মহিলা সমাজ

সুস্বাদু নাস্তার ৫টি নতুন রেসিপি

ডাক ডেস্ক প্রকাশিত হয়েছে: ২৪-০৩-২০২০ ইং ০১:১৮:৪১ | সংবাদটি ১২৯৫ বার পঠিত
Image

আপনাদের জন্য আমাদের এখনকার আয়োজনে রয়েছে এ যাবৎ কালের মজার রান্নার ইতিহাসের সব থেকে বেশি রেসিপি সংযুক্ত একটি রেসিপিগুচ্ছ। আর এই রেসিপিগুচ্ছটি সাজানো হয়েছে মুখরোচক সব নাস্তার রেসিপি দিয়ে। আমরা গ্যারান্টি সহকারে বলতে পারি এমন উপকারি রেসিপি এবং এতো রেসিপি একসঙ্গে আপনাকে কেউ দেবে না। আমরা মনে করছি এই রেসিপিগুচ্ছ আপনার বিকেলের নাস্তার চিন্তাই শেষ করে দেবে। দেখে নিন মুখরোচক নাস্তার ৫টি নতুন রেসিপি।

কাঁঠালের কোলাক
উপকরণ : ১. পাকা কলা ২০০ গ্রাম, ২. পাকা কাঁঠালের কোয়া ১৫০ গ্রাম, ৩. মিষ্টি আলু ১০০ গ্রাম, ৪. নারকেলের দুধ তিন কাপ, ৫. তালের গুড় আধা কাপ, ৬. মধু এক টেবিল চামচ, ৭. তেজপাতা ২ টা, ৮. আদার টুকরো এক ইঞ্চি, ৯. পানি আধা লিটার।
প্রণালি : প্রথমেই একটি পাত্রে করে চুলায় পানি গরম দিন। পানি ফুটতে শুরু করলে তাতে তেজপাতা, আদার টুকরো আর গুড় দিয়ে দিন। কিছুক্ষণ পরে গুড় গুলে গেলে মিষ্টি আলু দিয়ে মিশ্রণটি আরও কিছুক্ষণ ফোটান। মিনিট পনেরো পরে মিষ্টি আলু নরম হয়ে এলে কাঁঠাল আর কলার টুকরো দিন। পাঁচ মিনিট মতো ফুটিয়ে আঁচটা একেবারে কমিয়ে দিন। এবার নারকেলের দুধ মেশান, মধু দিন। আরও মিনিট দশেক ফুটিয়ে গ্রেভি ঘন হয়ে এলে নামিয়ে ফেলুন।
তুর্কি পোগাকা
উপকরণ: ডো তৈরির জন্য: ১. ১০০ গ্রাম মাখন, ২. ১/২ কাপ তেল. ৩. ২টি ডিম, ৪. ১/২ গ্লাস দুধ, ৫. ১ টেবিল চামচ বেকিং পাউডার, ৬. ১ চা চামচ লবণ, ৭. ৪ কাপ ময়দা পুররের জন্য: ১. ৩টি ছোট আলু সিদ্ধ, ২. ১টি পেঁয়াজ. ৩. তেল, ৪. ১ চা চামচ লবণ, ৫. ১/২ চা চামচ গোল মরিচের গুঁড়ো, ৬. কালোজিরা, ৭. ডিমের কুসুম
প্রণালি : একটি প্যানে তেল গরম করে এতে পেঁয়াজ কুঁচি দিয়ে দিন। পেঁয়াজ নরম হয়ে এলে এতে সিদ্ধ আলু (ম্যাশ করা), লবণ, গোল মরিচের গুঁড়ো এবং লাল শুকনো মরিচের গুঁড়ো দিয়ে দিন। কিছুক্ষণ চুলায় রেখে নামিয়ে ফেলুন। আরেকটি পাত্রে মাখন, ডিম, দুধ, তেল, লবণ, ময়দা, বেকিং পাউডার একসাথে ভাল করে মিশিয়ে ডো তৈরি করে নিন। ডোটি নরম না হওয়া পর্যন্ত ময়ান করুন। এবার ডো থেকে ডিমের আকৃতির সমান লেচী করে এতে আলুর পুর দিয়ে পুরির মত তৈরি করে নিন। একটি ছুড়ি দিয়ে চারপাশে কিছুটা পার্থক্য রেখে কাটুন। যেন দেখতে ফুল আকৃতির হয়। এবার ওভেন ট্রেতে এই ফুলগুলো রাখুন তার উপর ডিমের কুসুম ব্রাশ করে দিন। তার উপর কিছু পরিমাণ কালোজিরা ছিটিয়ে দিন। এরপর ২০০ ডিগ্রী সেলসিয়াস (৪০০ ফারেনহাইট) প্রি হিট করা ওভেনে বেক করতে দিন। ২৫ মিনিট পর বাদামি রঙ হয়ে এলে নামিয়ে ফেলুন।
শিঙ্গাড়া
খামিরের জন্য : ১. ময়দা আড়াই কাপ, ২. লবণ আধা চা-চামচ, ৩. তেল ২ টেবিল-চামচ, ৪. বেকিং পাউডার আধা চা চামচ, ৫. পানি প্রয়োজন মতো, ৬. কালোজিরা ১ চিমটি।
প্রণালি : একটি বাটিতে ময়দা, লবণ, বেকিং পাউডার, কালোজিরা ও তেল নিয়ে ভালো করে হাতে মিশিয়ে নিন। এবার অল্প অল্প পানি দিয়ে পরোটার খামিরের মতো বানিয়ে ভালো করে মথে নিন ঢেকে রেখে দিন ২০ থেকে ২৫ মিনিট।
পুরের জন্য : ১. আলু ৩টি মাঝারি আকারের (ছোট কিউব করে কাটা ও সিদ্ধ করা), ২. পেঁয়াজ ২টি (কুঁচি করা), ৩. আদ ও রসুন বাটা ২ চা-চামচ, ৪. কাঁচামরিচ-কুঁচি ২-৩টি, ৫. গাজর কিউব করে কাটা, ৬. মটরশুঁটি সিদ্ধ এক মুঠ, ৭. ধনিয়াপাতা-কুঁচি ২ টেবিল-চামচ, ৮. হলুদগুঁড়া আধা চা-চামচ, ৯. টালা ধনিয়া ও জিরা গুঁড়া আধা চা-চামচ, ১০. পাঁচফোড়ন গুঁড়া আধা চা-চামচ, ১১. লবণ স্বাদমতো, ১২. তেল পরিমাণমতো।
পুরের প্রণালি : একটি কড়াইতে তেল গরম করে পেঁয়াজকুঁচি, মরিচকুঁচি, আদা ও রসুন বাটা দিয়ে হালকা ভেজে তাতে পরিমাণ মতো লবণ, হলুদগুঁড়া, পাঁচফোড়ন, ধনিয়া ও জিরা গুঁড়া দিয়ে হালকা ভেজে নিন। তারপর গাজর এবং মটর সিদ্ধ দিয়ে দুই মিনিট ভেজে আলুগুলো হাত দিয়ে একটু ভেঙে দিয়ে দিন।
তিন থেকে চার মিনিট নাড়াচাড়া করে ধনিয়াপাতা-কুঁচি দিয়ে নেড়ে নামিয়ে ফেলুন এবং ঠাণ্ডা করে নিন।
প্রণালি : খামির কয়েক ভাগে ভাগ করে বল বানিয়ে রাখুন।
একটি বল নিয়ে ডিম্বাকৃতি আকারে একটু মোটা করে রুটি বেলে দুই ভাগ করে নিন। তারপর একটি ভাগ নিয়ে পানের খিলির মতো করে ভাজ করে পুর ভরে মুখটা আটকে দিন।
এই মুখের এক প্রান্ত অন্য প্রান্তের সঙ্গে আরেকটা ভাজ দিন এবং সুচালু করে আকার দিয়ে নিন তিন দিকে।
এভাবে সব শিঙ্গাড়া তৈরি করুন এবং ডুবো তেলে ভাজুন বা হালকা ভেজে তুলে নিন। একদম ঠাণ্ডা করে জিপলক ব্যাগে ভরে ফ্রিজে রেখে দিন। প্রয়োজন অনুযায়ী ভেজে পরিবেশন করুন গরম গরম সসের সঙ্গে।
নোট : এই শিঙ্গাড়া সংরক্ষণের জন্য প্রথমে তৈরি করে গরম তেলে দিয়ে হালকা ভেজে তুলে নিন। একদম ঠাণ্ডা হয়ে গেলে ডিপ ফ্রিজে রেখে দিন জিপলক ব্যাগে ভরে। অনেকদিন ভালো থাকবে। খেতে ইচ্ছে করলে অথবা মেহমান আসলে ফ্রিজ থেকে বের করে ১০ মিনিট পর ভেজে পরিবেশন করলেই হবে।

 

শেয়ার করুন

Developed by:Sparkle IT