শেষের পাতা

বাংলাদেশে মোট জনসংখ্যার ০.১৭% ভিক্ষুক

প্রকাশিত হয়েছে: ১৪-০১-২০২০ ইং ০১:৩১:৩১ | সংবাদটি ৪৫ বার পঠিত


ডাক ডেস্ক : বাংলাদেশে এখন আড়াই লাখের মতো ভিক্ষুক রয়েছে, যা মোট জনসংখ্যার শূন্য দশমিক ১৭ শতাংশ। সোমবার সংসদে এক প্রশ্নের জবাবে সমাজকল্যাণমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ এ তথ্য জানিয়েছেন।
তবে মন্ত্রী জানান, বাংলাদেশে ভিক্ষুকদের সংখ্যা নির্ধারণের জন্য সমন্বিতভাবে কোনো জরিপ হয়নি।
জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে পরিচালিত জরিপের তথ্যের ভিত্তিতে ভিক্ষুকের সংখ্যার হিসাব দেন তিনি।
ওই হিসেবেই দেশে শূন্য দশমিক ১৭ শতাংশ মানুষ ভিক্ষাবৃত্তির মাধ্যমে জীবিকা নির্বাহ করে।
সরকারি দলের দিদারুল আলমের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী ভিক্ষুকের হিসাব দেন। স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে প্রশ্নোত্তর টেবিলে উত্থাপিত হয়।
ভিক্ষুক পুনর্বাসনে চলতি অর্থ বছরে ৪ কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে বলেও মন্ত্রী নূরুজ্জামান জানান।
এম আবদুল লতিফের প্রশ্নের জবাবে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন বলেন, “প্রাথমিকের সব ছাত্র-ছাত্রীকে বছরের শুরুতে পোশাক, জুতা ও ব্যাগ কেনার জন্য প্রাথমিকভাবে ৫০০ টাকা প্রদানের প্রস্তাব প্রক্রিয়াধীন আছে। উপবৃত্তি দেওয়ার পাশাপাশি এক কোটি ৪০ লাখ শিক্ষার্থীকে বছরের শুরুতে এককালীন ৫০০ টাকা প্রদান করা হবে।”
সরকারি দলের নাছিমুল আলম চৌধুরীর প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি বলেন, দেশে সরকার অনুমোদিত ১০৫টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে ৯৪টি কার্যক্রম চলছে।
“অধিকাংশ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার মান ভালো। কিছু বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মান নিয়ে প্রশ্ন আছে। যে সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের বিরুদ্ধে সার্টিফিকেট বাণিজ্যের অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে, তাদের মধ্যে অধিকাংশ আদালতের স্থগিতাদেশ নিয়ে পরিচালিত। আদালতের রায়ে একটি বেসরকারি (দারুল ইহসান) বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ করা হয়েছে।”
এই প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, “সার্টিফিকেট বাণিজ্য বন্ধ করার জন্য কমিশন থেকে নিয়মিত বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো মনিটরিং করা হচ্ছে। প্রত্যেকটি প্রোগ্রামের জন্য ক্রেডিট আওয়ার ও সেমিস্টার আগে থেকে নির্ধারণ করার মাধ্যমে নির্দিষ্ট সংখ্যক আসনের ভিত্তিতে ভর্তি করায় শিক্ষার নামে সার্টিফিকেট বাণিজ্য বহুলাংশে বন্ধ হয়েছে।
“অসাধু চক্রের যোগসাজসে পরিচালিত বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালগুলোর আউটার ক্যাম্পাস বন্ধ করা হয়েছে এবং অননুমোদিত ক্যাম্পাসবন্ধের বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হচ্ছে। দূরশিক্ষণ কার্যক্রম বন্ধ করা হয়েছে।”
বিএনপির সংসদ সদস্য হারুনুর রশীদের প্রশ্নের জবাবে গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম জানান, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুত কেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্পে অনিয়মের অভিযোগে ২৯ জন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে ১৬ জনকে চাকরি হতে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।
হাসপাতালের পূর্ত কাজ ছাড়া উপকরণ কেনাকাটা গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সম্পর্কিত নয় বলে মন্ত্রী এ সময় জানান।

 

শেয়ার করুন
শেষের পাতা এর আরো সংবাদ
  • ছবি
  • দেশপ্রেমিক নেতাদের কর্মজীবন অনুসরণ করলে দেশ ও জাতি উপকৃত হবে
  • জীবন বাধা তালা-চাবিতে
  • আমেরিকার বিরুদ্ধে ‘বাজে’ কথা বলায় সোলাইমানিকে হত্যা করেছি: ট্রাম্প
  • এন্ড্রু কিশোরের চিকিৎসায় পূর্ণ সহায়তা দিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ
  • প্রথম আলোর মতিউর রহমানসহ ৬ জনের জামিন শুনানি আজ
  • যত সমালোচনা শুধু পাঁচজনের ---- ইসি রফিকুল
  • বাল্য বিয়ে ও মাধ্যমিকে ঝরে পড়ার হার সিলেটে সবচেয়ে বেশি
  • মরমী গীতিকবি সাংবাদিক ম.আনফর আলী আর নেই
  • র‌্যাবের পৃথক অভিযানে গণধর্ষণ মামলার আসামীসহ ৫ জন আটক
  • বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ের কর্মচারী সমিতি কর্মসূচি শুরু আজ
  • নবীগঞ্জে হত্যাসহ ৬ মামলার পলাতক আসামী গ্রেফতার
  • বিশ্বনাথে মহিলা সমাবেশ গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর জীবনমান এখন অনেক উন্নত
  • মনু নদীর উন্নয়নে মেগা পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে
  • শ্রীমঙ্গলে চলন্ত ট্রেনে ঢিল, শিশু আহত
  • সরকার শিল্পকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিচ্ছে
  • বিচারপ্রার্থীদের হয়রানি না করে ন্যায় বিচার নিশ্চিত করতে হবে -----চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কাউছার আহমদ
  • ছাতকে আওয়ামী লীগ নেতা আচ্ছা মিয়া স্মরণে শোক সভা ও দোয়া মাহফিল
  • ছাতকে ছাদ থেকে পড়ে কলেজ ছাত্রীর মৃত্যু
  • কেরালার পর পাঞ্জাবের বিধানসভায়ও সিএএ বাতিলের প্রস্তাব পাস
  • Developed by: Sparkle IT