সম্পাদকীয় কমছে বন্যপ্রাণী

আদর্শ হচ্ছে এমন এক প্রহরী, যা মানুষকে সৎ পথে চলতে শেখায়। -স্পেন্সার

প্রকাশিত হয়েছে: ১৫-০৯-২০২০ ইং ০৩:০৬:১২ | সংবাদটি ৫১ বার পঠিত
Image

বন্যপ্রাণী কমছে। বিশ্বজুড়ে গত ৫০ বছরে বন্যপ্রাণী কমেছে প্রায় দুই-তৃতীয়াংশ। বন উজাড় এবং মানুষের মাত্রাতিরিক্ত ভোগের কারণে এই প্রাণীর সংখ্যা কমছে। একটি আন্তর্জাতিক সংস্থার জরিপের তথ্য হচ্ছে, গত ৫০ বছরে মানুষের আক্রমণে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে ভূ-পৃষ্ঠের চার ভাগের তিন ভাগ এবং সমুদ্রগুলোর ৪০ শতাংশ। যা প্রকৃতির জন্য বড়ই হুমকিস্বরূপ। জরিপ প্রতিবেদনে বলা হয়- নিজেদের প্রয়োজনেই প্রকৃতি রক্ষায় মানুষকে এগিয়ে আসতে হবে। বিজ্ঞানীদের মতে, কোভিড-১৯ এর মতো যেসব রোগ বন্যপ্রাণী থেকে ছড়ায়, সেগুলোর প্রকোপ বৃদ্ধির পেছনে অন্যতম বড় কারণ দ্রুত বন উজাড় হওয়া।
প্রকৃতির ভারসাম্য রক্ষায় বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ অত্যন্ত জরুরি। কিন্তু মানুষেরই বেপরোয়া আচরণে ধ্বংস হচ্ছে বন্যপ্রাণী। দিনে দিনে বাড়ছে মানুষের আগ্রাসী আচরণ, উজাড় করছে বন জঙ্গল। এতে কমছে বন্যপ্রাণীর আবাসস্থল। সেই সঙ্গে তাদের খাদ্যের অভাবও দিন দিন প্রকট আকার ধারণ করছে। আর খাদ্যের প্রয়োজনে এগুলো চলে আসছে লোকালয়ে। তখন মানুষের আক্রমণের শিকার হচ্ছে বন্যপ্রাণী। এই প্রেক্ষাপটে বিশেষ করে বাংলাদেশে বন্যপ্রাণীর অবস্থা করুণ। এখানে অবাধে উজাড় হচ্ছে বনাঞ্চল। জানা গেছে, গত অর্ধশতাব্দীতে দেশে বনভূমি কমেছে ৩০ লাখ হেক্টর। ফলে একদিকে পরিবেশের ভারসাম্য ধ্বংস হচ্ছে, অপরদিকে বিলুপ্ত হচ্ছে বন্যপ্রাণী। অথচ বন্যপ্রাণী সংরক্ষণে রয়েছে আইন। আইনে বলা হয়েছে, বিভিন্ন প্রজাতির বন্যপ্রাণী শিকার নিষিদ্ধ। এই আইন লংঘনকারীদের বিরুদ্ধে শাস্তির বিধান রাখা হয়েছে। গবেষকদের মতে, সারা বিশ্বে বন্যপ্রাণী হ্রাস পাওয়ায় বর্তমান ধারা অব্যাহত থাকলে সেটা মানবজাতির জন্য দুর্ভোগের কারণ হয়ে দাঁড়াবে। তাই বন্যপ্রাণী ধ্বংসের প্রক্রিয়া বন্ধ করতে হবে যেভাবেই হোক।
সবচেয়ে দুশ্চিন্তার বিষয় হলো, কয়েক বছর ধরে বন্যপ্রাণী বাহিত মহামারি রোগ বেড়েই চলেছে। বন্যপ্রাণী ও পরিবেশ রক্ষায় যথাযথ পদক্ষেপ না নিলে এমনটা চলতেই থাকবে বলে হুশিয়ারি উচ্চারণ করেছে জাতিসংঘের বিশেষজ্ঞগণ। কোভিড-১৯ জাতীয় রোগের বিস্তার লাভের পেছনে প্রাণীজ আমিষের চাহিদা বৃদ্ধি, অস্থিতিশীল কৃষি ও জলবায়ু পরিবর্তনের কারণকে দোষারোপ করেছেন বিশেষজ্ঞগণ। তাদের মতে প্রাণীঘটিত রোগ ভোগের কারণে প্রতি বছর ২০ লাখের মতো মানুষের মৃত্যু হচ্ছে। সুতরাং আমাদের নিজেদের প্রয়োজনেই বন্যপ্রাণী সুরক্ষা করতে হবে। সংরক্ষণ করতে হবে বনাঞ্চল।

শেয়ার করুন

Developed by:Sparkle IT