স্বাস্থ্য কুশল

সকালের নাস্তা যখন সুস্বাস্থ্যের চাবিকাঠি

অনন্যা কর প্রকাশিত হয়েছে: ০৯-০৩-২০২০ ইং ০১:১০:০২ | সংবাদটি ৪৫৩ বার পঠিত
Image

সকালের নাস্তা খুবই গুরুত্বপূর্ণ এবং সবচেয়ে অবহেলিত খাবার। যদি গাড়ির সাথে মানব দেহের তুলনা। করি তাহলে সকালের খাবার হচ্ছে ইঞ্জিনের তেল যেটা গোটা দিনের শক্তি জোগাতে সহায়তা প্রদান করবে।
তাই সকালের খাবার হতে হবে সঠিক এবং পুষ্টিকর। অনেকে কাজের চাপে অথবা ব্যস্ততার অজুহাত দেখিয়ে সকালে নাস্তা করেন না। বিশেষ করে আজকালকার নতুন প্রজন্ম, দেরি করে ঘুমাতে যাওয়া এবং দেরি করে ঘুম থেকে উঠা আজকালকার ফ্যাশন হয়ে দাঁড়িয়েছে যার ফলে হাতে সময় থাকে খুবই কম আর তাড়াহুড়ো থাকে বেশি। যার ফলাফল দিনের পর দিন সকালের নাস্তা বাদ দেওয়া। নাস্তা না করে একবারে দুপুরের খাবার খাওয়ার প্রবণতা তাদের মধ্যে খুব বেশি। এছাড়াও হাউসওয়াইফ (গৃহবধূ) রা ঘরের সব কাজ সেড়ে স্বামীকে অফিস এবং বাচ্চাকে স্কুলে পাঠিয়ে তারপর যথারীতি নাস্তা করে থাকেন। এর ফলে ঘটে যেমন শারীরিক ক্ষতি ও তেমনি মানসিক স্বাস্থ্য ও বিপর্যস্থ হয়।
যদি একটু খেয়াল করে দেখি সকালের নাস্তাকে ইংরেজিতে বলে ‘ব্রেকফাস্ট’ যার বাংলায় অনুবাদ করলে হচ্ছে ‘রাতের উপবাস ভাঙ্গা’ সেই উপবাস যদি আপনি সকালে ঘুম থেকে উঠার ২ ঘন্টার মধ্যে না ভাঙ্গেন তাহলে ভেবে দেখুন নিজের শরীরের প্রতি কতটা অবিচার করছেন।
যারা সকালের নাস্তা বাদ দিচ্ছেন তারা একবার ভালো করে চিন্তা করে দেখুন তো রাতের খাবারের পরে কত দীর্ঘ সময় ধরে আপনি না খেয়ে আছেন।
গোটা রাত না খেয়ে তারপর সকালে নাস্তা না করে একবারে দুপুরে খাবার খাওয়া একদিকে যেমন অস্বাস্থ্যকর অন্য দিকে দীর্ঘ সময় বিরতির পর খাবার খেতে যখন আপনি বসবেন স্বাভাবিকভাবে পরিমাণে বেশি খাওয়া হয়ে যাবে। একসাথে পরিমাণে বেশি খাওয়া বিভিন্ন রোগের ঝুঁকি বাড়িয়ে তোলে। আবার অনেকে সকালে নাস্তা না খেয়ে মিড-মর্নিং বা সকাল ও দুপুরের খাবারের মাঝখানের সময়ে খেয়ে ফেলেন বিভিন্ন ধরেন জাঙ্কফুড বা রাস্তার খোলা ভাজা পোড়া খাবার। স্টুডেন্টদের মধ্যে এই ধরনের প্রবণতা খুব বেশি, মিড মর্নিংএর সময়ে সবচেয়ে জনপ্রিয় একইসাথে সহজলভ্য হচ্ছে সিঙ্গারা, পুরি, আলুর চপ, সমুচা ইত্যাদি।
তাহলে পর্যায়ক্রমে যদি দেখা যায় সকালের নাস্তা না করা আপনাকে একদিকে যেমন বিভিন্ন রকম রোগের দিকে ঠেলে দিচ্ছে একই সাথে আপনাকে অসময়ে এইসব অস্বাস্থ্যকর ভাজা পোড়া খেতে উৎসাহিত করছে। সুতরাং শরীরের ক্ষতির হিসাব তা খুব সহজেই মিলানো যাচ্ছে।
চলুন তাহলে জেনে নেই সকালের নাস্তা বাদ দিলে কি কি ক্ষতির আশঙ্কা থাকে:
ডায়াবেটিসের ঝুঁকি :
গবেষণায় দেখা গেছে যে,সকালের নাস্তা নিয়মিত এবং পরিমিত পরিমাণে না খেলে টাইপ ২ ডায়াবেটিস (ইন্সুলিন নির্ভর) হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। দীর্ঘক্ষণ বিরতির পর খাবার খেলে রক্তে সুগারের ভারসাম্য বজায় থাকে না। যার ফলে অল্প বয়সে ডায়াবেটিস হওয়ার ঝুঁকি কয়েকগুণ বেড়ে হয়।
স্মৃতি শক্তি লোপ পাওয়া :
সকালের নাস্তা না করার ফলে স্মৃতি শক্তি কমে যাওয়ার আশংকা থাকে। গবেষণায় দেখা যায় যে প্রতিনিয়ত সকালের নাস্তা দিলে ব্রেন ডেমেজ ও ভুলে যাওয়া রোগের প্রবণতা বেড়ে যায়।
ওজন বৃদ্ধি :
যারা ভাবছেন সকাল বেলা না খেয়ে হয়তো অনেকটা ওজন কমিয়ে ফেলতে পারছেন কিন্তু আপনার সাথে প্রকৃতপক্ষে ঘটনাটা ঘটছে উল্টো, সকালে না খেয়ে থাকায় বরং হচ্ছে আপনার ওজন বৃদ্ধির কারণ। যারা বাড়তি ওজন কমাতে চান তাদের জন্য সকালের নাস্তা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সকালের নাস্তা বাদ দিলে সারাদিনে অতিরিক্ত ক্যালোরি নেওয়ার বিরাট সম্ভাবনা থাকে। যার ফলে ওজন হ্রাস পেতে সমস্যা হয়..সকালে আদর্শ নাস্তা করলে দিনের পরবর্তী সময়ে ভাত রুটি ইত্যাদি গ্রহণের চাহিদা কমে যার, ফলে দ্রুত ওজন হ্রাস পায়।
হজম ক্ষমতায় ব্যাঘাত ঘটে :
দীর্ঘক্ষণ না খেয়ে তারপর তুট করে একগাদা খাবার খেলে স্বাভাবিকভাবে হজমে সমস্যা দিতে পারে।এছাড়াও শরীরের মেটাবলিক রেট কমে যেতে থাকে ধীরে ধীরে। সকালে নাস্তা না করে থাকার কারণে সবচেয়ে বেশি যেই সমস্যা দেখা দে তা হচ্ছে এসিডিটি ও গ্যাস ফরমেশন।
খিটখিটে মেজাজি :
লম্বা সময় ধরে না খেয়ে থাকলে মন মেজাজের উপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলে যা আপনাকে খিটখিটে করে তুলতে পারে। সকালের খাবার না খেলে শরীরের উপর চাপ পড়ে যা খুব সহজেই আপনাকে রাগান্বিত করে তুলতে পারে। সম্প্রতি একটি গবেষণায় দেখা গেছে যে, সকালে খাবার খেলে শরীরে সুখময় প্রদানকারী হরমোন নিঃসরণ হয় যা আপনাকে সারা দিন চাঙ্গা ও ফুরফুরে মেজাজে থাকতে সহায়তা করে।
লেখক : পুষ্টিবিদ ও ডায়েটিশিয়ান, আল-হারামাইন হাসপাতাল, সিলেট।

শেয়ার করুন

ফেসবুকে সিলেটের ডাক

স্বাস্থ্য কুশল এর আরো সংবাদ
  • জুতায় কতদিন বেঁচে থাকতে পারে করোনাভাইরাস?
  • হার্ট সুস্থ রাখা চাই
  • হাম রুবেলা ক্যাম্পেইন বাস্তবায়নে প্রচারণা
  • গাজরের উপকারিতা
  • রোগ প্রতিরোধে ডুমুর
  • তরমুজ এক উপকারী ফল
  • সকালের নাস্তা যখন সুস্বাস্থ্যের চাবিকাঠি
  • করোনাভাইরাস থেকে বাঁচার উপায়
  • শাকসবজি ও ফলমূল কেন খাবেন
  • দৈনন্দিন জীবনে লেবুর চাহিদা
  • এ্যাপোলো হসপিটালে ভারতের প্রথম ইনভেসিভ ডবল কার্ভ কারেকশন সার্জারি
  • হাঁড়ের ক্ষয় রোগ : নীরব ঘাতক
  • আপনার সন্তানের চোখের যত্ন নিন
  • আয়োডিন স্বল্পতায় জটিল রোগ
  • শারীরিক শক্তি বাড়ায় যে খাবার
  • সুস্থতার জন্য পানি
  • রোগ প্রতিরোধে ডালিম
  • শীতে হাঁপানি এড়াতে কী করবেন
  • শীতে ঠোঁটের সুরক্ষা
  • এক জায়গায় বসে কাজ করার কুফল
  • Image

    Developed by:Sparkle IT