প্রসঙ্গ : মুক্তিযোদ্ধা তালিকা

এমন লোকের সঙ্গে বন্ধুত্ব করো না, যে তোমার দোষগুলো মনে রাখে এবং গুণগুলো ভুলে যায়। -হজরত আলী (রা.)।

তালিকা হচ্ছে মুক্তিযোদ্ধাদের। অনেক আগেই শুরু হয়েছে এই তালিকা তৈরির কাজ। শেষ হবে কবে তা জানেনা কেউ। বিজয়ের পঞ্চাশতম বর্ষ চলছে এখন। আগামী ডিসেম্বরেই উদযাপিত হবে সুবর্ণ জয়ন্তী। কিন্তু এখন পর্যন্ত এই বিজয় অর্জনের পেছনে যে অকুতোভয় বীর সন্তানদের অবদান রয়েছে সেই মুক্তিযোদ্ধাদের সঠিক ও নির্ভরযোগ্য একটি তালিকা তৈরি হয় নি। এর চেয়ে দুঃখজনক আর কী হতে পারে? শুধু তাই নয়, এই তালিকা তৈরির নামে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের হয়রানীও করা হচ্ছে বলে অভিযোগ ওঠেছে। এটা আমাদের স্বাধীনতার ইতিহাসের সূর্যসন্তানদের জন্য সত্যি অপমানজনক।
মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা প্রণয়নের কাজ শুরু হয়েছে অনেক আগে। বিগত সময়ে বেশ কয়েকবারই তালিকা হয়েছে; আবার পরবর্তীতে তা সংশোধনও হয়েছে। পরে আবার তৈরি হয়েছে। এভাবে বিভিন্ন সময় ক্ষমতাসীন সরকার নিজেদের ইচ্ছেমতো মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা করেছে। আর এই সুযোগে অনেক অমুক্তিযোদ্ধা-রাজাকারও তালিকায় সংযুক্ত হয়ে গেছে। তারা বছরের পর বছর সরকারের সব সুযোগ-সুবিধা ভোগ করছে; সমাজে দেখাচ্ছে দাপট প্রতিপত্তি। ইতোপূর্বে মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকার বিষয়টি সর্বোচ্চ আদালতেও গড়িয়েছে। সুপ্রিমকোর্ট একটি নির্দেশনাও দিয়েছেন। এই ধারাবাহিকতায় বর্তমান সরকার মুজিববর্ষ উপলক্ষে মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা করার কাজ শুরু করেছে। চলছে যাচাই বাছাই প্রক্রিয়া। এই প্রক্রিয়ায় বিভিন্ন পর্যায় মুক্তিযোদ্ধাদের হয়রানী করা হচ্ছে বলে জানা গেছে। অনেক পরিচিত মুক্তিযোদ্ধাকেও যাচাই বাছাই কমিটির মুখোমুখি হতে হচ্ছে। স্মরণ করা যেতে পারে, ১৯৭২ সাল থেকে এ পর্যন্ত মুক্তিযোদ্ধার সংজ্ঞা ও সংখ্যা নির্ধারণে সৃষ্ট বিভেদের মীমাংসা হয় নি।
সবকিছু পরে যেটা বলা উচিত তাহলো, স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে মুক্তিযোদ্ধাদের সঠিক তালিকা প্রণীত হোক, এটা সবাই চায়। এই প্রক্রিয়ায় [স্বীকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের যাচাই বাছাইয়ের নামে হয়রানী করার যে হীন কর্মকাণ্ড চলছে সেটা বন্ধ করতে হবে। দেশের জন্য জীবন বাজি রেখে যে যুদ্ধে নামতে পারে, তাকে চেনা এতো কঠিন হবে কেন? বিশেষজ্ঞদের মতে, প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধারা ঢাক ঢোল পিটিয়ে নিজেদের কথা প্রচার করবে না। এটাই স্বাভাবিক। আর ভূয়া মুক্তিযোদ্ধারা নিজেদের ভূয়া পরিচয়কে জায়েজ করতে নানা ধরণের প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখবে সর্বদা। এই সূত্রকে সামনে রেখেই চিহ্নিত হোক প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা।