স্বাক্ষর রেখেছেন। কোন কোনটিতে তো তিনিই পথিকৃৎ। তিনি আমাদের নিঃশ্বাসের সঙ্গে, বিশ্বাসের সঙ্গে, প্রতিদিন, প্রতিক্ষণে মিশে আছেন, তার কবিতা, গান, নাটক, গল্প, উপন্যাসে। তবে রবীন্দ্রনাথ পত্র লেখক হিসেবে যে অনন্য ও শ্রেষ্ঠ স্থান দখল করে আছেন, তা তাঁর দেশ-বিদেশের মানুষের কাছে যেসব চিঠি পত্র লিখেছিলেন সেইসব চিঠিপত্র পাঠ করলেই বুঝা যায়।
তারই ধারাবাহিকতায় লেখক-গবেষক নৃপেন্দ্রলাল দাশের সম্পাদনায় রবীন্দ্রপত্র, প্রাপক সিলেটিরা বইটির প্রকাশনার গুরু দায়িত্ব পালন করেছে ছড়ালোক (ছড়ার ছোট কাগজ) এর সম্পাদক ছড়াকার শাহাদত বখত শাহেদ। বইটির প্রথম প্রকাশ ৫ নভেম্বর ২০১৯। দৃষ্টি নন্দন প্রচ্ছদ করেছেন অরূপ বাউল, এই বইটি অত্যন্ত উঁচু মানের সংগ্রহে রাখার মত মূল্যবান একটি বই। রবীন্দ্রনাথের আসার শতবর্ষকে স্বাগত জানিয়ে বইটি প্রকাশ করা হয়েছে যা, সিলেটের ইতিহাসে মাইলফলক হয়ে থাকবে।
রবীন্দ্রনাথ সিলেটের যে সব গুণীজনদের কাছে পত্র লিখেছিলেন, তা গবেষক নৃপেন্দ্রলাল দাশ তার দক্ষ হাতের নিপুণ সম্পাদনায়, এমনই অভিনব আর সুসংস্কৃত করে তুলেছে যে- তা রবীন্দ্রপ্রেমী মানুষের কাছে সগৌরবের পরিবেশন যোগ্য। নৃপেন্দ্র লাল দাশের হাতের ছোঁয়ার আর তার সম্পাদনায় বইটি নতুন মাত্রায় প্রাণ পেয়ে বিকশিত হল। বইটিকে ফুলে-ফলে ভরিয়ে দিলেন। আর এখানেই নৃপেন্দ্রলাল দাশ দেখিয়েছেন তার সম্পাদনার মননশীল ষোল আনা মুন্সিয়ানা।
রবীন্দ্রনাথ পত্র, প্রাপক সিলেটিরা রবীন্দ্রনাথের যে সব পত্র স্থান পেয়েছে, তা এক কথায় চমৎকারিত্বে বিশিষ্ট। রবীন্দ্রনাথ এই পত্র লেখার মাঝে খুঁজে বেরিয়েছেন, মানুষের সঙ্গে মানুষের, সমাজের, প্রকৃতির এই বিশ্ব ব্রহ্মান্ডের সম্পর্ক। লিখেছেন পার্থিব এবং পার্থিব বিষয় নিয়ে নানা পত্র।
আর পাঠক এই বইটি পড়ে জানতে পারবেন, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের আবেগ ও অনুভূতির লেখা এই পত্রগুচ্ছগুলো।
বইটি ইতিমধ্যেই সব মানুষের দৃষ্টি আকর্ষণ ও সাড়া জাগাতে সক্ষম হয়েছে। বইটি বর্তমান ও ভবিষ্যতের জন্য অতি মূল্যবান ও গুরুত্বপূর্ণ। তাই বইটি আজই সংগ্রহ করুন এবং আপনার জ্ঞানের পরিধিকে শানিত করুন। গুরুত্বপূর্ণ এই বইটির কঠিন শ্রমসাধ্য নির্ভুল সম্পাদনার জন্য গবেষক নৃপেন্দ্র লাল দাশ মহাশয় ও প্রকাশক শাহাদত বখত শাহেদকে জানাই আন্তরিক অভিনন্দন ও সাধুবাদ।
বইটি উৎসর্গ করেছেন জাতীয় অধ্যাপক ডা. আনিসুজ্জামানকে। বইটির মূল্য রাখা হয়েছে ২৫০ টাকা মাত্র। প্রকাশক- শাহাদত বখত শাহেদ, (ছড়ালোক) ইউনিট-এ লেভেল ৩, তাসমিয়া টাওয়ার, ফাজিল চিশত, সিলেট। বইটি পাওয়া যাচ্ছে জসিম বুক হাউস আম্বরখানা পয়েন্ট, মারুফ লাইব্রেরি রাজাম্যানশন ২য় তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট, উৎস প্রকাশন, আজিজ সুপার মার্কেট, ঢাকা, প্যাপিরাস, কলকাতা।

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT