প্রথম পাতা

ছাতকে অনিয়ন্ত্রিত বাজার : কাঁচাবাজার আবারো প্রধান সড়কে

ছাতক (সুনামগঞ্জ) থেকে নিজস্ব সংবাদদাতা : প্রকাশিত হয়েছে: ৩০-০৫-২০২০ ইং ২১:২৫:০০ | সংবাদটি ১২৫ বার পঠিত
Image

ছাতকে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি অবনতির দিকে ধাবিত হলেও সাধারণ মানুষ এর তোয়াক্কা না করে স্বাভাবিক জীবন যাত্রার মতো চলাফেরা করতে শুরু করেছে। ফলে এখানের করোনাভাইরাস সংক্রমণ মহামারী আকার ধারনের আশংকা করছেন শহরবাসী। এদিকে, ঈদ উপলক্ষে দেশের লকডাউন পরিস্থিতি কিছুটা শিথিল হওয়ার সুবাদে সাধারণ মানুষ শহর ও বাজারমুখী হতে হুমড়ী খেয়ে পড়ে। এখানের অধিকাংশ দোকানপাট ও বিপনী বিতানগুলো একটি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে খোলা রাখলেও সব ধরনের দোকানেই মানুষের ভিড় ছিল বরাবরের ঈদের মতোই। ঈদ পরবর্তি এক দুদিন পর আবারো শহর ও বাজারমুখী হয়ে পড়েছে এখানের সাধারণ মানুষ। মানছে না কোন স্বাস্থ্যবিধি ও বজায় রাখছে না কোন সামাজিক দূরত্ব। শহরে আসা শতকরা প্রায় ৭০ ভাগ মানুষ ও ব্যবসায়ী ব্যবহার করছে না মাস্ক। অনিয়ন্ত্রিত হয়ে পড়েছে এখানের কাঁচামাল ব্যবসায়ীরাও। আগের মতোই প্রধান সড়কের ফুটপাত দখল করে ব্যবসা শুরু করেছে তারা। কিছু-কিছু কাঁচামাল ও ফল ব্যবসায়ীরা আইন-শৃঙ্খলার তোয়াক্কা না করে তারা তাদের পূর্বে স্থানে দোকান খুলতে শুরু করেছে। রমজান শুরু হওয়ার আগেই শহরের প্রধান সড়কের উপর জনচাপ কমানোর উদ্দেশ্যে এখানের কাঁচা বাজার, ফল, মাছ, পান-সুপারীসহ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য ব্যবসা ছাতক শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামে (মন্টু বাবুর মাঠ) স্থানান্তর করে পৌরসভা কর্তৃপক্ষ। দেশের নির্ধারিত সময় অনুযায়ী ফার্মেসী ছাড়া সকাল ৮ টা থেকে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত খোলা রেখে এখানের সকল দোকানপাট ভালোই চলছিল। কিন্তু রমজানের মাঝামাঝি সময় থেকে ক্রমেই অনিয়ন্ত্রিত হয়ে উঠে এখানের কাঁচাবাজার ব্যবসায়ীরা। স্থানান্তরিত নির্ধারিত স্থান থেকে আস্তে-আস্তে শহরের প্রধান সড়কে উঠে আসতে থাকে। বর্তমানে এখানের বাজার পরিস্থিতি দেখলে যে কেউ মনে করবে এখান থেকে করোনাভাইরাস নামক মহামারী হয়তো বিদায় নিয়েছে। শহরের কিছু সংখ্যক দোকান ও মার্কেটগুলো নির্ধারিত সময়ে বন্ধ করা হলেও শহরের অলি-গলির বেশ কিছু দোকান রাত প্রায় ১০ টা পর্যন্ত খোলা রাখতে দেখা গেছে। শহরের গলির কয়েকটি চায়ের দোকানে গভীর রাত পর্যন্ত খোলা রেখে বেচা-কেনা করতে দেখা গেছে। রাতে শহরের ট্রাফিক পয়েন্টে দেখা গেছে কতিপয় ব্যবসায়ী কাঁচামাল, মাছ ও চায়ের দোকান খুলে বসতে । ফলে এ ব্যবসায়ীদের ঘিরে এখানে কেনা-বেচার পাশাপাশি আড্ডায়ও মত্ত হয় কিছু অতি উৎসাহিত মানুষ। সন্ধ্যার পর প্রশাসনিক ও পুলিশি তৎপরতা তেমন না থাকায় তারা বিনা বাধায় ও অবাধে ব্যবসা খুলে বসতে পারছে বলে অনেকেই মনে করছেন। এদিকে, প্রতিদিনই এখানে করোনা রোগীর সংখ্যা ক্রমেই বেড়ে চলছে। উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগের দেয়া তথ্য অনুযায়ী আজ শনিবার পর্যন্ত এখানে ২৪ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে বেশীরভাগই ঈদ পরবর্তী সময়ে শনাক্ত হয়। বর্তমান অনিয়ন্ত্রিত এ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা না হলে এখানের করোনা মহামারী ভয়াবহ আকার ধারন করার আশংকা করছেন অভিজ্ঞ মহল।

শেয়ার করুন

ফেসবুকে সিলেটের ডাক

প্রথম পাতা এর আরো সংবাদ
  • ছাতকে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে গিয়ে ফেঁসে গেলেন যুবক
  • হুমায়ুন রশীদ চৌধুরীর মৃত্যুবার্ষিকী পালিত শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ ও দোয়া মাহফিল
  • জাফলংয়ে বাল্কহেডের ধাক্কায় বালুবোঝাই নৌকা ডুবিতে নিখোঁজ ২
  • নগরীর উন্মুক্ত ৩টি মাঠে বসছে কোরবানির পশুর হাট
  • সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুনের মৃত্যুতে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর শোক প্রকাশ
  • বৃষ্টিপাতের প্রবণতা অব্যাহত থাকতে পারে
  • সাহেদকে কোনোভাবেই ছাড় দেওয়া হবে না : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
  • করোনায় বাতিল ট্রেনের টিকিটের মূল্য ফেরত পাবেন যাত্রীরা
  • বাংলাদেশসহ ১৩ দেশ থেকে ইতালি প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা
  • সিলেট বিভাগে ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত ৫৯, মৃত্যু ২ ও সুস্থ ৬২ জন
  • করোনা জয় করলেন ৩৫ বিচারক
  • বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস আজ
  • ভারতে করোনা শনাক্তে রেকর্ড একদিনে সাড়ে ২৬ হাজারের বেশি
  • দুবাই-আবুধাবি ফ্লাইট চালুর নতুন তারিখ নির্ধারণ
  • সরকারি অফিসে নতুন গাড়ি কেনা বন্ধ
  • কোরবানির চামড়া কিনতে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ঋণ দেওয়ার নির্দেশ
  • আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য ও সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন আর নেই
  • মাস্ক পরলে করোনার ঝুঁকি ৬৫ ভাগ কমে
  • ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৩৭, শনাক্ত ২৯৪৯
  • ভক্ত আশেকানদের মাজারে একত্রিত না হওয়ার অনুরোধ এসএমপির
  • Image

    Developed by:Sparkle IT