শেষের পাতা

কোম্পানীগঞ্জে ‘মরা ধলাই খাল’ ভরাট করে শতাধিক স্থাপনা

প্রকাশিত হয়েছে: ২৫-০১-২০২০ ইং ০২:১৭:৪৮ | সংবাদটি ৩২২ বার পঠিত
Image

আবিদুর রহমান, কোম্পানীগঞ্জ (সিলেট) থেকে নিজস্ব সংবাদদাতা॥ বর্ষাকালে হাঁটু বা কোমর পর্যন্ত পানি থাকে। শুষ্ক মৌসুমে পানিই থাকে না। এই করুণ অবস্থা একসময়ের খরস্রোতা পুরাতন ধলাই খালের। কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার ভোলাগঞ্জ-রুস্তমপুর-নোয়াগাঁও-পাড়ুয়া গ্রামের বুক চিরে বয়ে চলে যাওয়া এই নদীর রূপে একসময় মুগ্ধ হতো মানুষ। নদীর পারে বেড়াতে আসা মানুষের মন জুড়িয়ে যেতো। মন কেড়ে নেওয়া এই খালটির পূর্বনাম ‘পুরাতন ধলাই’ হলেও বর্তমানে একে ‘মরা ধলাই খাল’ নামেই সবাই চিনেন।
সরেজমিন দেখা গেছে, দখলবাজদের কারণে পুরাতন ধলাই খালটি তার রূপ- সৌন্দর্য সবই হারিয়েছে। দখলবাজরা তৈরি করেছে বসতবাড়ি। খাল ভরাট করে শতাধিক পাকা ও আধা পাকা বসতি গড়ে তোলা হয়েছে। খালটির কারণে এলাকার প্রাকৃতিক পরিবেশে যে শোভা বর্ধন হতো, তাও ম্লান হয়ে গেছে। এ অবস্থায় মরে যাওয়া খালটির নাম দেয়া হয়েছে মরা ধলাই খাল।
জানা গেছে, ভোলাগঞ্জ থেকে রুস্তমপুর, নোয়াগাঁও, পাড়ুয়া হয়ে টুকার বিল পর্যন্ত পুরাতন ধলাই খালের দৈর্ঘ্য প্রায় ৪ কিলোমিটার। আর এই ৪ কিলোমিটারে অবৈধ দখলদারের সংখ্যা শতাধিক। অবৈধ দখল করা জমির পরিমাণ ২.৩৭ একর। কয়েক বছর আগেও যে খালে পানি ছিল, সেখানে এখনকার চিত্র দেখলে মনে হবে কোনো সময় ওই জায়গায় খালের কোন চিহ্ন ছিল না। ময়লা-আবর্জনায় ক্রমেই বিবর্ণ হয়ে উঠেছে এখানকার প্রাকৃতিক পরিবেশ। সঙ্গে সঙ্গে হাঁপিয়ে উঠছেন স্থানীয় বাসিন্দারাও। কিন্তু মানুষের এই দুর্ভোগ দায়িত্বশীলদের কেউই আমলে নিচ্ছেন না।
স্থানীয়রা জানান, মরা ধলাই খাল সংলগ্ন ৫-৬ গ্রামে বসবাস করেন ১০ সহস্্রাধিক মানুষ। এসব এলাকার পয়ঃনিষ্কাশনের প্রধান মাধ্যম এ খালটি দখল করে অপরিকল্পিতভাবে দালানকোঠা ও স্থাপনা নির্মাণ অব্যাহত থাকায় দুর্ভোগ চরমে পৌঁছেছে। এখনই এ অপতৎপরতা বন্ধ না করলে পরিবেশের ওপর বিরূপ প্রভাব পড়বে।
এদিকে, অবৈধ দখলদারদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য ভুক্তভোগীরা একাধিকবার স্থানীয় প্রশাসনের শরণাপন্ন হলেও কাজের কাজ কিছুই হচ্ছে না।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, এলাকাবাসীর আবেদনের প্রেক্ষিতে মরা ধলাই খালের ৬০ জন দখলদারকে চিহ্নিত করে উপজেলা ভূমি অফিস। এরপর গত বছরের ৩১ জুলাই সরকারি সম্পত্তির অবৈধ দখল থেকে তাদেরকে কেন উচ্ছেদ করা হবে না মর্মে নোটিশ পাঠানো হয়। তখন জনমনে প্রত্যাশা জাগে এবার খালটি দখলমুক্ত হবে। কিন্তু, এ বিষয়ে স্থানীয় প্রশাসনকে আর কোনো উদ্যোগ নিতে দেখা যায়নি। এ অবস্থায় দখলবাজরাও থেমে নেই।
ভোলাগঞ্জ গ্রামের ভুক্তভোগী আলমগীর হোসেন, পাড়ুয়ার ইব্রাহিম আলী, রুস্তমপুরের আলী আসকর ও নোয়াগাঁও গ্রামের আবুল কাশেম জানান, মরা ধলাই নদীটি রক্ষায় তারা একাধিকবার স্থানীয় প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়েছেন। কিন্তু, প্রশাসনের পক্ষ থেকে কার্যতঃ কোনো পদক্ষেপ নেয়া হয়নি। তারা বলেন, নদীটি রক্ষা করা না গেলে পরিবেশ ভারসাম্যহীন হয়ে পড়বে।
স্থানীয় ইউপি সদস্য মুজিবুর রহমান বলেন, পুরাতন ধলাই নদী দখল করে স্থাপনা তৈরি করায় নদীটি মরে গেছে। এটি পুনরুদ্ধার করা না গেলে এলাকায় পরিবেশের বিরূপ প্রভাব পড়বে।
ইসলামপুর পশ্চিম ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাহ মোহাম্মদ জামাল উদ্দিন বলেন, খালটি অবৈধভাবে দখল হয়ে যাওয়ায় পানি প্রবাহে বাধাপ্রাপ্ত হয়। যার ফলে বর্ষায় এলাকায় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হচ্ছে। জনগণের স্বার্থে দখল হয়ে যাওয়া সরকারি খালটি উদ্ধার করা দরকার। তিনি বলেন, অবৈধ দখলদারদের বিরুদ্ধে একটি উচ্ছেদ মামলা হয়েছিল। এটি দ্রুত কার্যকর করার দাবি জানান তিনি।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সুমন আচার্য জানান, এ সংক্রান্ত অভিযোগ তিনি পেয়েছেন এবং একদিন সরেজমিন পরিদর্শনও করেছেন। তিনি বলেন, এটি একটি প্রক্রিয়াগত বিষয়। তবে, খাল দখল করে যাঁরা অবৈধভাবে স্থাপনা তৈরি করেছেন তাঁদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

 

শেয়ার করুন

ফেসবুকে সিলেটের ডাক

শেষের পাতা এর আরো সংবাদ
  • নৈতিকতা ও সামাজিক মূল্যবোধে আলোকিত হয়ে বর্তমান প্রজন্মকে গড়ে তুলতে হবে :: দানবীর ড. রাগীব আলী
  • সিলেটের আদালতে নিষ্পত্তি হওয়া ১০১টি মামলার আলামত ধ্বংস
  • মোগলাবাজারে আস্ক ইউর লোকাল পুলিশ শীর্ষক কর্মশালা
  • চুনারুঘাটে সেতু প্রতিরক্ষা বাঁধ ও বাড়িঘর হুমখীর  মুখে
  • নবীগঞ্জে কৃষক মোতচ্ছির হত্যা মামলায় একজনের যাবজ্জীবন
  • অধিক মূল্যে পেঁয়াজ বিক্রির দায়ে ব্যবসায়ীর জরিমানা
  • দক্ষিণ সুরমায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে যুবকের মৃত্যু
  • সুনামগঞ্জে হাওর থেকে অজ্ঞাত ব্যক্তির লাশ উদ্ধার
  • দোয়ারায় সাজাপ্রাপ্ত ২ আসামি গ্রেফতার
  • মাধবপুরে পুকুরে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু
  • সিলেট গ্যাস ফিল্ডস থেকে পেট্রোল সরবরাহ না করলে কঠোর কর্মসূচী দিতে বাধ্য হবে ওনার্স এসোসিয়েশন
  • বালাগঞ্জে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মাদরাসা ছাত্রের মৃত্যু
  • শত কোটি টাকা ব্যয়ে গভীর নলকূপ ও স্যানেটারি ল্যাট্রিন পাচ্ছেন দক্ষিণ সুনামগঞ্জ ও জগন্নাথপুরবাসী
  • জার্মানিতে উদ্বেগজনক হারে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ
  • শিক্ষক সমাজের কাছে জাতির প্রত্যাশা অনেক
  • ২০ বছর পর জগন্নাথপুর উপজেলা ছাত্রদলের কমিটি নিয়ে তোড়জোড়
  • টাঙ্গুয়ার হাওরে নৌ পুলিশের স্টেশন স্থাপন হচ্ছে
  • ডা. দেওয়ান নূরুল হোসেন চঞ্চলের মৃত্যুবার্ষিকী আজ
  • সিলেটে ৪ লাখ ৬১ হাজার ৫ শ’ ১৭ শিশুকে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে
  • প্রেসক্লাবের নয়া কমিটি গঠন
  • Image

    Developed by:Sparkle IT