আদালতে হেলপারের স্বীকারোক্তি

দিরাইয়ে বাসে ছাত্রীর শ্লীলতাহানির চেষ্টা

সুনামগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি: দিরাইয়ে চলন্ত বাসে কলেজ ছাত্রীর শ্লীলতাহানির চেষ্টার মামলায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে গ্রেফতারকৃত হেলপার রশিদ আহমদ। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে সুনামগঞ্জ চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট রাগীব নূরের আদালতে আসামি রশিদ আহমদকে হাজির করা হলে সে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেয়।
সুনামগঞ্জের কোর্ট পরিদর্শক সেলিম নেওয়াজ জানান, জবানবন্দি গ্রহণ শেষে বিজ্ঞ বিচারক ধৃত রশিদকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন।
প্রসঙ্গত, গত শনিবার বিকেলে আত্মীয়ের বাড়ি সিলেটের লামাকাজি থেকে নিজ বাড়ি দিরাইয়ে যাওয়ার জন্য বাসে (সিলেট জ-১১০৭২৩) উঠেন ওই শিক্ষার্থী। দিরাই পৌরসভার সুজানগর গ্রামের পাশে পৌঁছলে বাসটি যাত্রীশূণ্য হয়ে পড়ে। এতে একমাত্র যাত্রী ছিলেন ওই কলেজ ছাত্রী। এ সুযোগে বাসের চালক ও হেলপার মিলে ওই ছাত্রীর শ্লীলতাহানির চেষ্টা করে। এসময় সম্ভ্রম বাঁচাতে বাসের জানালা দিয়ে ঝাঁপ দেন তিনি।
পরে স্থানীয়রা তাকে আহত অবস্থায় দিরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান। ওই দিনই ছাত্রীর বাবা বাদি হয়ে থানায় ৩ জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন। গত সোমবার ভোরে পিবিআই অভিযান চালিয়ে ছাতক উপজেলার গোবিন্দগঞ্জ এলাকার বুরাইয়ারগাঁও থেকে বাসের হেলপার রশিদ আহমদকে গ্রেফতার করে।