সম্পাদকীয় সত্যকে মিথ্যা দিয়ে ঢেকোনা, জেনে শুনে সত্য গোপন করোনা।-আল হাদিস

এক হাজার নতুন বিদ্যালয়

প্রকাশিত হয়েছে: ০৩-০৬-২০২০ ইং ০১:৫৯:২২ | সংবাদটি ১৪১ বার পঠিত
Image

বিদ্যালয়বিহীন একহাজার গ্রামে নির্মিত হচ্ছে প্রাথমিক বিদ্যালয়। এই উদ্যোগ নিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। এই লক্ষে প্রত্যেক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নেতৃত্বে গঠিত হয়েছে পাঁচ সদস্যের কমিটি। তারা নিজ নিজ উপজেলার বিদ্যালয়বিহীন গ্রাম চিহ্নিত করবে। জানা গেছে, বিদ্যালয়বিহীন ১৫ শ’ গ্রামে প্রাথমিক বিদ্যালয় স্থাপন প্রকল্প গত ডিসেম্বরে শেষ হয়েছে। এই প্রকল্পেরই দ্বিতীয় ধাপে উল্লিখিত এক হাজার প্রাথমিক বিদ্যালয় নির্মাণ করা হবে। সরকারী হিসেবেই বর্তমানে দেশের ২১ শ’ গ্রামে কোন সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় নেই। চার-পাঁচ কিলোমিটারের মধ্যে কোন প্রাথমিক বিদ্যালয় নেই, এমন এলাকাও রয়েছে। বেসরকারী হিসেবে দেশের ১৬ হাজার একশ’ ৪২টি গ্রামে সরকারী কোন প্রাথমিক বিদ্যালয় নেই।
দেশে বর্তমানে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সংখ্যা ৬৩ হাজার ছয়শ’ একটি। এর শিক্ষার্থীর সংখ্যা দুই কোটি ২০ লাখ। অপরদিকে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রায় দ্বিগুণ রয়েছে বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়। সরকারের দীর্ঘদিনের পরিকল্পনা-প্রতিটি গ্রামে একটি করে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় থাকবে। সেই লক্ষে বিভিন্ন ধাপে নির্মিত হচ্ছে বিদ্যালয়। দেশের দেড় হাজার গ্রামে ইতোপূর্বে প্রাথমিক বিদ্যালয় নির্মিত হয়েছে; যেসব গ্রামে এর আগে কোন সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ছিলোনা। এবার বাছাই করা হচ্ছে এক হাজার বিদ্যালয়বিহীন গ্রাম। এসব গ্রামে নির্মাণ করা হবে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়। অচিরেই প্রকল্পের কাজ শুরু হবে বলে আশা করা যাচ্ছে। শিক্ষার মূল ভিত্তি হিসেবে প্রাথমিক শিক্ষাকে গুরুত্ব দিতে হবে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে। সরকার সবার জন্য বাধ্যতামূলক প্রাথমিক শিক্ষা ঘোষণা করেছে অনেক দিন আগে। কিন্তু শত ভাগ প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিত হয়নি এখনও। তার অনেকগুলো কারণ রয়েছে। এর অন্যতম হচ্ছে বিদ্যালয়ের অভাব। ক্রমান্বয়ে সেই সমস্যাও নিরসন হচ্ছে।
প্রাথমিক শিক্ষার উন্নয়নে বিদ্যালয় স্থাপনসহ নানা ধরণের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। বিনামূল্যে বই প্রদান, উপবৃত্তি, মিড ডে মিল ইত্যাদি কার্যক্রম চালু রয়েছে। বিদ্যালয়ের সৌন্দর্য্য বর্ধনেরও কার্যক্রম বাস্তবায়িত হয়েছে। কিন্তু তার পরেও শতভাগ শিশুকে বিদ্যালয়ে নিয়ে আসা সম্ভব হয়নি এখনও। এটি একটি বিবেচনার বিষয়। আরেকটি বিষয় হচ্ছে বেসরকারী কিন্ডার গার্টেন বিদ্যালয় শহরাঞ্চলসহ অনেক গ্রামেই এই ধরণের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছড়াছড়ি। মোটামুটি সামর্থবান পরিবারের সন্তানদের এসব ব্যয়বহুল বিদ্যালয়ে পাঠানো হচ্ছে। আর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো পক্ষান্তরে ‘গরীবের বিদ্যালয়ে’ পরিণত হয়ে গেছে। শিক্ষা ক্ষেত্রে এই যে বৈষম্য, এটা নিরসন কীভাবে-সেটা নিয়েও ভাবতে হবে।

শেয়ার করুন

Developed by:Sparkle IT