প্রথম পাতা পুলিশের অভিযানে গ্রেফতার তিনজনের আদালতে স্বীকারোক্তি

পূর্ব শত্রুতার জেরে দক্ষিণ সুরমায় চালক ও হেলপার খুন

প্রকাশিত হয়েছে: ২৬-০১-২০২০ ইং ০৩:১৯:৪৭ | সংবাদটি ২২৬ বার পঠিত

স্টাফ রিপোর্টার : সিলেটের দক্ষিণ সুরমার লালমাটিয়ায় ট্রাকের ভেতর থেকে চালক ও হেলপারের লাশ উদ্ধারের ঘটনার রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় গ্রেফতারকৃত তিনজন গতকাল শনিবার আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। সিলেট মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট তৃতীয় আদালতের বিচারক শারমীন খানম নীলা ফৌজদারী কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় তাদের জবানবন্দি রেকর্ড করেন।
সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (মিডিয়া ও কমিউনিটি সার্ভিস) জেদান আল মুসা তিনজনকে গ্রেফতার ও আদালতে তাদের স্বীকারোক্তি দেয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, পূর্ব শত্রুতার জেরে একই ট্রাকের পুরাতন চালক ও তার সহযোগীরা হত্যা করেছে নতুন চালক ও হেলপারকে।
গ্রেফতার তিনজন হচ্ছে-সিলেট সদর উপজেলার ধোপাগুল এলাকার ট্রাক চালক মো: ইব্রাহীম মিয়া তালুকদার, বিশ্বনাথ উপজেলার ফজর মিয়া (ট্রাকের হেলপার) এবং হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার জালাল মিয়া।
গত শুক্রবার সকাল সাড়ে ১১টায় লালমাটিয়ায় ট্রাকের ভেতর থেকে ট্রাকের চালক চুয়াডাঙ্গা জেলার আলমডাঙ্গার আব্দুল কাদিরের ছেলে জাহাঙ্গীর মিয়া (২৬) ও হেলপার একই এলাকার দীন মোহাম্মদের ছেলে রাজু আহমদ (২৫)-এর লাশ উদ্ধার করে। পুলিশ লাশ দুটি উদ্ধার করে ওসমানী মেডিকেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে। লাশ দুটির শরীরে আঘাতের চিহ্ন ছিল বলে পুলিশ জানায়।
যেভাবে খুনের রহস্য উন্মোচন ॥ ট্রাকের ভেতর থেকে দুটি লাশ থাকার পরও ট্রাকটি ক্ষতিগ্রস্ত না হওয়ায় এবং ট্রাকের চাকা না থাকায় পুলিশের মনে সন্দেহ দানা বাঁধে। মরদেহ দুটি শনাক্ত করার জন্য ফিঙ্গারপ্রিন্ট গ্রহণের পাশাপাশি মোগলাবাজার থানাপুলিশ লাশের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে। সুরতহাল রিপোর্ট তৈরির সময় মৃতদেহ দুটির গলায় চিহ্ন থাকায় প্রাথমিকভাবে শ্বাসরোধ করে পরিকল্পিতভাবে হত্যাকান্ড বিবেচনা করে তদন্ত কার্যক্রম শুরু করে পুলিশ। পুলিশ জানায়, ট্রাকের ভেতর তল্লাসি করার সময় মালামালের ইনভয়েস, মালামাল গ্রহণকারীর কিছু মোবাইল নম্বরের সূত্র ধরে তদন্ত কার্যক্রম শুরু হয়। ওই সব মোবাইলের সূত্র ধরে ট্রাক মালিকের নম্বর পাওয়া যায়। ট্রাক মালিকের কাছ থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, ট্রাকটি গাজীপুর জেলার জয়দেবপুর হতে লুমিনাস এন্টারপ্রাইজের মাধ্যমে অটোরিক্সার পার্টস নিয়ে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা অনুমান ৭টার দিকে ড্রাইভার জাহাঙ্গীর হেলপার রাজু সহ সিলেটের উদ্দেশ্যে রওনা হয়। ওইদিন রাত অনুমান সাড়ে ১০টায় ট্রাকের ড্রাইভার মোহাম্মদ জাহাঙ্গীরকে ফোন দিলে রহস্যজনকভাবে পুরাতন ড্রাইভার মোহাম্মদ ইব্রাহিম ফোন রিসিভ করেন এবং নতুন ড্রাইভার ঘুমিয়ে আছেন বলে জানান। এরপর থেকে জাহাঙ্গীরের মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায়। শুক্রবার সকালে ইব্রাহিম আহমেদ তালুকদার ট্রাক মালিক মোঃ আতাউর রহমানকে ফোনে জানায়, তার নতুন ড্রাইভার মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর তাকে এবং তার সহযোগী ফজর মিয়াকে নবীগঞ্জ থানাধীন আউশকান্দিতে নাস্তা করা অবস্থায় ফেলে রেখে চলে আসে। ড্রাইভার ইব্রাহিম আহমেদ তালুকদারের মোবাইল নম্বরের অবস্থান হুমায়ুন রশীদ চত্বর এলাকায় শনাক্ত হওয়ায় প্রথমে তাকে সন্দেহ করা হয়। সাথে সাথে হুমায়ুন রশীদ চত্বর এলাকায় অভিযান পরিচালনা করলে তার মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। পরবর্তীতে বিকেল সাড়ে ৩টায় মোবাইল নম্বরে তার অবস্থান এয়ারপোর্ট থানাধীন ধোপাগুল এলাকায় পাওয়া যায়।
সহকারী পুলিশ কমিশনার (মোগলাবাজার) পলাশ রঞ্জন দে’র নেতৃত্বে এসআই রাজিব কুমার রায়, এএসআই সেলিম এয়ারপোর্ট থানাধীন কালাগুল ক্যাম্পের ইনচার্জ এর সহায়তায় সন্ধিগ্ধ ড্রাইভার মোঃ ইব্রাহিম মিয়া তালুকদারকে গ্রেফতার করে। জিজ্ঞাসাবাদে ড্রাইভার মোঃ ইব্রাহিম তার সহযোগীর নাম ফজল মিয়া বলে জানায়। তার (ফজল মিয়ার) মোবাইল নম্বরের অবস্থান শনাক্ত করে সিলেট নগরীর আম্বরখানা থেকে তাকে গ্রেফতার করে মোগলাবাজার থানাপুলিশ। ফজল মিয়া জিজ্ঞাসাবাদে জানায়, ড্রাইভার মোঃ ইব্রাহিম পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ড্রাইভার জাহাঙ্গীর ও তারসাথে বেড়াতে আসা রাজুকে গাড়ির ভিতরে গলায় রশি পেঁচিয়ে হত্যা করে। তার জবানবন্দি অনুযায়ী মালামাল উদ্ধারের জন্য সহকারী পুলিশ কমিশনার (মোগলাবাজার), থানার অফিসার ইনচার্জ আখতার হোসেন, এসআই রাজিব কুমার রায় সঙ্গীয় ফোর্সসহ বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করেন। অভিযানে হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর থানাধীন জগদীশপুর মুক্তিযোদ্ধা চত্বর সংলগ্ন একটি দোকান হতে মোগলাবাজার থানা পুলিশ ৭০ হাজার টাকা মূল্যের ওই ট্রাকের তিনটি চাকা ও পাঁচটি রিং উদ্ধার করে। এ সময় ক্রেতা মোঃ জালাল মিয়াকেও গ্রেফতার করা হয়। ট্রাক চালক জাহাঙ্গীর ও রাজুর ব্যবহৃত তিনটি মোবাইল হ্যান্ডসেট ফজল মিয়ার শ্বশুরবাড়ি দক্ষিণ সুরমা থানাধীন কোজাবাইন গ্রাম হতে উদ্ধার করা হয়।
মোগলাবাজার থানার ওসি আখতার হোসেন জানান, স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি আদায়ের পর আদালত তাদেরকে জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন।
প্রসঙ্গত, লালমাটিয়ায় সিলেট সিটি কর্পোরেশনের বর্জ্য ফেলার পাশে একটি ট্রাক (ঢাকা-মেট্রো- ট- ১৮ ৪০৩০) দাঁড়িয়ে থাকতে দেখে স্থানীয় লোকজন পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ খবর পেয়ে গত শুক্রবার সকাল সাড়ে ১১টায় ঘটনাস্থলে গিয়ে ট্রাকের ড্রাইভিং সিটে দুটি লাশ দেখতে পেয়ে উদ্ধার করে। ব্যাটারি চালিত অটোরিক্সার পার্স বহনকারী ট্রাকটির ৪টি চাকা কে বা কারা খুলে নিয়ে যায়।

শেয়ার করুন
প্রথম পাতা এর আরো সংবাদ
  • ছবি
  • সিলেটে প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপিত হবে সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে সাংবাদিকদের এগোতে হবে।
  • রাজনগরে মাদ্রাসা শিক্ষক অজ্ঞান পার্টির খপ্পড়ে তিন লাখ টাকা লুট
  • ছাতকে দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্রী ও নবীগঞ্জে নারীর মৃত্যু
  • ‘ইউএন বাংলা ফন্ট’ চালু করতে যাচ্ছে ইউএনডিপি
  • মহানগরী এলাকায় পলিথিন ব্যাগ বিক্রি ও ব্যবহার বন্ধের আহ্বান সিসিকের
  • অমর একুশে ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে বিভিন্ন সংগঠনের কর্মসূচী
  • একুশের প্রথম প্রহরে...
  • মহান একুশ আমাদের জাতিসত্তার অবিচ্ছেদ্য অংশ ॥ পরিকল্পনামন্ত্রী এম.এ.মান্নান এমপি
  • একুশে পদক হস্তান্তর করলেন প্রধানমন্ত্রী
  • সিলেট বোর্ডে গতকালের পরীক্ষায় অনুপস্থিত ৩৩৮ পরীক্ষার্থী
  • এসএসসি পরীক্ষার্থী দুর্বৃত্তের হামলায় আহত
  • বঙ্গবন্ধু’র জন্মশতবার্ষিকতে পূর্বাচলে হচ্ছে ‘বঙ্গবন্ধু চত্বর’
  • দোয়ারাবাজারে পিআইসির গর্ত থেকে বৃদ্ধের লাশ উদ্ধার
  • সিলেট প্রেসক্লাবের কার্যনির্বাহী কমিটির অভিষেক আজ
  • আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস যানজট এড়াতে এসএমপির ট্রাফিক বিভাগের নির্দেশনা
  • আমার নামে কোন গ্রপিংয়ের সুযোগ নেই দায়িত্ব পালনে সবার সহযোগিতা চাই
  • হাই কোর্টে খালেদার জামিন শুনানি রোববার
  •  খালেদাকে নিয়ে বারবার উত্তর দিতে চাই না: কাদের
  • যুক্তরাজ্যে কম দক্ষ শ্রমিকদের ভিসা না দেয়ার পরিকল্পনা
  • Developed by: Sparkle IT