শেষের পাতা

সিলেটে আবগারী ও ভ্যাট বিভাগ কর্মকর্তাদের বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও বাজার পরিদর্শন

প্রকাশিত হয়েছে: ২৫-০১-২০২০ ইং ০২:২৮:৩১ | সংবাদটি ৫৪০ বার পঠিত
Image

কাস্টমস এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট সিলেট এর উদ্যোগে নগরীর বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও বাজার পরিদর্শন করেছেন আবগারী ও ভ্যাট বিভাগ সিলেটের ভ্যাট কর্মকর্তারা।
গত বৃহস্পতিবার বিকেলে সিলেট ভ্যাট রাজস্ব কর্মকর্তা মো.নুরুল আমিনের নেতৃত্বে নগরীর বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ব্যবসায়ীরা কাস্টমারদের বিভিন্ন পণ্যের উপর সঠিকভাবে ভ্যাট প্রদান করছেন কিনা এবং ক্রেতারা ক্রয়কৃত পণ্যের ভ্যাটের সঠিক চালান পাচ্ছেন কিনা সে বিষয়ে খোঁজ নেন তারা।
ক্রেতারা পণ্যের চালান সঠিকভাবে গ্রহণের মাধ্যমে ভ্যাট পরিশোধ হচ্ছে কিনা তা যাচাই-বাছাই করেন ভ্যাট কর্মকর্তারা। এই ভ্যাট প্রদানের মাধ্যমে সরকারের কোষাগারে জমা হচ্ছে এবং দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের মাধ্যমে পরিকল্পিত ডিজিটাল বাংলাদেশ উন্নত দেশে পরিণত হবে।
ভ্যাট রাজস্ব কর্মকর্তা মোঃ নরুল আমিন বলেন,ভ্যাট ফাঁকির প্রবনতা থাকলে তার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। আগে ভ্যাট ফাঁকি দেয়া সহজ ছিল কিন্তু এখন সকলেই সঠিকভাবে ভ্যাট দিচ্ছে। ব্যবসায়ীদের ভ্যাট প্রদানে উদ্বুদ্ধকরনের জন্য এনবিআর নতুন ভ্যাট আইন প্রণয়ন করেছে। সেজন্যে জনগণ ও ব্যবসায়ীদের বুঝতে বা পৌছতে সময় লাগছে। তবে সেটি অতিশীঘ্রই সমাধান হবে।
কাস্টমস এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট, সিলেট-এর কমিশনার গোলাম মোঃ মুনীর ও অতিরিক্ত কমিশনার মোঃ সফিউর রহমানের নেতৃত্বে অনলাইনের ভ্যাট রেজিষ্ট্রেশনের মাধ্যমে ব্যবসায়ীদের জন্য অনলাইন ট্রেনিং এর ব্যবস্থা করেছেন। যাতে ব্যবসায়ীরা নতুন অনলাইন আইন সম্পর্কে সহজে বুঝতে পারেন জানতে পারেন। যাতে করে ব্যবসায়ীরা কিভাবে একজন ক্রেতার কাছ থেকে কিভাবে ভ্যাট আদায় করবেন এবং একজন ক্রেতা তার ক্রয়কৃত দ্রব্য-ক্রয়ের মাধ্যমে সঠিকভাবে ভ্যাট চালান সংগ্রহ করা। তাই ব্যবসায়ী ও জনগণদের ভ্যাট আদায় ও প্রদানে উদ্বুদ্ধ করতে হবে।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, সিলেট ভ্যাট ডিভিশনের এআরও প্রদীপ রঞ্জন, রিয়াজুল ইসলাম, হালিম মিয়াজী প্রমুখ।
উল্লেখ্য, বর্তমানে এনবিআর ঢাকা ও চট্টগ্রামে কয়েকটি মেশিন দিয়ে প্রাথমিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে। পরবর্তিতে তা দেশের বিভিন্ন স্থানে সরাসরি এনবিআর এ ভ্যাট এর টাকা জমা হবে বলে জানান কাস্টমস কর্মকর্তারা। একইসাথে নতুন কাস্টমস আইনের বাস্তবায়ন করে দেশের উন্নয়নে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।
একইসাথে ভ্যাট সম্পর্কিত যেকোন বিষয়ে ব্যবসায়ী বা ক্রেতারা বুঝতে সমস্যা হলে কাস্টমস এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট সিলেট সদর দপ্তরে সহযোগিতা প্রদান করা হবে।
ভুল তথ্যদিয়ে কোন ক্রেতা তার ব্যবসায়ীকে হয়রানি বা ব্যক্তিস্বার্থে বা সরকারি কর্মকর্তাদের ভ্যাট ফাকি সম্পর্কে তথ্য প্রমাণিত না করতে পারে তাহলে সেই প্রতিষ্ঠান বা কাস্টমস এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট ঐ ক্রেতার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থাও নিতে পারবে।-বিজ্ঞপ্তি

 

শেয়ার করুন

ফেসবুকে সিলেটের ডাক

শেষের পাতা এর আরো সংবাদ
  • চিকিৎসাসেবা পাচ্ছেন না :পরিকল্পনামন্ত্রী
  • রাজনগরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে ৬ মাদকসেবী কারাগারে
  • বাক শ্রবণ প্রতিবন্ধী মেয়েটি নাম-ঠিকানা বলতে পারছে
  • স্থপতি চৌধুরী মুশতাক আহমদের দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী আজ
  • রাতারগুল ওয়াচ টাওয়ারে পর্যটক উঠা বন্ধ
  • শায়েস্তাগঞ্জ থানার ওসিসহ ৫ পুলিশ সদস্য প্রত্যাহার
  • স্বাস্থ্যবিধি মেনে নৃত্য-আবৃত্তি নাটকে জেগে উঠলো মঞ্চ
  • সিলেটের সকল শুল্ক স্টেশনে সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধির প্রস্তাব
  • আ’লীগের ডজন খানেক প্রার্থী আগ্রহ নেই বিএনপির
  • গণধর্ষণ মামলার ২ আসামী আটক
  • বিশ্বনাথে সাংবাদিক জুবায়েরের পিতৃবিয়োগ
  • সরকার সকল শ্রেণি পেশার মানুষের উন্নয়নে কাজ করছে : উপজেলা চেয়ারম্যান ইকবাল চৌধুরী
  • আজমিরীগঞ্জে ৩৯টি দোকান পুড়ে ২০ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি
  • বড়লেখায় চুরি হওয়া কম্পিউটার ও মুঠোফোন উদ্ধার, গ্রেফতার ৫
  • দক্ষিণ সুরমার চান্দাইয়ে ব্রিজ ভেঙে গর্ত দুর্ঘটনার আশঙ্কা
  • জকিগঞ্জে যুবদলের প্রতিনিধি সভায় পুলিশি বাধা
  • কমলগঞ্জে পেঁয়াজের বাজার চড়া দুর্ভোগে নিম্ন আয়ের ক্রেতারা
  • রাধিকা মোহন স্মৃতিপদক পেলেন এটিএন বাংলার সিলেট বিভাগীয় প্রতিনিধি শাহ মুজিবুর রহমান জকন
  • সাবেক মেয়র কামরানের ভাই কানিজ আর নেই
  • ‘সাস্টকাস্ট’ নামে শাবি’র রেডিও এপ্লিকেশনের যাত্রা শুরু
  • Image

    Developed by:Sparkle IT