পাঁচ মিশালী

একটি কুসুম ফলে

নিশেন্দু চক্রবর্তী রাজু প্রকাশিত হয়েছে: ১৫-০২-২০২০ ইং ০০:১০:৩৫ | সংবাদটি ১০১ বার পঠিত

তুমি কি দীগন্ত বাঁশি? নাকি উদয়ের হাসি?
নাকী পুষ্পিত কাননে দাঁড়ালে রৌদ্রাভ মউ- চাকই?
তুমি কি শিহরিত পুঞ্জিত সুষমাতে?
মনের টানে মন নিলে উপচে।
তবে খুঁজতে গভীরে চেয়ে উঠি দেখে,
তুমি কিছু মুক্তো-আলো,
যেন সমুদ্রের গভীর থেকে সঙ্গীত উচ্ছল হয়ে
এলো। তবে এতো ঝরা ফুলের মালা
জলে টলমল আঁখির!
প্রাণের শিহরণে পুঞ্জিভূত এতো আমি!
দাঁড়ানো হয় দুইভাব করেন
বন্ধু বন্ধু, লাভে দুই আই। ভালবেসে
চোখে চোখে, প্রাণে প্রাণে।
আমি মানে তুমি সাই! তুমি মানে আমি।
বুঝেছি তবে তুমি বাসন্তী মুখোর, কোকিলীয়
বীণায়। তুমি ফুলে তাই আছি
সুন্দর মূলে।
চারিদিকে দাবদাহ, আর চেনা মূলে জল,
তাতেই সম্বল পেয়ে সব দিকে করে উঠি
কলকল। যে দিকে চাই, সেদিকেই আপনার
প্রিয় মুখ তাই। সব দিক ভরে দুই নয়নের
জলে; আর কিছু বাকী নেই
তুমি আমি মিলে
সব এক বন্ধু দিলে।
সুন্দর তোমার রাজপথ আসে ঢাকা থেকে ফিরে দু’চোখের
কালোয় ঢাকা যায় মিলে মিশে এক হয়
এক মহাপ্রাণের শিখা যতো জাগে বানে
কুসুম ফলে।

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT