প্রথম পাতা

রোহিঙ্গা প্রত্যাবসনে আন্তর্জাতিক চাপ বাড়াবে তুরস্ক

ডাক ডেস্ক প্রকাশিত হয়েছে: ২৩-১১-২০১৯ ইং ০১:৫১:০৮ | সংবাদটি ৭৪ বার পঠিত

বাংলাদেশে অবস্থানরত রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে ফেরাতে তুরস্কের সহায়তা কামনা করেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। তুরস্কের আঙ্কারায় সফররত অর্থমন্ত্রী বৃহস্পতিবার দেশটির ভাইস প্রেসিডেন্ট ফুয়াত ওকতের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন।
সাক্ষাতকালে অর্থমন্ত্রী বলেন, পৃথিববীর অন্যতম প্রধান ঘন বসতিপূর্ণ একটি ছোট দেশ বাংলাদেশ। এখানে আশ্রয় নেওয়া মিয়ানমার থেকে বিতাড়িত রোহিঙ্গারা বাংলাদেশের জন্য অত্যন্ত বড় হুমকি যা বাংলাদেশর সাম্প্রদায়িক সম্প্রতি ও অর্থনৈতিক অগ্রগতিকে ব্যাহত করছে। তাই বাংলাদেশে অবস্থানরত রোহিঙ্গাদের নিজ দেশ মিয়ানমারে প্রত্যাবসনের কোনো বিকল্প নেই। অর্থমন্ত্রী এ সমস্যাটি সমাধানে তুরস্কে সহায়তা কামনা করেন। তুরস্কের ভাইস প্রেসিডেন্ট এ বিষয়ে আরো বেশি আন্তর্জাতিক চাপ সৃষ্টি করা হবে বলে আশ্বস্ত করেন। অর্থমন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।
অর্থমন্ত্রী বলেন, সমস্যাটি সমাধানের জন্য আন্তর্জাতিক চাপ সৃষ্টি করার পাশাপশি মুসলিম দেশগুলো ভাগাভাগি করে তাদেরকে আশ্রয় প্রদান করলে সমস্যা অনেকটাই সমাধান হতে পারে। তুরস্কের ভাইস প্রেসিডেন্ট এ বিষয়টি নিয়ে বিশেষভাবে প্রেসিডেন্টের সঙ্গে আলোচনা করবেন বলে জানান।
সাক্ষাতকালে তুরস্কের পক্ষ থেকে একটি বাণিজ্যিক কার্যালয় বাংলাদেশে স্থাপন করতে আগ্রহ প্রকাশ করা হয়েছে। ভাইস প্রেসিডেন্ট বলেন, যেহেতু বাংলাদেশে তাদের বাজার রয়েছে এবং তারা যেহেতু ইউরোপসহ অন্যান্য দেশের প্রবেশদার, তাই বিশ্বে তাদের একটি অন্যরকম গুরুত্ব রয়েছে। এ ধরনের কার্যালয় স্থাপন করে কর্মপরিচালনা করলে বাণিজ্য সংক্রিয়ভাবেই অনেকগুণ বেড়ে যাবে। অর্থমন্ত্রী এ বিষয়টি বিবেচনা করা হবে বলে আশ্বস্ত করেন।
বাংলাদেশে বিনিয়োগের সুবিধাগুলো তুলে ধরলে তুরস্কের ভাইস প্রেসিডেন্ট বাংলাদেশের চামড়াজাত দ্রব্যের প্রতি অত্যধিক আগ্রহ ব্যক্ত করেন। এবং আসিটি খাতে তুরস্ক যেহেতু অত্যন্ত সফল তাই এই দুটি খাতে বাংলাদেশ সহায়তা প্রদানের লক্ষ্যে প্রকল্প প্রেরণের অনুরোধ জানান। বাংলাদেশ কৃষি খাত, এগ্রো প্রসেসিং, পাট ও পাটজাত দ্রব্য, ফ্রুট প্রসেসিং বিশেষ করে আম, লিচু, কাঠাল, আনারস প্রসেসিং এর মাধ্যমে বানিজ্য বাড়াতে আলোচনা করা হয়। এছাড়া উৎকৃষ্ট মানের মাংস উৎপাদন ও রপ্তানির জন্য হালাল সার্টিফিকেশনের ক্ষেত্রে তুরস্কের সহায়তার বিষয়টি আলোচনায় উঠে আসে।
সাক্ষাতকালে আরো উপস্থিত ছিলেন তুরস্কে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এম আল্লামা সিদ্দিকী এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক মো. দাউদ আলী।

 

