সম্পাদকীয়

আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা

প্রকাশিত হয়েছে: ১৯-০৩-২০২০ ইং ০০:১০:৫৪ | সংবাদটি ১৭৭ বার পঠিত
Image


আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় পিছিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। বিশ্বে আইনের শাসন সূচকে গত এক বছরে বাংলাদেশের অনেক অবনতি হয়েছে। বিশ্বের একশ’ ২৮টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান বর্তমানে একশ’ ১৫। দক্ষিণ এশিয়ার ছয়টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান এখন ষষ্ঠ। একটি আন্তর্জাতিক সংস্থার জরিপে বেরিয়ে এসেছে এই তথ্য। বৈশ্বিক আইনের শাসন সূচকের গত বছরের প্রতিবেদনে বাংলাদেশ একশ’ ২৬টি দেশের মধ্যে একশ’ ১২তম অবস্থানে ছিলো। এছাড়া আগের বছরের (২০১৮) সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান ছিলো একশ’ ২তম। অবশ্য দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থানের কোন পরিবর্তন হচ্ছে না। এক্ষেত্রে নেপাল, শ্রীলংকা ও ভারত বাংলাদেশের চেয়ে এগিয়ে আছে। পিছিয়ে আছে পাকিস্তান ও আফগানিস্তান। আর নিম্ন মধ্যম আয়ের ৩০টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ২১তম। অর্থাৎ আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে বিশ্বের অনেকগুলো দেশের তুলনায় বাংলাদেশ পিছিয়ে রয়েছে। এটা খুবই দুঃখজনক।
[সুশাসন প্রতিষ্ঠার সঙ্গে সঙ্গে একটি সভ্য ও সমৃদ্ধ জাতি বিনির্মাণের পূর্বশর্ত হচ্ছে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা। ন্যায় বিচার ও আইনের শাসন না থাকলে মানুষ কোন উন্নয়নেরই সুফল ভোগ করতে পারে না। তাছাড়া, একটি স্বাধীন সার্বভৌম দেশে আইনের শাসন ভূলন্ঠিত হবে, ন্যায় বিচার পাবে না মানুষÑ এটা হতে পারে না।] এক্ষেত্রে বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গের অভিমত হচ্ছে, বাংলাদেশে আইনের শাসন নেই বললেই চলে। পৃথিবীর শতাধিক দেশ আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশের চেয়ে ভালো অবস্থানে। এটা দুঃখজনক। স্বাধীন বিচার বিভাগ, নির্বাচন কমিশনের জবাবদিহি, দুর্নীতি দমন কমিশনের ভূমিকা, গণ মাধ্যমের স্বাধীনতাসহ সব কিছু মিলিয়ে এই পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। জরিপ প্রতিবেদনে বলা হয়Ñ ক্ষমতার সীমাবদ্ধতা, দুর্নীতির অনুপস্থিতি উন্মুক্ত সরকার, জনগণের মৌলিক অধিকার, নিয়ন্ত্রণমূলক ক্ষমতার প্রয়োগ, নাগরিক ন্যায় বিচার এবং ফৌজদারি বিচারে বাংলাদেশের অবস্থার চরম অবনতি হয়েছে। বিশেষ করে নাগরিকের মৌলিক অধিকার প্রতিষ্ঠার দিক দিয়ে বাংলাদেশের অবস্থান দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর সবচেয়ে নিচে। অর্থাৎ ষষ্ঠ অবস্থানে রয়েছে বাংলাদেশ।
বাংলাপিডিয়া’র মতেÑ আইনের শাসন হলো, রাষ্ট্র পরিচালনা নীতি বিশেষ যেখানে সরকারের সকল ক্রীয়াকর্ম আইনের অধীনে পরিচালিত হয় এবং যেখানে আইনের স্থান সব কিছুর উর্ধে। আর ব্যবহারিক ভাষায় আইনের শাসনের অর্থ এই যে, রাষ্ট্রক্ষমতায় অধিষ্টিত সরকার সর্বদা আইন অনুযায়ী কাজ করবে; যার ফলে রাষ্ট্রের যে কোন নাগরিকের কোন অধিকার লঙ্ঘিত হলে, সে তার প্রতিকার পাবে। অর্থাৎ আইনের শাসন তখনই বিদ্যমান থাকে, যখন সরকারি ক্ষমতা ও কর্তৃত্বের অনুশীলন সাধারণ আদালতের পর্যালোচনাধীন থাকে, যে আদালতের শরণাপন্ন হওয়ায় অধিকার সকল নাগরিকের সমান। আইনের শাসন হচ্ছে জনগণের ন্যায় বিচার, শাস্তি ও সমাজে সুযোগ পাওয়ার মূল ভিত। তাই আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করা আমাদের সবারই দায়িত্ব। তবে এক্ষেত্রে সরকারের ভূমিকা সবচেয়ে বেশি।

 

শেয়ার করুন

Developed by:Sparkle IT