সম্পাদকীয় মানুষ যা লাভ করেছে, তার মধ্যে সর্বশ্রেষ্ঠ হচ্ছে সুন্দর স্বভাব। -আল হাদিস

বায়ু দূষণ-আতঙ্ক

প্রকাশিত হয়েছে: ২৮-১০-২০২০ ইং ০৫:২৫:৪৬ | সংবাদটি ১১৯ বার পঠিত

বায়ু দূষণ আতঙ্ক হয়ে দেখা দিয়েছে বিশ্বজুড়ে। এটি নতুন কিছু নয়, পুরনো। তবে অতি সম্প্রতি আতঙ্কের মাত্রা বেড়ে গেছে। বায়ুদূষণ জনিত নানা রোগে বিশ্বব্যাপী মানুষের মৃত্যুর একটি পরিসংখ্যান সম্প্রতি বের হয়েছে। আর এতে বেরিয়ে এসেছে ভয়াবহ তথ্য। এতে বলা হয়, দীর্ঘমেয়াদী বায়ু দূষণের সংস্পর্শে থাকার ফলে বিশ্বজুড়ে নানা রোগের প্রকোপ বেড়ে চলেছে। বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যা। তাই বায়ু দূষণ রোধে এগিয়ে আসতে হবে সব দেশের সরকার ও জনগণকে। এই পরামর্শ দিয়ে বিশেষজ্ঞগণ বলছেন, সব দেশের উচিত দূষণ কমাতে যেখানে সেখানে সম্ভব পরিবেশবান্ধব প্রযুক্তি ব্যবহার করা।
সর্বশেষ গবেষণার তথ্য হচ্ছে- বায়ু দূষণের সংস্পর্শে থাকার ফলে বিশ্বজুড়ে স্ট্রোক, হার্টএটাক, ডায়াবেটিস, ফুসফুসের ক্যান্সার, দীর্ঘস্থায়ী ফুসফুসের রোগ ও নতুন রোগে গত বছর (২০১৯) ৬৭ লাখ মানুষের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে অর্ধেকের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে চীন (১৮ লাখ) এবং ভারতে (১৬ লাখ)। এছাড়া, একই সময়ে বিশ্বে প্রায় পাঁচ লাখ নবজাতক মারা গেছে। আর জন্মের মাত্র একমাস সময়ের মধ্যে ভারতেই মারা গেছে এক লাখ ১৬ হাজারের বেশি নবজাতক। আফ্রিকার সাব-সাহারা অঞ্চলে এই সংখ্যা দুই লাখ ৩৬ হাজার। গবেষকরা বলছেন, বায়ু দূষণের ফলে গর্ভের সন্তানের আকৃতি ছোট হয়, কম ওজন হয়। যে কারণে অকাল জন্মের ঝুঁকিও রয়েছে। বায়ু দূষণের কারণে সৃষ্ট এসব জটিলতা নবজাতকের মৃত্যুর জন্য দায়ী। এই গবেষণায় দক্ষিণ এশিয়া এবং আফ্রিকার সাব-সাহারা অঞ্চলে জন্মগ্রহণকারী শিশুদের উচ্চ ঝুঁকির ইঙ্গিত রয়েছে। বিশ্বজুড়ে এখন মানুষের মৃত্যুর জন্য উচ্চ রক্তচাপ, তামাকের ব্যবহার এবং ডায়েটের ঝুঁকির পর চতুর্থ বৃহত্তম কারণ বায়ু দূষণ।
বায়ু দূষণ কখনও প্রাকৃতিক কারণে, আবার কখনও মানুষের দৈনন্দিন কাজের ফলে সৃষ্ট ক্ষতিকর উপাদানের কারণে হয়ে থাকে। বন্যা, জলোচ্ছ্বাস, সমুদ্রতরঙ্গ সৃষ্ট লবণ কণা, ধুলোঝড় ও এসিড বৃষ্টি প্রভৃতি প্রাকৃতিক কারণ। আর মানুষের সৃষ্ট কারণগুলো হচ্ছে- যেখানে সেখানে ময়লা আবর্জনা ও পশু পাখীর মৃত দেহ ফেলা, জ্বালানী হিসেবে তেল, বিষাক্ত ও সীসাযুক্ত গ্যাস ব্যবহার, যান্ত্রিক যানবাহন, ইটভাটা, শিল্প ও কারখানার ধোঁয়া ও বর্জ্য, কৃষিজ বর্জ্য ইত্যাদি। এছাড়া, বনাঞ্চল কমে গেলে বায়ুমণ্ডল দূষিত হয়; কীটনাশক রাসায়নিক দ্রব্য বায়ু দূষণ করছে। তাই বায়ু দূষণরোধে সরকার, সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ, অন্যান্য সংস্থা ও জনগণ সমন্বিত উদ্যোগ নিলে সফলতা আসবে।

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT