সম্পাদকীয় সকল মৃত্যুর মধ্যে শহীদের মৃত্যুই সর্বাপেক্ষা উত্তম। -আল কুরআন

নদীভাঙনে বাড়ছে গৃহহীন

প্রকাশিত হয়েছে: ২৭-০৬-২০২০ ইং ০২:১৪:০২ | সংবাদটি ৬৬ বার পঠিত
Image

নদীভাঙনে প্রতি বছর গৃহহীন হচ্ছে আড়াই লাখ মানুষ। এদেশে একটি প্রাচীন ও ভয়াবহ সমস্যা হচ্ছে নদীভাঙন। কৃষিজীবী সাধারণ মানুষের কাছে নদীভাঙন হচ্ছে এক নম্বর প্রাকৃতিক দুর্যোগ। সারা বছরই এই দুর্যোগ সংঘটিত হয়। দেশের প্রায় পাঁচ শতাংশ মানুষ এর শিকার হচ্ছে। এর ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ প্রায় তিন হাজার নয়শ’ কোটি টাকা। দেশের বেশির ভাগ নদীতেই ভাঙন হচ্ছে। দেশের ৮৫টি শহর ও বন্দরসহ মোট দু’শ ৮৩টি স্থানে প্রতি বছরই হচ্ছে নদীভাঙন। জানা গেছে, নদীর ¯্রােতের বেগ যতো বেশি হয় এবং যতো বেশি কৌণিকভাবে আঘাত করে, ততো বেশি করে নদীর কুল ভাঙে। ঢেউয়ের আঘাতে নদীর পারের ভেতরের দিকের নরম কাদামাটি ক্ষয় হয়ে ওপরের মাটিসহ ধ্বসে পড়ে। আর এভাবেই নদী ভেঙে নিয়ে যায় মানুষের বসতভিটা, ফসলি জমি, বৃক্ষ সম্পদ, গ্রাম-জনপদ। যুগ যুগ ধরে চলে আসছে এভাবে। নদীভাঙনের ফলে মানুষ গৃহহীন হচ্ছে, ভূমিহীন হচ্ছে। নদীভাঙনের ফলে বাড়ছে দারিদ্র্যের হার। নদীভাঙনের স্থায়ী কোন সমাধান হচ্ছে না। অথচ প্রতি বছর এই খাতে কোটি কোটি টাকা ব্যয় হচ্ছে। যার বড় অংশই লুটপাট করছে দুর্নীতিবাজ চক্র।
তেরোশ’ নদী বিধৌত এই বাংলাদেশ। জালের মতো ছড়িয়ে আছে এইসব নদী। অথচ এই নদীর অনেকগুলোই এখন হারিয়ে গেছে। যেগুলো বিদ্যমান রয়েছে সেগুলো কতোদিন সচল থাকবে, সেটা একটা বড় প্রশ্ন। অনেক কারণেই নদী মরে যাচ্ছে। তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে নদীভাঙন। এদেশের কোটি কোটি মানুষের জীবন ও জীবিকার সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত এই নদনদী। আর মানুষের জীবনে ভয়াবহ দুর্যোগ সৃষ্টির জন্যও দায়ী এই নদনদী। জরিপের তথ্য হচ্ছে বছরে নদীভাঙনে বিলীন হচ্ছে গড়ে এক লাখ ৪০ হাজার একর। আর এতে ভূমিহীন হচ্ছে কমপক্ষে আড়াই লাখ মানুষ। এরা আশ্রয় নেয় শহরের বস্তি এলাকায়; অনেকের ঠাঁই হয় ফুটপাতে। জানা গেছে, দেশের ৬৪টি জেলার মধ্যে ৫১টি জেলায়ই নদীভাঙন হচ্ছে। এ পর্যন্ত নদীতে বিলীন হয়েছে সাড়ে পাঁচ লাখ একরের বেশি জমি। আর নদীভাঙনে উদ্বাস্তু, গৃহহীন ভাসমান মানুষের সংখ্যা প্রতি বছর বেড়েই যাচ্ছে। এদের মধ্যে কমপক্ষে ২০ শতাংশ নিকটবর্তী শহরের বস্তিতে আশ্রয় নেয়। যে কারণে শহরের বস্তিতে বসবাসকারীদের ২৫ শতাংশই নদীভাঙনে বাস্তুভিটা হারিয়েছে। বিগত পাঁচ বছরে নদীভাঙনে অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতি হয়েছে পাঁচ হাজার চারশ’ ৮৪ কোটি টাকা।
নদীভাঙন রোধে সরকার কোনকিছুই করছে না, এমনটি বলা যায় না। সরকারের রয়েছে এই সংক্রান্ত মন্ত্রণালয় এবং বিশাল কর্মচারীর বহর। দেশব্যাপী রয়েছে এরা ছড়িয়ে ছিটিয়ে। নদীভাঙন রোধে প্রতি বছরই ব্যয় হচ্ছে সরকারের কোটি কোটি টাকা। কিন্তু ভাঙন রোধে কার্যকর ও দীর্ঘমেয়াদী টেকসই পদক্ষেপ গ্রহণে সফলতার চেয়ে ব্যর্থতার পাল্লাই ভারী। যে কারণে নদীভাঙনে প্রতি বছর গৃহহীন উদ্বাস্তু লোকের সংখ্যা যেমন বাড়ছে, তেমনি সরকারের বরাদ্দ কোটি কোটি টাকা মিশে যাচ্ছে নদীর ঘোলাজলে। আসল কথা হলো, নদনদী সুরক্ষার দায়িত্বে নিয়োজিত বেশির ভাগ সরকারি কর্মচারীদের মধ্যে অনিয়ম দুর্নীতির মাত্রা বেড়েই চলেছে। এদের দুর্নীতির কালো হাত না ভাঙতে পারলে নিয়ন্ত্রণ হবে না নদীভাঙনের মতো জাতীয় দুর্যোগ।

শেয়ার করুন

Developed by:Sparkle IT