প্রথম পাতা বেগম রাবেয়া খাতুন চৌধুরী নার্সিং কলেজের ওরিয়েন্টেশনে দানবীর ড. রাগীব আলী

নতুন প্রজন্মকে দক্ষ মানবসম্পদ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে

স্টাফ রিপোর্টার প্রকাশিত হয়েছে: ২৫-০২-২০২০ ইং ০৩:১২:০৫ | সংবাদটি ১০৮ বার পঠিত

চিকিৎসকের চেয়ে নার্সিং পেশার গুরুত্ব কম নয় ॥ প্রফেসর ডাঃ মোঃ আবেদ হোসেন


সিলেটের প্রথম বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় লিডিং ইউনিভার্সিটি এবং মানবতার কল্যাণে নিবেদিত প্রতিষ্ঠান রাগীব-রাবেয়া ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান, উপমহাদেশের প্রখ্যাত দানবীর ড. রাগীব আলী বলেছেন, শিক্ষায় আমরা অনেক অগ্রসর হলেও চরিত্রের দিক থেকে এখনো পিছিয়ে রয়েছি। সকলকে সৎ চরিত্রের অধিকারী হওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, হাসপাতাল হলো দুঃখী মানুষের আশ্রয়স্থল। এখানে রোগ-শোক নিয়ে মানুষ আসে। তাদের সাথে কোনভাবেই দুর্ব্যবহার করা সমীচীন নয়। তিনি বলেন, বর্তমান সরকার দেশের কাক্সিক্ষত উন্নয়নের লক্ষ্যে কাজ করছে। আমরা বিশ্বসভায় মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত হয়েছি। এজন্য শুধু সরকার নয়, স্ব-স্ব অবস্থান থেকে সবাই এগিয়ে এলে উন্নত বাংলাদেশ বিনির্মাণ সহজ হবে। ড. রাগীব আলী বলেন, দেশের উন্নতি, অগ্রগতি ও সুনাম বৃদ্ধিতে ডাক্তার-নার্সসহ সবাইকে নিজ নিজ অবস্থানে থেকে কাজ করে যেতে হবে।
গতকাল সোমবার সকালে বেগম রাবেয়া খাতুন চৌধুরী নার্সিং কলেজ এর ১১তম বিএসসি ইন নার্সিং বেসিক, সপ্তম বিএসসি ইন নার্সিং পোস্ট বেসিক ও দশম ডিপ্লোমা ইন নার্সিং সায়েন্স এন্ড মিডওয়াইফারী কোর্সের ওরিয়েন্টেশন প্রোগ্রামে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।
বিশ্বের মধ্যে নার্সিং পেশায় ফিলিপাইন অগ্রসর উল্লেখ করে বিশিষ্ট শিল্পপতি ও টি প্ল্যান্টার ড. রাগীব আলী বলেন, সেদেশের সরকার কল-কারখানার চেয়ে নার্সিং পেশাকে বেশি গুরুত্ব দিয়েছে। মহৎ কাজের মধ্য দিয়ে তারা উন্নত জাতি হিসেবে পরিচিত। তিনি বলেন, আমাদের সরকারও কল-কারখানা গড়ে তোলার প্রতি মনোযোগী। পাশাপাশি নতুন প্রজন্মকে মানবসম্পদ হিসেবে গড়ে তুলতে পারলে দেশ, জাতি ও সংশ্লিষ্টদের পরিবার আরো উন্নত হবে।
বেগম রাবেয়া খাতুন চৌধুরী নার্সিং কলেজ এর অধ্যক্ষ ডা. আয়েশা বেগমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিলেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের নার্সিং অনুষদের ডীন প্রফেসর ডা. বিপ্লব কুমার রায়, জালালাবাদ রাগীব-রাবেয়া মেডিকেল কলেজ এর অধ্যক্ষ প্রফেসর ডাঃ মোঃ আবেদ হোসেন, উপাধ্যক্ষ অধ্যাপক এ. কে.এম দাউদ, হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক মো. তারেক আজাদ ও দৈনিক সিলেটের ডাক-এর সম্পাদক মো: আব্দুল হাই।
জালালাবাদ রাগীব-রাবেয়া মেডিকেল কলেজের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান এবং বেগম রাবেয়া খাতুন চৌধুরী নার্সিং কলেজ এর প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান ড. রাগীব আলী আরো বলেন, একজন রোগীর জন্য ঔষধের চেয়ে অনেক বেশি মূল্যবান হচ্ছে ডাক্তার ও নার্সদের আচার-ব্যবহার। রোগীদের মুগ্ধ করার মতো ক্যারিশমা থাকতে হবে ডাক্তার ও নার্সদের। মনুষ্যত্ব না থাকলে ডাক্তার, নার্স হয়ে কোনো লাভ নেই-উল্লেখ করে তিনি বলেন, মানুষের কল্যাণে জীবন উৎসর্গ করার মধ্যে প্রকৃত সুখ নিহিত।
সমাজহিতৈষী ড. রাগীব আলী আরো বলেন, ‘বেগম রাবেয়া খাতুনের অনুপ্রেরণায় আমার জীবনের প্রতিটি মুহূর্ত আনন্দে কেটেছে। স্ত্রী হিসেবে তাঁর সহযোগিতা না পেলে হয়তো শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও মানবসেবামূলক এসব প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা আমার জন্য দুঃসাধ্য হতো।’ মহীয়সী স্ত্রী রাবেয়া খাতুনের মৃত্যুর এক যুগেরও বেশি সময় চলে গেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমাকে আর্তমানবতার সেবায় কাজ করার প্রেরণা যুগিয়েছিলেন তিনি। তিনি আজ আমাদের সামনে না থাকলেও আমরা ভালো কাজ করে যাবো। তাহলে রাবেয়া খাতুনের আত্মা শান্তি পাবে, তিনি বেহেস্তবাসী হবেন।’
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে প্রফেসর ডা. বিপ্লব কুমার রায় বলেন, বেগম রাবেয়া খাতুন চৌধুরী নার্সিং কলেজ সর্বমহলে পরিচিত। তিনি এ কলেজের যেকোন প্রয়োজনে সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস দেন।
প্রফেসর ডাঃ মোঃ আবেদ হোসেন বলেন, চিকিৎসকের চেয়ে নার্সদের গুরুত্ব মোটেও কম নয়। চিকিৎসা পেশার মান বৃদ্ধিতে ডাক্তার ও নার্সসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হয়। নবাগত শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, বিত্ত বৈভবের মধ্যে থেকেও রাগীব-রাবেয়া দম্পতি যে সাধারণ জীবনযাপন করতেন বা করছেন তা অবিশ্বাস্য। রাবেয়া খাতুন চৌধুরী পরের উপকারের জন্য সদাব্যাপৃত ছিলেন। তাঁর মহৎগুণ নিয়ে তাঁর সম্পর্কে বেশ কয়েকটি বই প্রকাশিত হয়েছে। শিক্ষার্থীদের এসব বই পড়ার পরামর্শ দিয়ে তিনি বলেন, এতে নিজেরাই উপকৃত হবে।
সারোয়ার আহমেদ ও শাহনাজ পারভীনের যৌথ পরিচালনায় ওরিয়েন্টেশন অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন কলেজের উপাধ্যক্ষ নাদিরা বেগম, ডিপ্লোমা ইন নার্সিং সায়েন্স এন্ড মিডওয়াইফারী ৮ম ব্যাচের শিক্ষার্থী রবিউর রহমান রবি, বিএসসি ইন নার্সিং বেসিক ১১তম কোর্সের নবাগত শিক্ষার্থী শ্যামলী কর, বিএসসি ইন নার্সিং পোস্ট বেসিক সপ্তম কোর্সের নবাগত শিক্ষার্থী শেখ সাদিয়া সালমা, ডিপ্লোমা ইন নার্সিং সায়েন্স এন্ড মিডওয়াইফারী দশম কোর্সের নবাগত শিক্ষার্থী ফারজানা বেগম।
এর আগে অভিষিক্ত শিক্ষার্থীদের শপথবাক্য পাঠ করান কলেজে সিনিয়র শিক্ষক অধ্যাপক ডা. আব্দুর রব। পরে নবাগত শিক্ষার্থীদের সাথে গ্রুপ ফটোসেশনে অংশ নেন দানবীর ড. রাগীব আলী।
উল্লেখ্য, বেগম রাবেয়া খাতুন চৌধুরী নার্সিং কলেজের ২০১৯-২০২০ সেশনে তিন কোর্সে মোট ২১০ জন শিক্ষার্থী ভর্তি হয়েছেন।

