প্রথম পাতা

ভারতীয় নাগরিকদের হাতে মাধবপুরের যুবক খুন : ৬ দিন পর লাশ হস্তান্তর

মাধবপুর (হবিগঞ্জ) থেকে নিজস্ব সংবাদদাতা : প্রকাশিত হয়েছে: ২৯-০৫-২০২০ ইং ২০:৩১:৩৫ | সংবাদটি ১০৩ বার পঠিত
Image

গরু চোর সন্দেহে লোকমান মিয়া নামে এক বাংলাদেশী যুবককে ভারতীয় নাগরিকরা পিটিয়ে হত্যার ৬দিন পর আজ শুক্রবার সন্ধ্যায় লাশ ফেরত দিয়েছে। নানা টালবাহানা শেষে ভারতের পশ্চিম ত্রীপুরার মোহনপুর সীমান্ত দিয়ে বিএসএফ ও ভারতীয় পুলিশ লোকমান মিয়ার লাশ ফেরত দেয়। বাংলাদেশের পক্ষে মাধবপুর থানার কাশিমনগর পুলিশ ফাঁড়ির ইন্সপেক্টর মোর্শেদ আলম ভারতের পশ্চিম ত্রীপুরার সিধাই থানার এসিপি কামাল মজুমদারের নিকট থেকে লাশ গ্রহণ করেন । পরে লোকমানের মরদেহ তার ভাই হুমায়ুন ও ধর্মঘর ইউপি চেয়ারম্যান শামসুল ইসলাম কামালের কাছে বুঝিয়ে দেয়া হয়। লোকমান মিয়া মাধবপুর উপজেলার সীমান্তবর্তী ধর্মঘর ইউনিয়নের মালঞ্চপুর গ্রামের মৃত আবদুল হাসিমের পুত্র। নিহতের পরিবার জানায়, গত ২৪ মে সীমান্ত অতিক্রম করে ভারতের ত্রিপুরার মোহন এলাকায় ফুফুর বাড়ি যাচ্ছিলেন লোকমান । কিন্তু একদল ভারতীয় নাগরিক তাকে গরুচোর সন্দেহে এলোপাতাড়ি পেটাতে থাকে। এসময় তিনি বেড়াতে এসেছেন জানালেও ভারতীয়দের মন গলেনি।খবর পেয়ে পশ্চিম ত্রিপুরার সিধাই থানার পুলিশ মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে একটি হাসপাতালে নিয়ে গেলে লোকমানের মৃত্যু হয়। সিধাই থানা পুলিশ বিষয়টি বাংলাদেশের পুলিশ প্রতিনিধি ও বিজিবিকে অবগত করে। এ ব্যাপারে একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। এসময় বাংলাদেশের বিজিবি ও পুলিশ প্রতিনিধিরা কড়া প্রতিবাদ করেন। এদিকে, বুধবার বিকেলে সীমান্তের ১৯৯৪/৪ এস পিলারের কাছে বিজিবি-বিএসএফের পতাকা বৈঠক হয়। ভারতের পক্ষে ১২০ ব্যাটালিয়নের মোহনপুর ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার ইন্সপেক্টর শশি কান্ত ও বাংলাদেশের পক্ষে নেতৃত্ব দেন ৫৫ বিজিবির ধর্মঘর ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার সুবেদার দেলোয়ার হোসেন । বৈঠক শেষে পশ্চিম ত্রীপুরার সিধাই থানার ইন্সপেক্টর বিজয় সিং ময়নাতদন্ত, সুরতহাল রিপোর্ট আনুসাঙ্গিক কাগজপত্র ছাড়া লাশ হস্তান্তর করতে চায়। এতে বাংলাদেশের পুলিশের প্রতিনিধি ইন্সপেক্টর মোর্শেদ আলম ও এসআই কামরুল কাগজপত্র ছাড়া মরদেহ গ্রহণে অস্বীকৃতি জানায়। ফলে লাশ গ্রহণ প্রক্রিয়া হয়নি । পরে টানা তিন দিন দুদেশের পুলিশ ও সীমান্ত রক্ষীর কয়েক দফা বৈঠক শেষে প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়। আজ শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে মোহনপুর সীমান্তে ১৯৯৪/ এস ৪ এলাকা দিয়ে সিধাই থানার এসিপি কামাল মজুমদার বাংলাদেশের বাসিন্দা লোকমান মিয়ার মরদেহ ও আনুসাঙ্গিক কাগজপত্র সহ মাধবপুর থানা পুলিশের কাছ বুঝিয়ে দেন। নিহতের ভাই হুমাইয়ুন ও স্হানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শামসুল ইসলাম কামাল লাশ গ্রহণ করেন।হবিগঞ্জ ব্যাটলিয়ান ৫৫ বিজির সহকারী পরিচালক নাসির উদ্দিন চৌধুরী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

শেয়ার করুন

ফেসবুকে সিলেটের ডাক

প্রথম পাতা এর আরো সংবাদ
  • আজ বিশ্বব্যাপী করোনা আক্রান্তের সর্বোচ্চ রেকর্ড
  • কিট নিয়ে ঔষধ প্রশাসন পজিটিভ : গণস্বাস্থ্য
  • ফের হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইনের ব্যবহার না করার পরামর্শ ডব্লিউএইচওর
  • দেশে করোনায় মৃত্যু ২ হাজার ছাড়াল, নতুন শনাক্ত ২৭৩৮
  • সিকৃবিতে ৪র্থ সিলেট চলচ্চিত্র উৎসবের পর্দা উঠছে আজ
  • মধুশহীদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগের তদন্ত অনুষ্ঠিত
  • আবারো করোনা ‘পজিটিভ’ মাশরাফি
  • করোনাভাইরাস পরীক্ষার ফি তুলে দেওয়ার দাবি বিএনপির
  • সারাদেশে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট বন্ধের হুমকি
  • দেড় কোটির বেশি পরিবারকে সরকারি ত্রাণ সহায়তা প্রদান
  • রাজধানীর ওয়ারী’তে ২১ দিনের লকডাউন শুরু
  • বাড়িওয়ালাদের সদয় হতে ওবায়দুল কাদেরের আহ্বান
  • সিলেট বিভাগে কোভিড-১৯ আক্রান্তের সংখ্যা
  • ভারত-চীন উত্তেজনার মধ্যেই লাদাখ সফরে মোদি
  • যুক্তরাজ্যের বর্ষসেরা চিকিৎসক বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ফারজানা বিলবোর্ডে ছবি টানিয়ে সম্মানীত
  • দ্রুতই বিশ্ব পেতে পারে করোনার কার্যকরী ঔষধ : বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা
  • ছয় দফার পক্ষে দলিল প্রস্তুতিতে অবদান ছিল ড. ওয়াহিদুল হকের : পররাষ্ট্রমন্ত্রী
  • বিএনপি নেতা এনামুলকে ঢাকায় প্রেরণ
  • সিলেট-ঢাকা মহাসড়কের শেরপুর ও কাগজপুর সেতু বন্ধ, বিকল্প রাস্তা ব্যবহারের অনুরোধ
  • দোয়ারাবাজারে দুর্ভোগে বানভাসি মানুষ
  • Image

    Developed by:Sparkle IT