সম্পাদকীয়

নির্মাণ কাজে সিমেন্ট ব্লক

প্রকাশিত হয়েছে: ২৬-১১-২০১৯ ইং ০০:০৫:১৯ | সংবাদটি ৪৫৮ বার পঠিত


সড়ক নির্মাণে ব্যবহৃত হবে ব্লক। গ্রামীণ সড়কসহ বিভিন্ন নির্মাণ কাজে ইটের পরিবর্তে ব্লকের ব্যবহার বাধ্যতামূলক করার সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে সরকার। বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচীর আওতায় স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে যেসব গ্রামীণ সড়ক নির্মাণ করবে সেগুলোতে ইটের ব্যবহার বন্ধ করে ব্লক ব্যবহার করা হবে। এছাড়া, সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় যেসব ভবন নির্মিত হবে সেগুলোর দেয়াল ও সীমানাপ্রাচীর নির্মাণে ইটের পরিবর্তে ব্লক ব্যবহার করা হবে। সেই সঙ্গে সলিং রোডেও ইটের পরিবর্তে ব্লক ব্যবহার করা হবে। সরকারী সব সংস্থায় এই সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে। মূলত বায়ূদূষণ কমিয়ে আনতেই নেয়া হচ্ছে এই সিদ্ধান্ত। সরকার গঠিত একটি কারিগরি কমিটি এই সুপারিশ করেছে। প্রধানমন্ত্রী এর অনুমোদন দিলে তা প্রজ্ঞাপন আকারে জারি করা হবে। পরে সরকারী যে কোন প্রকল্পের বিপরীতে আহ্বান করা দরপত্রে বাধ্যতামূলকভাবে ব্লক ব্যবহারের শর্ত দিয়ে দেয়া হবে। খবরটি সম্প্রতি প্রকাশিত হয় একটি জাতীয় দৈনিকে।
বিষয়টি নিয়ে চলছে আলোচনা দীর্ঘদিন ধরে। সেটা হলো ইট। মাটি পুড়িয়ে ইট তৈরী হচ্ছে এ দেশে সুদূর অতীত থেকে। মূলত ইট দিয়েই তৈরী হচ্ছে বিভিন্ন ভবন অট্টালিকা সহ অন্যান্য স্থাপনা। কিন্তু এই ইট-এর নানান ক্ষতিকর দিক রয়েছে। যেমন ফসলি জমির ওপরের অংশের মাটি দিয়ে তৈরী হচ্ছে ইট। এতে জমির উর্বরতা কমে যাচ্ছে। কারণ, জমির ওপরের অংশের মাটিই সবচেয়ে বেশী উর্বর। এভাবে প্রতি বছর বিপুল পরিমাণ জমির উর্বরতা শক্তি বিনষ্ট হচ্ছে। তাছাড়া, ইট ভাটায় ইট পোড়াতে ব্যবহার করা হয় কাঠ; যে কারণে ধ্বংস হচ্ছে মূল্যবান বৃক্ষ সম্পদ। ইট পোড়াতে যে ধোঁয়ার সৃষ্টি হচ্ছে তা এলাকার বাতাস দূষিত করছে। নির্মাণ কাজে ব্যবহারের জন্য ইট ভাঙ্গার সময়ও ধূলিকণা মিশে যাচ্ছে বাতাসে। এইসব কিছু বিবেচনা করে ইটের বিকল্প উদ্ভাবন করেছেন বিশেষজ্ঞগণ। সেটা হলো সিমেন্ট দিয়ে তৈরী ব্লক। এটি ওজনে হালকা, দামে সাশ্রয়ী এবং পরিবেশ বান্ধব। তাই সরকার ইটের পরিবর্তে ব্লক ব্যবহারের ওপর জোর দিয়েছে।
গ্রামীণ সড়কসহ বিভিন্ন নির্মাণ কাজে ব্লকের ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে। সরকারের পরিকল্পনা রয়েছে চলতি অর্থ বছরের মধ্যে সরকারী নির্মাণ কাজে ১০ শতাংশ, পরের বছর ২০ শতাংশ এবং এর পরের বছর ৩০ শতাংশ ব্লক ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা। এভাবে ২০২৪-২৫ অর্থ বছরে সরকারী নির্মাণ কাজে শতভাগ ব্লক ব্যবহার হবে বলে জানা গেছে। তবে বেসরকারী পর্যায়ে ব্লক ব্যবহারের তেমন প্রচলন হয়নি। এর কারণ হচ্ছে এই ব্লক ব্যাপকভাবে তৈরী হচ্ছে না; তাছাড়া ব্লকের ব্যাপারে অনেকে অবগতও নয়। এই প্রেক্ষাপটে প্রচলিত ইটভাটাগুলোকে ব্লক তৈরীর কারখানায় রূপান্তরিত করতে হবে।

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT