প্রথম পাতা

দেশে প্রশিক্ষণ নেয়া ও অংশগ্রহণকারীরাও মুক্তিযোদ্ধা

ডাক ডেস্ক : প্রকাশিত হয়েছে: ২৩-০৯-২০২০ ইং ০১:৩৮:৩১ | সংবাদটি ৬৮ বার পঠিত
Image

মুক্তিযুদ্ধের লক্ষ্যে দেশের সীমানার বাইরে না গিয়ে দেশে প্রশিক্ষণ নেয়া ও অংশগ্রহণকারীদের মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে ২০১৬ সালের প্রজ্ঞাপনের সংজ্ঞায় অন্তর্ভুক্তির জন্য পদক্ষেপ নিতে বলেছেন হাইকোর্ট।

বিচারপতি জুবায়ের রহমান চৌধুরীর নেতৃত্বে গঠিত একটি ভার্চ্যুয়াল হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চ গত সোমবার এ রায় দেন।

ইতোপূর্বে জারি করা এ সংক্রান্ত রুল অ্যাবসলিউট (যথাযথ) ঘোষণা করে আদালত এ রায় দেন বলে গণমাধ্যমে জানান আদালতে রিটের পক্ষে শুনানিকারী আইনজীবী মোহাম্মদ আহসান।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি এটর্নি জেনারেল শেখ সাইফুজ্জামান।

আইনজীবী মোহাম্মদ আহসান বলেন, মুক্তিযুদ্ধের লক্ষ্যে যাঁরা দেশের বাইরে যাননি, দেশে থেকে প্রশিক্ষণ ও যুদ্ধে অংশ নিয়েছেন তাদেরকে ২০১৬ সালের প্রজ্ঞাপনের সংজ্ঞায় মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে অন্তর্ভুক্তির জন্য পদক্ষেপ নিতে নির্দেশ দিয়ে গতকাল রায় দিয়েছেন আদালত। এ আইনজীবী জানান, মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে রিট আবেদনকারীর ২৬ নামের তালিকা আগামী ৯০ দিনের মধ্যে গেজেট আকারে প্রকাশ করতে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

উপজেলা পর্যায়ে যাচাই-বাছাই শেষে মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাই সংক্রান্ত টাঙ্গাইলের জেলা কমিটি সখীপুর উপজেলার ২৯৫ জনের নাম সুপারিশ করে ২০০৪ সালে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ে পাঠায়। তাদের নাম গেজেট আকারে প্রকাশ না হওয়ার প্রেক্ষাপটে ২০১৬ সালে সখীপুরের এ কে এম ফজলুল করিম, কুতুবউদ্দিন আহমেদসহ ২৬ জন ২০১৬ সালে হাইকোর্টে রিট করেন। তাঁরা সবাই কাদেরিয়া বাহিনীর সদস্য ছিলেন। রিটের প্রেক্ষিতে ওই বছরের ১৫ ডিসেম্বর হাইকোর্ট রুল দেন। রুলে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে তাঁদের নামের গেজেট কেন প্রকাশ করা হবে না, তা জানতে চাওয়া হয়। এর আগে ২০১৬ সালের ১০ নভেম্বর মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয় ‘মুক্তিযোদ্ধার সংজ্ঞা ও বয়স নির্ধারণ’ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন প্রকাশ করে। এতে দেশের অভ্যন্তরে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারীদের মুক্তিযোদ্ধার সংজ্ঞা থেকে বাদ দেয়া হয়েছে উল্লেখ করে প্রজ্ঞাপনের বৈধতা নিয়ে রিট আবেদনকারীপক্ষ পরে সম্পূরক আবেদন করেন। আদালত ২০১৯ সালে রুল দেন। রুলে দেশে প্রশিক্ষণ ও মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারীদের ওই সংজ্ঞায় কেন অন্তর্ভুক্ত করা হবে না, তা জানতে চাওয়া হয়েছিল।

শেয়ার করুন

ফেসবুকে সিলেটের ডাক

প্রথম পাতা এর আরো সংবাদ
  • প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে সম্পন্ন হলো শারদীয় দুর্গোৎসব
  • মৌলভীবাজারে মোটর সাইকেল চোরকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ
  • বিএসএমএমইউ’র সাবেক ভিসি অধ্যাপক ডা. তাহিরের ইন্তেকাল
  • জালালাবাদ এসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি সৈয়দ আব্দুল মুক্তাদিরের ইন্তেকাল
  • ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত ইন্টারনেটের গতি কম পেতে পারেন গ্রাহকেরা
  • রহস্যের জট খুলতে পারে চলতি সপ্তাহে!
  • ইরফান সেলিমের টর্চার সেলের সন্ধান পেয়েছে র‌্যাব
  • ‘ফ্রান্স ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শন করে রাসূলের (সা.) অবমাননায় চরম ধৃষ্টতা দেখিয়েছে’
  • উত্তাল ঢেউ তারা টেমস নদীর পাড় থেকে গুলশান অফিসে তুলতে পারেন---সেতুমন্ত্রী
  • জনপ্রতিনিধি হোক আর যেই হোক অপরাধ করলে ছাড় নয়
  • ইরফান সেলিম ও দেহরক্ষীর এক বছরের কারাদন্ড
  • এসআই আকবর হোসেন ভূঁইয়া পলায়নের ঘটনায় পুলিশ সদর দপ্তরের প্রতিবেদন দাখিল হতে পারে আজ
  • সৌদি আরবের বাইরের মুসলিমরা ১ নভেম্বর থেকে ওমরাহ করতে পারবেন
  • জটিল এনজিওপ্লাস্টি করে ডা. ফজিলা তুন-নেসা মালিকের আন্তর্জাতিক সম্মাননা লাভ
  • শারদীয় দুর্গোৎসবের বিজয়া দশমী আজ
  • এস কে সিনহাসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ
  • সিলেটে সরকার নির্ধারিত দামে আলু বিক্রি হচ্ছে না
  • জাতিকে বিভ্রান্ত করতে পারে এমন সংবাদ পরিবেশন করবেন না
  • কাফনের কাপড় পড়ে ফাঁড়ির সামনে মায়ের অনশন
  • রায়হান হত্যার প্রতিবাদে মদিনা মার্কেটে বিশাল মানববন্ধন নতুন কর্মসূচি দুর্গা পূজার পর
  • Image

    Developed by:Sparkle IT