বিশেষ সংখ্যা

রাগীব-রাবেয়া

রঞ্জিত কুমার দে প্রকাশিত হয়েছে: ১২-১২-২০১৯ ইং ০০:৫৪:০৯ | সংবাদটি ১৩৮ বার পঠিত

দানবীর ড. রাগীব আলী ১৯৩৮ সনের ১০ অক্টোবর সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার তালিবপুর (বর্তমান রাগীবনগর) গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতার নাম হাজী রাশিদ আলী এবং মায়ের নাম রাবেয়া বানু। পূর্ব পুরুষের আদি নিবাস সুনামগঞ্জ জেলার দিরাই উপজেলার মাটিয়াপুর গ্রামে। ১৯৬৩ সনের ২৯ মার্চ রাবেয়া খাতুন চৌধুরীর সঙ্গে তাঁর বিবাহ হয়েছিল।
দানবীর রাগীব আলী একজন নিবেদিত দেশপ্রেমিক, নিঃস্বার্থ সমাজসেবক, স্বাধীনচেতা ও দৃঢ় ব্যক্তিত্ব সম্পন্ন, আত্মপ্রত্যয়ী এক সংযমী কর্মবীর। তাঁর কর্মজীবন ও আদর্শ ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কাছে স্মরণীয়-বরণীয় হয়ে থাকবে। বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে প্রবাসে তাঁর সাহায্য-সহযোগিতা জাতি আজীবন কৃতজ্ঞতার সাথে স্মরণ রাখবে। সুদূর বিলেতে নিষ্ঠা ত্যাগ ও পরিশ্রমের বিনিময়ে যে সুনাম, যশ, খ্যাতি ও অঢেল প্রাচুর্যের শীর্ষে আরোহণ করছেন তা সত্যিই ঈর্ষণীয়।
দানবীর রাগীব আলী স্ত্রী অন্তঃপ্রাণ। সিলেটের রায় হুসেনের পাক্কা বাড়ির মেয়ে রাবেয়া খাতুন চৌধুরীকে বিয়ে করে তিনি খুবই আনন্দিত হয়েছিলেন। তিনি এমন একজন নারীকে জীবন সাথী হিসেবে পাশে পেয়েছিলেন, তিনি তাঁর সকল কাজে উৎসাহ যোগাতেন, স্ত্রীকে সঙ্গে নিয়ে তিনি লন্ডনে হোটেল ব্যবসা করেছেন। সেখানে তিনি তাঁকে বিভিন্ন কাজে সহযোগিতা করতেন। দেশের ব্যবসা-বাণিজ্য, বিশ্ববিদ্যালয়, স্কুল, কলেজ, মসজিদ, মাদ্রাসা, মন্দির প্রতিষ্ঠায় তাঁর সাথে সহযোগী হিসেবে কাজ করেছেন, অনুপ্রেরণা দিয়েছেন। দুঃখ ভারাক্রান্ত মনে এই বৃদ্ধ বয়সে স্ত্রীকে স্মরণ করেন।
আমরা দেখি যতগুলো প্রতিষ্ঠান রাগীব আলী গড়েছেন তাতে রাগীব-রাবেয়া কথাটি জোড়া লাগানো থাকতো। স্ত্রীর নাম বাদ দিয়ে রাগীব আলীর একক নামে খুব কম সংখ্যক প্রতিষ্ঠান রয়েছে। রাগীব আলী ১২টি ট্রাস্ট প্রতিষ্ঠা করেছেন। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান-ব্যক্তির নামে। এগুলোর অধিকাংশই রাগীব আলীর সাথে রাবেয়া খাতুন চৌধুরীর নামযুক্ত আছে। সমাজে রাগীব আলী যে প্রতিষ্ঠা পেয়েছেন তাতে তাঁর স্ত্রী রাবেয়া খাতুন চৌধুরীর যথেষ্ট অবদান রয়েছে। স্ত্রীকে তিনি সেভাবেই মূল্যায়ন করেছেন।
তবে একটি বিষয় লক্ষ্য করা যায়, রাবেয়া খাতুন চৌধুরীর স্মৃতিকে ধরে রাখার জন্য তাঁর কীর্তিকে অমর করে রাখার জন্য তিনি আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বলেছেন ‘বিশ্বে যা কিছু মহান সৃষ্টি চির কল্যাণকর/অর্ধেক তার করিয়াছে নারী অর্ধেক তার নর।’
আমরা দেখতে পাই রাগীব আলীর সব কাজের সফলতায় অংশীদার রাবেয়া খাতুন চৌধুরী।
লেখক : অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক

শেয়ার করুন

ফেসবুকে সিলেটের ডাক

বিশেষ সংখ্যা এর আরো সংবাদ
  • বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় কবি নজরুল
  • বঙ্গবন্ধুর জীবনালোচনায় কিছু কথা ও কাহিনী
  • বঙ্গবন্ধুকে কাছে থেকে দেখার টুকরো স্মৃতি
  • মুজিববর্ষের তাৎপর্য
  • মাতৃভাষা আন্দোলন ও সিলেট
  • ভাষাশহীদদের প্রতি কৃতজ্ঞতা : ইসলামি দৃষ্টিকোণ
  • দেশে বিদেশে গৌরবের শহীদ মিনার
  • বিশ্বজুড়ে বাংলা ভাষা চর্চা
  • মানুষ জন্মগত বিজয়ী, পরাজয় মানে না
  • মুক্তিযুদ্ধ ও নদী
  • আমাদের মুক্তিযুদ্ধ
  • তিনি আজও আমার সব কর্মের প্রেরণা
  • রাগীব আলীর উন্নয়নের পৃষ্ঠপোষক
  • একজন বিচক্ষণ সম্পাদক আমার মা
  • একজন মহীয়সী নারী
  • রাবেয়া খাতুন চৌধুরী ও সিলেটের ডাক
  • অনন্যা
  • স্মৃতিতে ভাস্বর রাবেয়া খাতুন চৌধুরী
  • বেগম রাবেয়া খাতুন চৌধুরী এক মহীয়সী নারীর কথা
  • তিনি বেগম রাবেয়া খাতুন চৌধুরী
  • Developed by: Sparkle IT