সিলেটে সম্প্রীতি সংলাপ’-এ পীযুষ বন্দোপাধ্যায়
বাংলাদেশ শান্তি ও সম্প্রীতির দেশ
ডাক ডেস্ক : সিলেটে সম্প্রীতি বাংলাদেশ’র উদ্যোগে গতকাল শুক্রবার বিকেলে জেলা পরিষদ মিলনায়তনে সম্প্রীতি সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়েছে।
জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সম্মিলিত নাট্য পরিষদ সিলেট’র সাধারণ সম্পাদক রজত কান্তি গুপ্তের পরিচালনায় এতে প্রধান আলোচকের বক্তব্য রাখেন সম্প্রীতি বাংলাদেশ’র আহ্বায়ক পীযুষ বন্দোপাধ্যায়।
এ সময় তিনি বলেন, সব ধর্মে শান্তি ও সম্প্রীতিকে সমানভাবে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশ শান্তি ও সম্প্রীতির দেশ। এখানে ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সব মানুষ এক অভূতপূর্ব মেলবন্ধনে সহাবস্থান করছেন। স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অসাম্প্রদায়িক রাষ্ট্র উপহার দিয়েছেন। তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশের সংবিধানে অসাম্প্রদায়িক দেশের কথা উল্লেখ রয়েছে। পরমতের প্রতি শ্রদ্ধা গণতন্ত্রের পূর্ব শর্ত।
তিনি বলেন, ‘ধর্ম যার যার, উৎসব সবার’ এই মন্ত্রে দীক্ষিত হয়ে বাংলাদেশের জনগণ সব ধর্মীয় উৎসব, সার্বজনীন বাংলা নববর্ষ, পয়লা বৈশাখ এবং জাতীয় উৎসবসমূহ আড়ম্বরভাবে উদযাপন করে থাকে। এ সময় তিনি প্রীতি ও সহমর্মিতার বন্ধন অটুট রেখে সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গঠনে সকলকে এক সাথে কাজ করে যাওয়ার আহ্বান জানান।
তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আর্থ-সামাজিক সব ক্ষেত্রে বাংলাদেশের উল্লেখযোগ্য উন্নয়ন হয়েছে। দারিদ্রতা হ্রাসে এ সরকারের গণমুখী পদক্ষেপের সুফল ভোগ করছে জনগণ। এ ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত থেকে উন্নয়নশীল দেশের পর্যায়ে প্রবেশ করেছে।
এছাড়াও বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য ও সিলেট মহানগরের সভাপতি সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান, সম্প্রীতি বাংলাদেশের সদস্য সচিব অধ্যাপক ডা. মামুন আল মাহতাব, সিলেট জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা দেবজিৎ সিংহ, সিলেট সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আশফাক আহমদ, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের পরিচালক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ, জাতীয় ইমাম সমিতি সিলেট জেলা শাখার সভাপতি মোহাম্মদ এহসান উদ্দিন, রামকৃষ্ণ মিশন সিলেট’র অধ্যক্ষ স্বামী চন্দ্রনাথানন্দজি মহারাজ, সিলেট প্রেসবিটেরিনারী চার্চ ফাদার ডিকন নিঝুমসাংমা, সিলেট বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ সংঘানন্দ থের প্রমুখ।
অনুষ্ঠানে মুক্তিযোদ্ধা নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিক, আইনজীবীসহ বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানের শুরুতে জাতীয় সংগীত পরিবেশন করেন গীতবিতান বাংলাদেশ এর পরিচালক অনিমেষ বিজয় চৌধুরীসহ শিক্ষার্থীরা।

শেয়ার করুন
প্রথম পাতা এর আরো সংবাদ
  • আওয়ামী লীগের সম্মেলনে সভাপতি ছাড়া যে কোন পদে পরিবর্তন : কাদের
  • ডাক্তারদের ঘাড়ে কয়টা মাথা যে বলবেন খালেদা জিয়া খারাপ আছেন: ফখরুল
  • বন্ধু ভারত যেন আতঙ্ক জাগানো কিছু না করে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
  • বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন মোদি, প্রণব ও সোনিয়া
  • সড়কে নামার অপেক্ষায় ‘নগর এক্সপ্রেস’
  • ধর্মপাশায় ১৪৪ ধারা জারি
  • সকল ক্ষেত্রে দলের ত্যাগী নেতাকর্মীদের মূল্যায়ন করা হবে
  • জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের নয়া কমিটির প্রতি ইনাম চৌধুরীর অভিনন্দন
  • বালাগঞ্জ ওসমানীনগর মুক্ত দিবস আজ
  • বিজয়ের মাস
  • ছবি
  • লুৎফুর-নাসির জেলার এবং মাসুক-জাকির মহানগর আ.লীগের নেতৃত্বে
  • খালেদার জামিন শুনানি এজলাস কক্ষে নজিরবিহীন হট্টগোল
  • টেন্ডারবাজ, চাঁদাবাজ ও সন্ত্রাসীদের কঠোর বার্তা
  • পররাষ্ট্রমন্ত্রীর অভিনন্দন
  • ‘মুশতাককে গণপিটুনি দিয়ে মঞ্চ থেকে বের করে দেই’
  • সিলেটের বিভিন্ন অঞ্চল মুক্ত দিবস আজ
  • প্রতিবন্ধীদের সম্পর্কে ‘নেতিবাচক মানসিকতা’ পরিহার করুন : প্রধানমন্ত্রী
  • বিজয়ের মাস
  • বিশ্ব ইজতেমার ১ম পর্ব শুরু ১০ জানুয়ারি
  • Developed by: Sparkle IT