সম্পাদকীয় তোমরা যদি প্রকৃত মোমেন হও, তবে আল্লাহর ওপর ভরসা রাখো। -আল কুরআন

ভূমি জরিপে তিন যুগ

প্রকাশিত হয়েছে: ২৬-০৯-২০২০ ইং ০৭:৪৬:২৬ | সংবাদটি ১৯০ বার পঠিত
Image

ভূমি জরিপের কাজ শেষ হয়নি ৩৪ বছরেও। জরিপ কাজ শুরুর পাঁচ বছরের মধ্যে শেষ হওয়ার কথা থাকলেও শেষ হয়নি প্রায় তিন যুগেও। ১৯৮৫-৮৬ সালে দেশের দশটি জোনে শুরু হয় জরিপ কার্যক্রম। জরিপ কাজ একটি জোনেও শেষ হয়নি শতভাগ। কোথাও ৯০ ভাগ, কোথাও ৮০ ভাগ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এর ফলে প্রায় ৩৪ বছর আগে জমি কিনেও মালিক হিসেবে ক্রেতার নাম খতিয়ানভুক্ত হয়নি। অথচ এরই মধ্যে একই জমি বিক্রির মাধ্যমে একাধিক হাত বদল হয়েছে। একটি জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত খবরে বলা হয়, সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের গাফিলতি, দায়িত্বহীন আচরণ, দুর্নীতি এবং স্বেচ্ছাচারীতায় জরিপ কাজ বিলম্বিত হচ্ছে। আর ভূমি মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের বক্তব্য হচ্ছে, জনবল সংকট ও প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতির অভাবে সঠিক সময়ে জরিপ কাজ শেষ করা যায়নি।
সৃষ্টির ঊষালগ্ন থেকেই ভূমির সঙ্গে মানুষের রয়েছে নিবিড় সম্পর্ক। আর তাই সকল মানুষের চিরন্তন কামনার প্রতীক জমির মালিকানা অর্জন ও দখলের সীমানা নির্ধারণের চিন্তা চেতনা থেকে এদেশে ভূমি জরিপের সূচনা ঘটে। ইতিহাস ঘাটলে দেখা যায় এ দেশে প্রথম জরিপ কাজটি করেন সিকান্দার শাহ ১৩৫৭-১৩৮৯ সালের মধ্যে। এর পর পাঠান সম্রাট ১৫৪০-১৫৪৫ সালের মধ্যে ভূমি জরিপ কাজ সম্পন্ন করেন। ১৫৮২-৮৭ সালে সম্রাট আকবরের আমলে অনুষ্ঠিত হয় আরেকটি জরিপ। পরবর্তীতে বিভিন্ন সময় আরও কয়েকটি জরিপ অনুষ্ঠিত হয়। এগুলো হলো ১৭৬৭-৮২ সাল, ১৮৪৭-৭১ সাল, ১৮৮৮-১৯৪০ সাল, ১৯৫৬-৬২ সাল, ১৯৬৫ সাল। এইসব জরিপের ধারাবাহিকতায় ১৯৮৫ সালে শুরু হয় সংশোধনী জরিপ (আর এস)। যা এখনও অব্যাহত আছে। আর এই জরিপ কার্যক্রম নিয়ে সাধারণ ভূমি মালিকদের নানা ধরনের হয়রানির সম্মুখীন হতে হচ্ছে। জানা গেছে, জোনাল সেটেলমেন্ট অফিসার থেকে শুরু করে জরিপ অপারেশনের সঙ্গে সম্পৃক্তদের বেপরোয়া দুর্নীতি পুরো কার্যক্রমকে কলুষিত করেছে। আর জরিপ কাজ দীর্ঘায়িত হওয়ায় এটাও একটি কারণ।
এদেশে ভূমি সংক্রান্ত হয়রানি চিরকালীন। ভূমি নিয়েই সবচেয়ে বেশি মামলা হয় আদালতে। সময় পাল্টাচ্ছে, বদলে যাচ্ছে অনেককিছুই। কিন্তু ভূমি নিয়ে দুর্ভোগ-হয়রানির কোন পরিবর্তন হচ্ছে না। সরকার ভূমি ব্যবস্থাকে ডিজিটাল করার ঘোষণা দিয়েছে। ডিজিটাল পদ্ধতিতে ভূমি জরিপ অপারেশন পরিচালনার সক্ষমতা বৃদ্ধিকরণ প্রকল্প নিয়েছে সরকার বছর কয়েক আগে। কিন্তু তার কোন সুফল পাওয়া যাচ্ছে না এখনও। সবচেয়ে দুঃখজনক হচ্ছে, দীর্ঘ ৩৪ বছর ধরে যে কাজটি ঝুলিয়ে রেখে জনভোগান্তি জিইয়ে রাখা হয়েছে, তার ব্যাপারে সংশ্লিষ্টদের কোন মাথা ব্যথা নেই বললেই চলে।

শেয়ার করুন

Developed by:Sparkle IT