শিশু মেলা

বন্ধুর বাড়ির পথে

আলেয়া রহমান প্রকাশিত হয়েছে: ২৮-১২-২০১৭ ইং ০০:৫০:১১ | সংবাদটি ৩৪২ বার পঠিত

নিনিতাকে সবাই বলে মিষ্টি মেয়ে। স্কুল থেকে বাসায় ফিরেই বাবাকে পেয়ে যায়, আজ বাবা একটু আগে অফিস থেকে চলে এসেছেন। বাবাকে দেখেই ওর আনন্দ বেড়ে যায়। কাঁধের ব্যাগটা ফেলেই  বাবার কাছে চলে আসে। বাবাকে জড়িয়ে ধরে, বাবা- বাবা, স্যার বলেছেন আগামী কাল ষোলই ডিসেম্বর বিজয় দিবস। দেশের জন্য যুদ্ধ করে যারা প্রাণ দিয়েছেন আমাদের লাল সবুজের পতাকা ছিনিয়ে এনেছেন, তাদের প্রতি শ্রদ্ধা ও সম্মান জানাতে শহীদ মিনারে ফুল দেয়া হয়। তাই আমরা সব বন্ধু মিলে ভোর বেলা শহীদ মিনারে ফুল দিতে যাবো। তুমি কি আমাকে ফুল ও একটা সবুজ জামা এনে দেবে?  
নিনিতার কথা শুনে বাবার মন আনন্দে ভরে যায়। গালে ঠোকা দিয়ে বলেন, লক্ষি মা, সব এনে দেব। স্কুল থেকে এসেছো আগে ভাত খাও।
নিনিতা লাফাতে লাফাতে দাদুর কাছে চলে যায়। দাদু ইজি চেয়ারে বসে একটা বই পড়ছিলেন। নিনিতার লাফানো দেখে বই থেকে চোখ তুলে বললেন, কিরে দাদু! এতো লাফাচ্ছিস কেন?
নিনিতা বললো, দাদু তুমিও তো দেশের জন্য যুদ্ধ করেছো। তুমিও চল না আমাদের সঙ্গে।
নিনিতার কথা শুনে দাদুর বুকে চশমা খুলে দীর্ঘশ্বাস ফেলে বললেন, না রে দাদু।
নিনিতা বললো, কেন দাদু?
দাদু চশমা মুছে বলতে লাগলেন, আজ থেকে ছেচল্লিশ বছর আগে আমি আর খালেদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ি। আমরা খুব ঘনিষ্ট বন্ধু ছিলাম। ১৯৭১-এ পাকিস্তানী হানাদাররা দেশের উপর ঝাপিয়ে পড়লো। আমাদের স্বাধীনতা ছিনিয়ে নিতে চাইলো। তখন আমরা দুই বন্ধু সিদ্ধান্ত নিলাম, আমাদের স্বাধীনতা, আমরা আনবোই আনবো। একদিন খালেদ তার মা-বাবার কাছ থেকে বিদায় নিতে আমাকে নিয়ে গ্রামের বাড়ি যায়। বিদায় নিয়ে আমরা যখন চলে আসবো, রাশেদের মা কান্না জড়িত কন্ঠে খালেদের মাথায় হাত রেখে বললেন, তুই যুদ্ধে গেলে আমাদের দেখাশুনা কে করবে বাবা? রাশেদ তার মায়ের চোখ মুছে বললো কেঁদো না মা, আমাদের নতুন প্রজন্ম তোমাদের দেখাশুনা করবে। আজ গ্রামে তার বুড়ো মা ছেড়া শাড়ি পরে দিনের পর দিন কাটায় ঠিক মত খেতে পায় না, তার বুড়ো বাবা চোখে দেখতে পায়না। ভাঙ্গা চশমা হাতে রোদে বসে থাকে আজও অপেক্ষা করে তার সন্তানের। আমি ফিরে আসলেও খালেদ ফিরলো না। আজ যদি আমি শহীদ মিনারে ফুল নিয়ে যাই, তাহলে আমার বন্ধুর শোকে আমি কাতর হয়ে যাবো।
দাদুর কথা শুনে নিনিতা ম্লান মুখে তার রুমে চলে যায়।
ভোরবেলা দাদু ফজরের নামাজ পড়ে বারান্দায় পায়চারী করছেন। এমন সময় নিনিতা তার দাদুর সামনে দাঁড়ায়। তার হাতে একটা শাড়ি ও চশমা। দাদু তাকে জিগ্যেস করেন, কি নিনিতা এসব নিয়ে কি করবে?
Ñদাদু কাজ আছে। তুমি আমার সাথে আসো।  
Ñকোথায়?
Ñতোমার খালেদ বন্ধুর গ্রামের বাড়ি যাব।

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT