প্রথম পাতা

ইউনূসকে শ্রম আদালতে তলব

প্রকাশিত হয়েছে: ১৪-০১-২০২০ ইং ০১:৩০:৫২ | সংবাদটি ৪৯ বার পঠিত

ডাক ডেস্ক : ফৌজদারি মামলায় গ্রামীণ কমিউনিকেশনসের চেয়ারম্যান হিসেবে নোবেলজয়ী মুহাম্মদ ইউনূসকে তলব করেছে ঢাকার শ্রম আদালত। তাকে আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি হাজির হতে সমন জারির নির্দেশ দিয়েছেন ঢাকার তৃতীয় শ্রম আদালতের বিচারক রহিবুল ইসলাম। ওই আদালতের পেশকার মিয়া মো. জামাল উদ্দিন তথ্যটি জানিয়ে সোমবার বলেন, আসামি সমন পেয়ে আদালতে হাজির না হলে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির বিধান রয়েছে।
গত ৫ জানুয়ারি আদালতে মামলাটি করেন কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের শ্রম পরিদর্শক (সাধারণ) তরিকুল ইসলাম।
মামলায় ইউনূস ছাড়াও গ্রামীণ কমিউনিকেশনসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাজনীন সুলতানা, পরিচালক আব্দুল হাই খান ও উপ-মহাব্যবস্থাপক (জিএম) গৌরি শংকরকে বিবাদী করা হয়েছে।
এর আগে ট্রেড ইউনিয়ন গঠনের কারণে গ্রামীণ কমিউনিকেশন্সের চাকরিচ্যুত তিন কর্মীর পৃথক তিনটি মামলায় একই আদালত গত ৯ অক্টোবর ইউনূসের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছিল। এরপর ৩ নভেম্বর আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন নেন তিনি।
নতুন মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, ২০১৯ সালের ৩০ এপ্রিল একজন পরিদর্শক প্রতিষ্ঠানটি গ্রামীণ কমিউনিকেশন্স পরিদর্শন করে বিভিন্ন ত্রুটি দেখতে পেয়ে সেসব সংশোধনের নির্দেশনা দেন। তার পরিপ্রেক্ষিতে পর ৭ মে ডাকযোগে বিবাদী পক্ষ জবাব দেয়।
এরপর মামলার বাদী একই বছরের ১০ অক্টোবর প্রতিষ্ঠানটিতে পরিদর্শনে গিয়ে ১০টি বিধি লঙ্ঘনের প্রমাণ পান এবং ২৮ অক্টোবর তা অবহিত করেন।
তবে বিবাদী পক্ষ সময়ের আবেদন করেও নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে জবাব দাখিল করেনি।
এতে বিবাদীরা বাংলাদেশ শ্রম আইন ২০০৬, বাংলাদেশ শ্রম (সংশোধন) আইন, ২০১৩ এর ধারা ৩৩ (ঙ) এবং ৩০৭ মোতাবেক দণ্ডনীয় অপরাধ করেছেন বলে মামলায় বাদী অভিযোগ করেছেন।
গ্রামীণ কমিউনিকেশন্সের বিরুদ্ধে যেসব বিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ আনা হয়েছে তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো- বিধি মোতাবেক শ্রমিক/কর্মচারীদের নিয়োগপত্র, ছবিসহ পরিচয়পত্র ও সার্ভিস বই না দেওয়া; শ্রমিকের কাজের সময় এর নোটিস পরিদর্শকের কাছ থেকে অনুমোদিত নয়, কোম্পানিটি বার্ষিক ও অর্ধবার্ষিক রিটার্ন দাখিল করেনি, কর্মীদের বৎসরান্তে অর্জিত ছুটির অর্ধেক নগদায়ন করা হয় না।
এছাড়া কোম্পানির নিয়োগবিধি মহাপরিদর্শক কর্তৃক অনুমোদিত নয়, ক্ষতিপূরণমূলক সাপ্তাহিক ছুটি ও উৎসব ছুটি প্রদান-সংক্রান্ত কোনো রেকর্ড/রেজিস্টার সংরক্ষণ করা হয় না, কোম্পানির মুনাফার অংশ ৫% শ্রমিকের অংশগ্রহণ তহবিল গঠনসহ লভ্যাংশ বণ্টন করা হয় না, সেফটি কমিটি গঠন করা হয়নি, কর্মীদের অন্য প্রতিষ্ঠানে কাজ করালেও কোনো ঠিকাদারি লাইসেন্স এবং কারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তর থেকে লাইসেন্স নেওয়া হয়নি।

 

শেয়ার করুন
প্রথম পাতা এর আরো সংবাদ
  • শহীদ জিয়া প্রতিষ্ঠিত বহুদলীয় গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের দৃঢ় শপথ নিতে হবে
  • পরাজয় জেনেই বিএনপি নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার চেষ্টা করছে
  • এসএসসির নতুন সূচি প্রকাশ
  • শিশু ধর্ষণ মামলায় মৃত্যুদ- দিতে হাইকোর্টের রুল
  • বইমেলা শুরু ২ ফেব্রুয়ারি
  • প্রমাণ হয়েছে, এই ইসি অযোগ্য: ফখরুল
  • বুধবার থেকে ই-পাসপোর্ট
  • মুসলিম উম্মাহ্র শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা
  • নাগরিকত্ব আইন ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়, তবে প্রয়োজন ছিল না: শেখ হাসিনা
  • ফিজা’য় মূসক ফাঁকি
  • বড়লেখায় স্ত্রী-শাশুড়িসহ চারজনকে হত্যা করে চা শ্রমিকের আত্মহত্যা
  • দেশের কয়েকটি অঞ্চলে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হতে পারে
  • বিএনপির গণজোয়ার ‘দিবাস্বপ্ন’ : কাদের
  • ক্ষণ গণনার শুভযাত্রায় মহাকালের ‘শ্রাবণ ট্র্যাজেডি’ নাটকের বিশেষ প্রদর্শনী আজ
  • নিজ হাতে পিঠা তৈরি করে জাতীয় পিঠা উৎসবের উদ্বোধন করলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী
  • বিচার বহির্ভূত হত্যাকান্ড নিয়ে ঢালাও অভিযোগ করা হয় -----পররাষ্ট্রমন্ত্রী
  • সবাইকে সঞ্চয়ের মানসিকতা গড়ে তোলার আহ্বান
  • সরকার দেশের শিক্ষাব্যবস্থার উন্নয়নে নানা প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে -------প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী ইমরান আহমদ এমপি
  • বগুড়ার এমপি আব্দুল মান্নান আর নেই
  • নেতৃত্বের প্রতি অনুগত থাকুন, সশস্ত্র বাহিনীর প্রতি রাষ্ট্রপতি
  • Developed by: Sparkle IT