শেয়ার করুন

ফেসবুকে সিলেটের ডাক

প্রথম পাতা এর আরো সংবাদ
  • আইপিএল ও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়ে আশাবাদী কামিন্স
  • ছাতকে শ্বাসরুদ্ধ করে স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ : স্বামী আটক
  • করোনাভাইরাস: পাকিস্তানে শুক্রবারের নামাজ ঠেকাতে কারফিউ
  • যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় আক্রান্ত হয়ে সিলেটি নারীর মৃত্যু
  • সংস্কৃতিকর্মীদের জন্য ৫০ কোটি টাকা অনুদানের দাবি
  • হবিগঞ্জে করোনা সন্দেহে ২০ জনের নমুনা ঢাকায় প্রেরণ
  • হবিগঞ্জে কঠোর অবস্থানে পুলিশ ও সেনাবাহিনী
  • জগন্নাথপুর কেবল সার্ভিসের খাদ্য সামগ্রী বিতরণ
  • জগন্নাথপুরে বিয়ের আসরে কনের বাবাকে জরিমানা
  • গোলাপগঞ্জে পুলিশ সুপারের প্রচারণা ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণ
  • গুজবে কান দেবেন না, ত্রাণসামগ্রী বিতরণে কোন দুর্নীতি সহ্য করা হবে না : প্রধানমন্ত্রী
  • সিলেটে জুমায় মুসল্লী ছিলেন কম, ছোট সূরা দিয়ে নামাজ
  • ঢাকায় করোনা ভাইরাসে সাংবাদিক আক্রান্ত
  • বিয়ানীবাজারে বার্তা ফাউন্ডেশনের ত্রাণ বিতরণ
  • সিসিকের আদেশ: বরাদ্দকৃত ত্রাণ সামগ্রী স্ব স্ব ওয়ার্ডে বসবাসরত হত দরিদ্র নাগরিকদের মধ্যে সমভাবে বন্টন করুন
  • চিকিৎসকদের চেম্বার বন্ধ রাখা উচিত নয়: স্বাস্থ্যমন্ত্রী
  • ভারতে লকডাউন শেষে ফিরবেন বাংলাদেশিরা
  • প্রধানমন্ত্রীর ৩১ দফা অক্ষরে অক্ষরে পালনের আহ্বান কাদেরের
  • কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়ে লন্ডনে মারা গেলেন ওসমানী নগরের দুই ভাই
  • নবীগঞ্জে সাংবাদিকদের উপর হামলার ঘটনায় মামলা, গ্রেফতার ১
  • Developed by: Sparkle IT