ধর্ম ও জীবন

বংশ নিয়ে গর্ব করা

মো. আব্দুল মুক্তাদির রাসেল প্রকাশিত হয়েছে: ০৭-০২-২০২০ ইং ০১:০৯:৫৪ | সংবাদটি ৪২৮ বার পঠিত

বংশ, গোত্র, জাতি, বর্ণ, ভাষা প্রভৃতি নিয়ে গর্ব বা অহংকার করে বহু মানুষ একে অপরকে অপমান, অপদস্থ, তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য ও ঘৃণা করে থাকেন। অথচ আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তা’আলার কাছে এগুলো মর্যাদা ও শ্রেষ্ঠত্ব লাভের মাপকাঠি নয়। বরং আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তা’আলার কাছে ঐ ব্যক্তিই অধিক মর্যাদা সম্পন্ন যিনি অধিক মুত্তাকী বা আল্লাহভীরু।
মহান আল্লাহ বলেন-“হে মানুষ! আমি তোমাদেরকে সৃষ্টি করেছি এক পুরুষ ও এক নারী হতে, পরে তোমাদেরকে বিভক্ত করেছি বিভিন্ন জাতি ও গোত্রে, যাতে তোমরা একে অপরের সাথে পরিচিত হতে পার। তোমাদের মধ্যে ঐ ব্যক্তিই আল্লাহর নিকট অধিক মর্যাদা সম্পন্ন যে অধিক মুত্তাকী। আল্লাহ সব কিছু জানেন, সব কিছুর খবর রাখেন।” (সূরা হুজুরাত : আয়াত-১৩)
বিদায় হজ্জের ভাষণে রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছিলেন-“হে লোকজন! তোমাদের আল্লাহ একজন। কোনো অনারবের উপর কোনো আরবের ও কোনো আরবের উপর কোনো অনারবের, কৃষ্ণাঙ্গের উপর শ্বেতাঙ্গের এবং শ্বেতাঙ্গের উপর কৃষ্ণাঙ্গের কোনো শ্রেষ্ঠত্ব নেই আল্লাহভীতি ছাড়া। তোমাদের মধ্যে যে সবচেয়ে বেশী আল্লাহভীরু সেই আল্লাহর কাছে সর্বাধিক মর্যাদাবান। (মুসনাদে আহমাদ)
আবু হুরাইরা (রা.) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন ঃ নিশ্চয়ই আল্লাহ তোমাদের বাহ্যিক চাল-চলন ও বিত্ত-বৈভবের প্রতি নযর করেন না; বরং তিনি নযর করেন তোমাদের অন্তর ও আমলের প্রতি। [সহীহ মুসলিম-৬৩১১ (ই:ফা:)]
নিজ বংশ নিয়ে গর্ব বা অহংকার করা এবং অন্যকে বংশের খোঁটা দেওয়া জাহিলী যুগের প্রথা, যা ইসলামে বিলুপ্ত করা হয়েছে। আবু হুরাইরাহ (রা.) সূত্রে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন-মহান আল্লাহ তোমাদের থেকে জাহিলী যুগের মিথ্যা অহংকার ও পূর্বপুরুষদেরকে নিয়ে গর্ব করার প্রথাকে বিলুপ্ত করেছেন। মু‘মিন হলো আল্লাহভীরু আর পাপী হলো দুর্ভাগা। তোমরা সকলে আদম সন্তান আর আদম (আ:) মাটির তৈরী। কাজেই লোকদের উচিৎ বিশেষ গোত্রের ভুক্ত হওয়াকে কেন্দ্র করে অহংকার না করা।
এখন তো তারা জাহান্নামের কয়লায় পরিণত হয়েছে। অন্যথায় তোমরা মহান আল্লাহর নিকট ময়লার সেই কীটের চেয়েও জঘন্য গণ্য হবে যে তার নাক দিয়ে ময়লা ঠেলে নিয়ে যায়। [সুনানে আবু দাউদ-৫০২৮ (ই:ফা), নিদ্রা অধ্যায়]
আবু মালিক আল আশ’আরী (রা.) বর্ণনা করেন। নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, আমার উম্মাতের মধ্যে জাহিলিয়াত বিষয়ের চারটি জিনিস রয়েছে যা তারা ত্যাগ করছে না। বংশ মর্যাদা নিয়ে গর্ব, অন্যের বংশের প্রতি কটাক্ষ, গ্রহ-নক্ষত্রের মাধ্যমে বৃষ্টি প্রার্থনা এবং মৃতদের জন্য বিলাপ করা। রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আরো বলেন, বিলাপকারিণী যদি তার মৃত্যুর পূর্বে তাওবাহ না করে, তবে কিয়ামতের দিনে তাকে দাঁড় করানো হবে, তখন তার দেহে আলকাতরার আবরণ থাকবে এবং খসখসে লোহার পোশাক থাকবে। [সহীহ মুসলিম-২০৩১ (ই:ফা:), জানাযা অধ্যায়]
আবু হুরাইরা (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন ঃ দুটি স্বভাব মানুষের মাঝে রয়েছে, যে দুটি কুফর বলে গণ্য (১) বংশের প্রতি কটাক্ষ করা এবং (২) মৃতের জন্য উচ্চঃ স্বরে বিলাপ করা। [সহীহ মুসলিম-১৩১ (ই:ফা:), ঈমান অধ্যায়]

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT