সম্পাদকীয় এই তিনটিকে পবিত্র রাখুন- শরীর, পোষাক এবং আত্মা। -মাওলানা নোমানী

এক কোটি বৃক্ষরোপণ

প্রকাশিত হয়েছে: ১৯-০৭-২০২০ ইং ০২:৩০:১২ | সংবাদটি ১১৪ বার পঠিত
Image

শুরু হয়েছে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি। তিন মাসব্যাপী এই অভিযান চলবে আগামী সেপ্টেম্বর মাসের ১৫ তারিখ। যদিও প্রতিবছর এই অভিযান পরিচালিত হয়, তবুও এবার মুজিববর্ষ উপলক্ষে এই কর্মসূচিতে নতুন মাত্রা এসেছে। তাই এবারের শ্লোগান হচ্ছে ‘মুজিববর্ষের আহ্বান- লাগাই গাছ বাড়াই বন’। এই অভিযান চলাকালে এ বছর দেশব্যাপী এক কোটি বৃক্ষরোপণ করার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলা, জীববৈচিত্র সংরক্ষণ, দারিদ্র্য বিমোচন, কর্মসংস্থান সৃষ্টি, আর্থ সামাজিক উন্নয়নসহ পরিবেশ উন্নয়নে এই বৃক্ষরোপণ অভিযান খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে আশা করা হচ্ছে। মানবজীবনে বৃক্ষের প্রয়োজনীয়তা কতোটুকু সেটা নতুন করে বলার প্রয়োজন নেই।
পরিবেশ, আবহাওয়া, জনস্বাস্থ্য সবকিছুর ওপরই প্রভাব ফেলে বৃক্ষ। পরিবেশ সুরক্ষায় বৃক্ষের ভূমিকা অনন্য। বৃক্ষ পরিবেশে অক্সিজেন দিয়ে প্রাণীজগৎকে বাঁচিয়ে রাখে। বৃক্ষ আবহাওয়া উত্তপ্ত হওয়া থেকে রক্ষা করে। অনাবৃষ্টি থেকে রক্ষা করে বৃক্ষ; রোধ করে মরুকরণ। বৃক্ষ ঘরবাড়ি সুরক্ষা করে ঝড় তুফানের হাত থেকে। তাছাড়া আমাদের দৈনন্দিন জীবনের প্রতিটি মুহূর্তে বৃক্ষের গুরুত্ব বলে শেষ করা যাবে না। তাই প্রতিটি দেশেই একটা নির্দিষ্ট পরিমাণের জমিতে বৃক্ষ সম্পদ থাকা জরুরি। বিজ্ঞানীদের মতে একটি দেশে আয়তনের ২৫ শতাংশ জমিতে গাছপালা না থাকলে সেই দেশে পরিবেশের ভারসাম্য স্বাভাবিক থাকে না। কিন্তু আমাদের দেশে যা বৃক্ষ সম্পদ রয়েছে, সেটা আয়তনের সর্বোচ্চ ১২ শতাংশ। আমাদের বৃক্ষ সম্পদ বা বনাঞ্চল দীর্ঘদিন ধরে একই অবস্থায় রয়েছে। অথচ প্রতি বছর বৃক্ষরোপণ অভিযানে বিপুল পরিমাণ বৃক্ষরোপণ করা হচ্ছে। এগুলো যাচ্ছে কোথায়, স্বাভাবিকভাবেই এই প্রশ্নটি সামনে এসে দাঁড়ায়। তবে বাস্তবতা হচ্ছে, প্রতি বছর যতো বৃক্ষের চারা রোপণ করা হোক না কেন, তার চেয়ে বেশি বৃক্ষ সম্পদ ধংস করা হচ্ছে। জ্বালানীর জন্য কাটা হচ্ছে মূল্যবান গাছ, আবাসন তৈরির জন্যও উজাড় করা হচ্ছে বৃক্ষ। দুর্বৃত্তরা উজাড় করে চলেছে সরকারের সংরক্ষিত বনাঞ্চল।
বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তনের ছোঁয়া এসে লেগেছে আমাদের দেশেও। এর প্রভাবে সারা বছরই আবহাওয়ার অস্বাভাবিক আচরণ লক্ষ করা যাচ্ছে। ঝড়-ঝঞ্ঝা, সাইক্লোন হচ্ছে ঘন ঘন। কোন কোন অঞ্চল অদূর ভবিষ্যতে মরুকরণের দিকে চলে যাবে বলেও বিশেষজ্ঞগণ আশঙ্কা করছেন। এই মহাদুর্যোগ থেকে রক্ষা পেতে আমাদের সজাগ হতে হবে এখনই। বৃক্ষ সম্পদকে রক্ষা করতেই হবে। সর্বপ্রথম সরকারি বনাঞ্চল রক্ষায় কঠোর পদক্ষেপ নিতে হবে; তাছাড়া জ্বালানীর প্রয়োজনে ও আবাসন নির্মাণেও গাছ কাটা যাবে না- মর্মে প্রয়োজনে আইন করা দরকার। তা না হলে বছরে বছরে কোটি কোটি বৃক্ষ চারা রোপণ করেও কোন লাভ নেই।

শেয়ার করুন

Developed by:Sparkle IT