দায়ী আধুনিকীকরণ এবং যথাযথ ব্যবস্থাপনার অভাব

কুমারগাঁও বিদ্যুৎকেন্দ্রে অগ্নিকান্ডের তদন্ত প্রতিবেদন জমা

ডাক ডেস্ক :
সিলেটের কুমারগাঁও বিদ্যুৎ উপকেন্দ্রে অগ্নিকান্ডের ঘটনায় গঠিত বিদ্যুৎ মন্ত্রণালয়ের তদন্ত কমিটি প্রতিবেদন জমা দিয়েছে। গত সোমবার বেলা ১১টায় তদন্ত কমিটির আহবায়ক বিদ্যুৎ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব রহমত উল্লাহ মো. দস্তগীর অনলাইনে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেন । প্রতিবেদনে বলা হয়, উপকেন্দ্রটির প্রয়োজনীয় আধুনিকায়ন না করা এবং যথাযথ ব্যবস্থাপনার অভাবে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। প্রতিবেদন উপস্থাপনকালে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ ভার্চুয়ালি যুক্ত ছিলেন। প্রতিবেদনে এককভাবে কাউকে দায়ী না করলেও উপকেন্দ্রের পরিচালনা ও সংরক্ষণ কাজগুলো সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করা এবং প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে দক্ষ জনবল সৃষ্টির সুপারিশ করা হয়। বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।
প্রতিবেদন উপস্থাপন ভার্চুয়ালি বিদ্যুৎ সচিব মো. হাবিবুর রহমান, বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের (পিডিবি) চেয়ারম্যান প্রকৌশলী বেলায়েত হোসেন, পাওয়ার সেলের মহাপরিচালক মোহাম্মদ হোসাইন ও পিজিসিবির ব্যবস্থাপনা পরিচালক গোলাম কিবরিয়া যুক্ত ছিলেন।
প্রতিবেদনে পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি অব বাংলাদেশের নিয়ন্ত্রণাধীন ১৩২/৩৩ কেভি গ্রিড উপকেন্দ্রের ইকুইপমেন্টসের কন্ট্রোল ও প্রটেকশনের জন্য ডিসি সিস্টেম এবং বিউবোর নিয়ন্ত্রণাধীন ৩৩ কেভি বাস ও ইকুইপমেন্টসের কন্ট্রোল ও প্রটেকশনের জন্য ডিসি সিস্টেম জরুরিভাবে সম্পূর্ণ পৃথক করার সুপারিশ করা হয়। এছাড়া, জরুরি ভিত্তিতে গ্রাউন্ডিং সিস্টেম বৃদ্ধিপূর্বক যথাযথ মানে উন্নয়ন/সম্প্রসারণ করা, ভূগর্ভস্থ কন্ট্রোল ক্যাবলিং সিস্টেম জরুরি ভিত্তিতে সংস্কার করা, ফল্ট লেভেল নিয়ন্ত্রণে
১৩২ কেভি ও ৩৩ কেভিতে প্যারালালে সংযুক্ত পাওয়ার ট্রান্সফরমারগুলো জরুরি ভিত্তিতে পৃথক করা, পাওয়ার ট্রান্সফরমার, কারেন্ট ট্রান্সফরমার, পটেনশিয়াল ট্রান্সফরমার, সার্কিট ব্রেকার ইত্যাদি অতি গুরুত্বপূর্ণ ইকুইপমেন্টসমূহ উচ্চ গুণগত মানসম্পন্ন করা, উপকেন্দ্রের সংরক্ষণ কাজগুলো যথাযথভাবে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে তদারকি আরও জোরদার করা, উপকেন্দ্রের পরিচালন ও সংরক্ষণ কাজগুলো সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার জন্য পিজিসিবি ও বিউবোর আলাদাভাবে জনবল পদায়ন করা এবং প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে দক্ষ জনবল সৃষ্টির ব্যবস্থা করা, গ্রিড উপকেন্দ্রের গুরুত্বপূর্ণ ইকুইপমেন্টগুলো নিয়মিত পরীক্ষা ও সংরক্ষণের ব্যবস্থা করাসহ বিভিন্ন সুপারিশ করা হয়।
সিলেট বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগের প্রধান প্রকৌশলী আব্দুল কাদির জানান, প্রতিবেদন জমা দেয়া হয়েছে বলে তিনি শুনেছেন। কিন্তু প্রতিবেদনে কি আছে তিনি তা জানেন না। অগ্নিকান্ডের ঘটনায় মোট ক্ষয়ক্ষতির বিষয়েও তার কাছে কোন তথ্য নেই।
উল্লেখ্য, গত ১৭ নভেম্বর বেলা ১১টার দিকে সিলেটের কুমারগাঁওয়ে পিডিবির ৩৩ কেভি গ্রিড উপকেন্দ্রে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। এতে ৩৩/১১ কেভি বিদ্যুৎ সরবরাহ ট্রান্সফরমারে আগুন লেগে যায়। ফায়ার সার্ভিসের ৫টি ইউনিট প্রায় ২ ঘণ্টা চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়।
অগ্নিকান্ডের ঘটনায় পুরো সিলেট অন্ধকারে নিমজ্জিত হয়ে যায়। এ কারণে এ অঞ্চলের বিপুল সংখ্যক গ্রাহক ছিলেন বিদ্যুৎবিহীন। প্রায় ৩দিন পরে সিলেটের বিদ্যুৎ ব্যবস্থা স্বাভাবিক হয়।